• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

জিয়ার পরিচয় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী : রেলমন্ত্রী||কলকাতায় চিকিৎসা করাতে যাওয়া ২ বাংলাদেশিকে পিষে মারল জাগুয়ার||ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম বিক্রি শুরু ||ইহুদিবাদী ইসরায়েলের প্রস্তাব নাকচ করে দিল মার্কিন সাংসদ||ভারতকে অবিলম্বে কাশ্মীরের কারফিউ তুলতে বলেছে ওআইসি||‘তদন্ত করতে হবে কেন এসব অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে’||ইউক্রেনের হোটেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮ জনের প্রাণহানি||‘অগ্নিকাণ্ডে কেউ চাপা পড়েছে কিনা তল্লাশি চলছে’ ||মুক্তিপ্রাপ্ত ইরানের সুপার ট্যাঙ্কারটি আটকে এবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ারেন্ট জারি||অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী  
eid

এবার অ্যাটর্নি জেনারেলকে প্রত্যাহার করলেন ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প
জেফ সেশনস (বামে) ও মাথ্যু হুইটেকার (ডানে)। ছবি : সম্পাদিত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পিছু যেন ছাড়ছেই সমালোচনা, একেরপর এক বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচোনাকে আরও বেগবান করছেন। ‘সিএনএন’ কেলেঙ্কারির পরে এবার অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশনস’কে প্রত্যাহার করলেন তিনি।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিজের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বুধবার বেলা ১১টা ৪৪ মিনিটে দেয়া এক পোস্টে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। যেখানে তিনি লিখেন, ‘আমরা এই ঘোষণা দিতে পেরে খুশি যে সেশনস’কে অস্থায়ীভাবে সরিয়ে চিফ অব স্টাফ মাথ্যু হুইটেকারকে দায়িত্ব দেয়া হবে। তিনি আমাদের দেশের জন্য আরও ভালো কাজ করবেন।’

ট্রাম্প আরেকটি পোস্টে লেখেন, আমারা অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশনস’কে তার কাজের জন্য ধন্যবাদ এবং একই সঙ্গে শুভকামনা জানাচ্ছি। পরবর্তীতে এই পদে আরেকজনকে স্থায়ীভাবে নিযুক্ত করা হবে।

ছবি : সম্পাদিত 

জেফ সেশনস’কে বরখাস্তের ঘটনাটি যে খুব স্বাভাবিক প্রক্রিয়াই ঘটেছে তা মোটেও নয়। তারিখবিহীন একটি পদত্যাগপত্রে স্পষ্ট ধরা পড়েছে যে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেননি তিনি। অ্যালাবামার সাবেক এই সিনেটর আগে ট্রাম্পেরই সমর্থক ছিলেন। 

তিনি পদত্যাগপত্রে লেখেন, প্রিয় প্রেসিডেন্ট আপনার অনুরোধে আমি আমার পদত্যাগপত্র জমা দিচ্ছি। প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি লেখেন, সবচেয়ে বড় কথা আমি অ্যাটর্নি জেনারেল থাকার সময় আমরা আইনের শাসনকে বলবৎ রেখেছি।

জেফ সেশনস’র সঙ্গে ট্রাম্পের বিবাদ শুরু হয়েছিল ২০১৭ সালের মার্চ মাসে। তখনই সেশনস রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়ে যে তদন্ত হচ্ছিল, সেখান থেকে সরে আসেন। এরপর থেকেই বিভিন্ন সময় প্রকাশ্যে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ এই আইনপ্রণেতার বিরুদ্ধে নানা ধরনের সমালোচনামূলক কথা বলতে থাকেন প্রেসিডেন্ট। 

ছবি : সম্পাদিত 

 

২০১৭ সালে ‘নিউ ইয়র্ক টাইমস’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, তিনি তদন্ত থেকে সরে যাবেন এ কথা আমাকে আগে বললে তাকে এই দায়িত্ব দিতাম না। আমি অন্য কাউকে এই দায়িত্ব দিতাম। 

নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনের পরেই সেশনস’কে বরখাস্ত করা হতে পারে এমন গুঞ্জন আগে থেকেই ছিল যা এখন সত্য হলো। তার স্থলে এখন চিফ অব স্টাফ মাথ্যু হুইটেকার।
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড