• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৫ মে ২০২২, ১৩:৫১
ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা
মানিক সাহা (ছবি : সংগৃহীত)

ভারতের ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি ও রাজ্যসভার সংসদ সদস্য মানিক সাহা।

বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব শনিবার পদত্যাগ করেন। বিপ্লব দেবের পদে এ দিনই দলটি মানিক সাহার নাম ঘোষণা করে।

শনিবার বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠকে মানিক সাহাকে মুখ্যমন্ত্রী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

যদিও বিজেপির একটি গোষ্ঠী এই সিদ্ধান্তে খুশি হয়নি। বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মানিক সাহার নাম ঘোষণা হতেই বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের উপস্থিতিতে মন্ত্রী বিধায়করা দুদলের বিভক্ত হয়ে হাতাহাতিতে জড়ান। উত্তেজিত হয়ে পড়েন মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল।

বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব মানিক সাহাকে যখন উত্তরীয় পরিয়ে বরণ করছিলেন, তখনই ঘঠে এমন ঘটনা।

মেয়াদ শেষের ১০ মাস আগে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন বিপ্লব দেব। শুক্রবার তিনি বিজেপির সাবেক সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেন। তার পরেই শনিবারই তিনি পদত্যাগ করেন।

বিপ্লব দেবের ইস্তফা দেয়ার কারণ স্পষ্ট না হলেও সংবাদমাধ্যমকে বিপ্লব জানিয়েছেন, ‘দল আমাকে যেমন, যে কাজের জন্য ভাববে, আমি রাজি।’

তিনি বলেন, ‘শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশেই ইস্তফা দিয়েছি। সংগঠন থাকলে তবেই সরকার থাকবে। সংগঠনের কাজ করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আশা করি আমার যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল এতদিন ত্রিপুরার মানুষের সঙ্গে ন্যায় করেছি, ত্রিপুরার উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করেছি।’

এ দিন সংবাদমাধ্যমের সামনে বিপ্লব আরও বলেন, ‘সামনে ২০২৩ বিধানসভা নির্বাচন। দল যেভাবে চাইবে, আমি সেভাবেই কাজ করব। আমরা চাইছি, দীর্ঘ সময় ধরে রাজ্যে বিজেপি সরকার থাকুক। আর সরকার ধরে রাখতে গেলে আমার মতো সংগঠককে প্রয়োজন।

এ প্রসঙ্গে বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘পার্টি ওকে পদত্যাগ করতে বলেছে, উনি পদত্যাগ করেছেন। এর বেশি কিছু বলতে পারব না।’

এদিন ত্রিপুরার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সঙ্গে রাজভবনে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে যান মানিক সাহা।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘দলের সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত মেনে মুখ্যমন্ত্রী পদে ইস্তফা দিয়েছেন বিপ্লব দেব।’

এদিকে বিপ্লব দেবের ইস্তফা দেয়ার ঘটনা, বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আর বিপ্লবের ব্যর্থতার ফল বলে কটাক্ষ করেছে বিরোধীরা।

আরও পড়ুন : খারকিভে জয় ইউক্রেনের, চাপে রাশিয়া

অন্যদিকে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করেন, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আর প্রতিষ্ঠানবিরোধী আন্দোলনে জর্জরিত ত্রিপুরা বিজেপিকে অক্সিজেন দিতে ২০২৩ বিধানসভা নির্বাচন মাথায় রেখে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের এই সিদ্ধান্ত।

ওডি/এফই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড