• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

ব্রেক্সিট চুক্তি : আলোচনায় বঙ্গবন্ধু দৌহিত্রী

'গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অব্যহত রাখতে সন্তান প্রসব পেছায়'

  অধিকার ডেস্ক    ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:১৪

ছবি : সংগৃহীত

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়া নিয়ে ব্রেক্সিট চুক্তি ভোটে আলোচনার সৃষ্টি করেছেন বাংলাদেশের টিউলিপ সিদ্দিক। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এই ব্রিটিশ সংসদ সদস্য অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক্সিট চুক্তির জন্য তার সন্তান প্রসবের তারিখ পাল্টে দিয়েছেন। যখন তার হাসপাতালের অস্ত্রোপাচার কক্ষে থাকার কথা ছিল তখন তিনি অতি ঝুঁকিপূর্ণ শারীরিক অবস্থার নিয়েই ভোট দিতে চলে যান হাউজ অব কমন্সে। 'বিবিসি নিউজ'

ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে থেরেসা মে'র ভোটের দিন ব্রিটিশ সংসদের ভীড়ের মধ্যে নীল পোশাক পরা, হুইল চেয়ারে করে আসা বঙ্গবন্ধুর নাতনী বিশ্ব গণমাধ্যমে আলাদা নজর কাড়েন। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে ভোট দেয়ার জন্যে তিনি তার জন্মদানের তারিখ পরিবর্তন করে এ সপ্তাহের শেষের দিকে নিয়েছেন।

ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে প্রক্সি ভোটে টিউলিপ সিদ্দিকের এমন পদক্ষেপ নতুন আলোচনার সৃষ্টি করেছে। যুক্তরাজ্যে এমন একটি ব্যবস্থা নেই যেখানে এমপি তাদের পক্ষ থেকে ভোট দেয়ার জন্য একটি প্রক্সি মনোনয়ন করতে পারে, এমনকি তারা সন্তান জন্ম দেন কিংবা সন্তান জন্ম দিতে যাচ্ছেন। কিন্তু পেয়ারিং সিস্টেম নামে একটি উপায় আছে। এতে কোনো এমপি ভোট দিতে না পারলে প্রতিপক্ষের কাউকে ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকতে রাজি করাতে পারেন। এর অর্থ দাঁড়ায় দুদল থেকে দুজন ভোটে অংশ নেয়া থেকে বিরত থাকবেন।

ছবি : সংগৃহীত

তবে, এ পদ্ধতিতে বিশ্বাসী নন টিউলিপ। তিনি বলেন, মাতৃত্বকালীন ছুটিতে যাওয়া লিবারেল ডেমোক্রেটিক জো সুইনসনের সঙ্গে ট্রেড বিলের ভোট নিয়ে এমন একটি অঙ্গীকার দিয়ে রাখেননি কনজারভেটিভ চেয়ারম্যান ব্রান্ডেন লেইস।

মিসেস সিদ্দিক ২ বছর আগে তার প্রথম সন্তান জন্মদানের সময় অত্যন্ত কঠিন সময় পার করেছেন, চলতি সপ্তাহের সোমবার কিংবা মঙ্গলবার ডাক্তার তাকে সিজারিন সেকশনে সন্তান প্রসবের পরামর্শ দিয়েছিলেন যা তিনি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রক্রিয়াটা স্থগিত করতে সম্মত হন।

তিনি বলেন, 'ইউরোপের সঙ্গে ব্রিটেনের শক্তিশালী সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার সুযোগ বাড়ার জন্য যদি আমার সন্তান ডাক্তারের পরামর্শের একটা দিন পরেও পৃথিবিতে আসে, তাহলে সেই যুদ্ধ স্বার্থক।'

ছবি : সংগৃহীত

এরপরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ঝড় শুরু হয় আলোচনার। জর্জিয়া হিকস নামের একজন এক টুইট বার্তায় জানায়, 'একজন মা তার সন্তানের জন্ম বিলম্ব করতে পারে কারণ এখানে কোন প্রক্সি সিস্টেম নেই, তবে লোকেরা এখনও সেক্সিজম ও লিঙ্গ সমতার অস্তিত্ব নিয়ে বিতর্ক করবে।'

অন্য একজন বলেন, '২০১৯ সালে এসে নারীদের এমন পরিস্থিতির সম্মুক্ষীণ হতে হচ্ছে, তা বিশ্বাস ই করা যাচ্ছেনা।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: info@odhikar.news

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড