• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী সারাভানানের পদত্যাগের দাবি সাবেক মূখ্যমন্ত্রীর

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া প্রতিনিধি

২১ জুন ২০২২, ০২:০৯
মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী সারাভানানের পদত্যাগের দাবি সাবেক মূখ্যমন্ত্রীর
হ্যারিস সালেহ ও এম সারাভানান (ছবি : অধিকার)

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানানের পদত্যাগ দাবি করেছেন, সাবাহ রাজ্যের সাবেক মূখ্যমন্ত্রী হ্যারিস সালেহ। সোমবার (২০ জুন) বিবৃতির মাধ্যমে তিনি এ দাবি জানান।

হ্যারিস বলেছেন, অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণকে একটি 'মূর্খ ধারণা' বলার জন্য সারাভানানের পদত্যাগ করা উচিত।

গত ১৬ জুন সাবাহে মানব পুঁজি অভিবাসনের একটি ফোরামে, সারাভানান আরও বলেছিলেন যে, অবৈধ অভিবাসীদের তাদের মূল দেশে নির্বাসিত করা উচিত; কারণ তাদের বৈধ করা আরও অবৈধ অভিবাসীদের দেশে প্রবেশ করতে উত্সাহিত করবে।

এর প্রেক্ষিতে হ্যারিস বলেছেন, কর্মশক্তির জন্য অনথিভুক্ত অভিবাসীদের বৈধ করার বিষয়টি মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

হ্যারিস বলছেন, যদি কোনো মন্ত্রী মন্ত্রিসভা বা ফেডারেল সরকারের সিদ্ধান্তের সাথে একমত না হন, তাহলে তার পদত্যাগ করা উচিত। এটি সংসদীয় গণতন্ত্র।

তার দাবি, সাবাহে অবৈধভাবে কাজ করা নথিভুক্ত অভিবাসীরা মূলত "সঠিক চ্যানেল" এর মাধ্যমে দেশে প্রবেশ করেছিল এবং ১০ থেকে ২০ বছর সাবাহে থাকবে। "তবে, আর কোন আইনি প্রক্রিয়ার অভাবে, তাদের আইনি কাগজপত্র অপ্রচলিত হয়ে গেছে।

হ্যারিস আরও বলেন যে, কর্মীবাহিনীতে অনথিভুক্ত অভিবাসীরা সাবাহার অর্থনীতিতে বিশেষ করে পাম অয়েল সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। "এই শ্রমিকদের ছাড়া, সাবাহর অর্থনীতি ভেঙে পড়বে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি, অনথিভুক্ত অভিবাসীদের সমস্যা সমাধানে তথ্য সংগ্রহের ঘোষণা দেয় মালয়েশিয়ার সাবাহ রাজ্য। সে সময় রাজ্যের ডেপুটি মুখ্যমন্ত্রী দাতুক সেরি বুং মোক্তার রাদিন বলেছিলেন, ফেব্রুয়ারি থেকে এ বিষয়ে একটি বিশেষ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

জানা গেছে, সাবাহ সরকারের মালিকানাধীন কোম্পানি স্মার্ট সাবাহ করপোরেশন এসডিএন বিএইচডি- গত ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২ আগস্টের মধ্যে এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে। কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর সমন্বিত অভিযানের মাধ্যমে অনথিভুক্ত বিদেশি শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কঠোর অভিযানে নামবে রাজ্য সরকার।

সাবাহ রাজ্যের ফরেন ন্যাশনাল ম্যানেজমেন্ট টেকনিক্যাল কমিটির কো-চেয়ারম্যান বলেছেন, রাজ্যে বিদেশি কর্মী এবং অভিবাসীদের সঠিক সংখ্যা জানার জন্য এই প্রোগ্রামটি গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি আরও জানান, বায়োমেট্রিক ডেটাসহ সব তথ্য ও কয়েক দশকের পুরানো সমস্যার সমাধান খুঁজতে ফেডারেল ও সাবাহ সরকার কাজ করবে।

গত ২৪ জানুয়ারি কারিগরি কমিটির বৈঠকের পর এ কথা বলেন তিনি। এ সময় মালয়েশিয়ার সাবাহ রাজ্যের উপ-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আই দাতুক সেরিও উপস্থিত ছিলেন।

ওই রাজ্যের ডেপুটি মুখ্যমন্ত্রী বুং মোক্তার বলেন, এজেন্সি ও বিভাগের মধ্যে তথ্যের অসঙ্গতির কারণে রাজ্যে বিদেশিদের সংখ্যা নির্ধারণ করা কঠিন ছিল। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে যথাযথভাবে কার্যকর করার আশা করা হচ্ছে এবং একজনও যেন বাদ না পড়ে তা নিশ্চিতে সব সেক্টরের ডেটা সংগ্রহ করা হবে বলে সে সময় জানিয়েছেন রাজ্যের ডেপুটি মুখ্যমন্ত্রী বুং মোক্তার।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড