• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাম চাষিদের বিক্ষোভে উত্তাল ইন্দোনেশিয়ার রাজপথ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ মে ২০২২, ১২:০০
পাম চাষিদের বিক্ষোভে উত্তাল ইন্দোনেশিয়ার রাজপথ
ইন্দোনেশিয়ার রাজপথে বিক্ষোভরত পাম চাষিরা (ছবি : বিবিসি নিউজ)

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র ইন্দোনেশিয়ায় পাম তেল রফতানি বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু করেছেন সাধারণ কৃষকরা। সরকারের নেওয়া ওই সিদ্ধান্তের কারণে রোজগার প্রায় অর্ধেকে নেমে গেছে অভিযোগ করে মঙ্গলবার (১৭ মে) রাজধানী জাকার্তায় আন্দোলন করেছেন শত শত কৃষক।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবর অনুযায়ী, স্থানীয় বাজারে মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে গেল ২৮ এপ্রিল পাম তেল রফতানি নিষিদ্ধ করে বিশ্বের শীর্ষ পাম উৎপাদক ইন্দোনেশিয়া। এতে বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের সরবরাহ হ্রাসের পাশাপাশি মূল্যও ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে। এতেই মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ইন্দোনেশিয়ার পাম চাষিরা। সেখানে পাম ফলের দাম প্রায় অর্ধেকে নেমে গেছে।

বিশ্লেষকদের মতে, ভোজ্য তেলের বাজারে ইন্দোনেশিয়ার অনুপস্থিতির সুযোগে সরবরাহ বৃদ্ধি করে দিয়েছে প্রতিদ্বন্দ্বী রাষ্ট্র মালয়েশিয়া। মূলত এতে ব্যাপকভাবে লাভবানও হচ্ছে দেশটি। মঙ্গলবার ইন্দোনেশিয়ায় আন্দোলনকারীদের হাতে বিভিন্ন ধরনের ব্যানার দেখা গেছে। তার মধ্যে একটিতে লেখা ছিল, ‘মালয়েশীয় কৃষকদের মুখে বড় হাসি, ইন্দোনেশীয় কৃষকরা দুর্ভোগে।’

বিবৃতির মাধ্যমে ইন্দোনেশিয়ার ক্ষুদ্র কৃষকদের সংগঠন আপকাসিনদো বলছে, রফতানি নিষেধাজ্ঞার পর পাম ফলের দাম আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ নির্ধারিত ভিত্তি মূল্যের চাইতে ৭০ শতাংশ নিচে নেমে গেছে।

আরও পড়ুন : জোরপূর্বক শ্রম সংকট নিরসনে নতুন পথে মালয়েশিয়া

উল্লেখ্য, ইন্দোনেশিয়ায় স্বাধীন কৃষকরা সাধারণত ভিত্তি মূল্যের নিশ্চয়তা পান না। মূলত তা নির্ধারিত হয় কারখানা এবং বড় মাপের সমিতিগুলোর মধ্যে বিদ্যমান চুক্তির মাধ্যমে।

আপকাসিনদোর হিসাবে, রফতানি নিষেধাজ্ঞার পর থেকে দ্বীপরাষ্ট্র ইন্দোনেশিয়ার অন্তত ২৫ শতাংশ পাম তেল কারখানা স্বাধীন কৃষকদের কাছ থেকে পাম কেনা বন্ধ করে দিয়েছে। যার অর্থ- কারখানার ট্যাংকগুলো এরই মধ্যে হয়তো পূরণ হয়ে রয়েছে।

আরও পড়ুন : যুক্তরাষ্ট্রকে আসিয়ান বাণিজ্য এজেন্ডা গ্রহণের আহ্বান

সংগঠনটি বলছে, ইন্দোনেশিয়ার অন্য ২২টি প্রদেশেও দ্রুত একইভাবে আন্দোলনে নামতে পারেন সাধারণ পাম চাষিরা। তাই এখনই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড