• বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হিজাবের পর এবার টুপি-কুর্তা বিতর্ক

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ মে ২০২২, ১৫:১৩
নয়ানগর পাবলিক স্কুল ও প্রিন্সিপাল বুশরা মুস্তাফা
নয়ানগর পাবলিক স্কুল ও প্রিন্সিপাল বুশরা মুস্তাফা। (ছবি : সংগৃহীত)

ভারতে হিজাব বিতর্কের রেশ কাটতে না কাটতেই শুরু হলো নতুন বিতর্ক। কর্নাটকের সেই ঘটনার পর এবার উত্তর প্রদেশের প্রয়াগরাজে নয়া বিতর্কের সূত্রপাত করলেন নয়ানগর পাবলিক স্কুলের প্রিন্সিপাল বুশরা মুস্তাফা। ইদে সকল শিক্ষার্থীদের ফেজ টুপি ও কুর্তা পরে ভিডিও করার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। এতেই তুমুল বিতর্কের শুরু।

স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, কারও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার উদ্দেশ্যে নির্দেশ দেওয়া হয়নি। এর আগে দিওয়ালি, দসেরা কিংবা স্বাধীনতা দিবসেও বিশেষ পোশাক পরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল শিক্ষার্থীদের। কিন্তু এতেও বিতর্ক থামার নাম নেই।

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের গোরক্ষা বিভাগের আঞ্চলিক প্রধান লালমণি তিওয়ারির অভিযোগের ভিত্তিতে সিবিএসই অনুমোদিত ন্যায়নগর পাবলিক স্কুলের প্রিন্সিপাল বুশরা মুস্তাফার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। একাধিক ধারায় মামলাও হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে লালমণি তিওয়ারি বলেন, প্রিন্সিপাল বুশরা মুস্তাফা একজন মুসলিম। নিজের পদের ফায়দা তুলে তিনি এ কাজ করেছেন সাম্প্রদায়িক মানসিকতা থেকে। ৩ মে ছিল অক্ষয় তৃতীয়া ও পরশুরাম জয়ন্তী। কিন্তু তা নিয়ে কোনো পরিকল্পনা ছিল না প্রিন্সিপালের। তিনি ছেলেদের ফেজ টুপি ও কুর্তা এবং মেয়েদের ওড়না-কুর্তা পরে সকলকে ইদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ভিডিও বানাতে বলেছেন।

প্রয়াগরাজের পুলিশ সুপার অজয় কুমার বলেন, আমরা প্রিন্সিপালের বয়ান রেকর্ড করেছি। বোঝার চেষ্টা করা হচ্ছে কারও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার উদ্দেশ্যে ওই নির্দেশ তিনি দিয়েছিলেন কি না।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা যাতে একে অপরের ধর্ম সম্পর্কে জানতে পারে সেই কারণেই সকলকে এই নির্দেশ দিয়েছিলেন ওই শিক্ষক। বুধবারই এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত শুরু করেছি আমরা।

ওডি/জেআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড