• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঐতিহ্যবাহী আরেক মসজিদে মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধ চায় হিন্দুত্ববাদীরা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ মে ২০২২, ২১:৩০
উত্তর প্রদেশের মথুরায় ঐতিহাসিক শাহি ঈদগাহ মসজিদ
উত্তর প্রদেশের মথুরায় ঐতিহাসিক শাহি ঈদগাহ মসজিদ। (ছবি : সংগৃহীত)

ভারতের ঐতিহ্যবাহী আরও এক মসজিদে মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে আদালতে পিটিশন দায়ের করেছেন দেশটির কট্টর হিন্দুত্ববাদী কয়েকটি গোষ্ঠী। উত্তর প্রদেশের মথুরায় ঐতিহাসিক সেই শাহি ঈদগাহ মসজিদের স্থানে হিন্দু কোনও স্থাপনার ধ্বংসাবশেষ আছে কিনা তা না জানা পর্যন্ত মুসলমানদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা চায় তারা।

বুধবার (১৮ মে) উত্তর প্রদেশের (ইউপি) হিন্দু ধর্মীয় শহর মথুরার স্থানীয় আদালতে এই পিটিশন দায়ের করে।

জানা গেছে, পিটিশনটি আমলে নিয়েছেন মথুরার স্থানীয় আদালতের বিচারকরা। এই পিটিশনের বিষয়ে এখনও শুনানি শুরু হয়নি। তবে সপ্তদশ শতকের শাহি ঈদগাহ মসজিদের ভেতরের ভিডিও ধারণ ও সেখানে জরিপ চালানোর অনুমতি চেয়ে ২০২০ সালের একটি মামলার শুনানি শুরু করেছেন বিচারকরা।

মামলার আইনজীবী মাহেন্দ্র প্রতাপ বলেন, ‘শাহি ঈদগাহ মসজিদের ভেতর থেকে হিন্দু প্রতীকগুলো সরিয়ে ফেলা হতে পারে বলে আমরা সন্দেহ করছি। যে কারণে আমরা চাই আদালত সেখানে মুসলমানদের প্রবেশ স্থগিত করুন।’

প্রসঙ্গত, চলতি মাসে একই রাজ্যের বারানসির বিখ্যাত জ্ঞানবাপি মসজিদেও মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধ চেয়ে আদালতে পিটিশন দায়ের করে হিন্দুত্ববাদীরা। পরে জ্ঞানবাপি মসজিদের ওজুখানার জলাধারে তথাকথিত শিবলিঙ্গ বা ফোয়ারার নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার নির্দেশ দেয় দেশটির শীর্ষ আদালত।

সেইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের বিচারকরা বলেছেন, বারানসির জ্ঞানবাপি মসজিদে মুসলমানদের নামাজ পড়তে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। এই মসজিদের ভেতরেও পরিদর্শনকারী একটি দলকে ঢুকে ভিডিও ধারণ ও অনুসন্ধানের অনুমতি দিয়েছেন আদালত। ভারতের হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজনৈতিক ঘাঁটি উত্তর প্রদেশের প্রাচীন শহর বানারস।

ওডি/জেআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড