• সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

করোনার সংক্রমণ কমল ভারতে 

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১১ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:১৬
করোনার সংক্রমণ কমল ভারতে 
সড়কে চলাচলকারী মাস্ক পরিহিত লোকজন (ফাইল ছবি)

মহামারি করোনা ভাইরাসের তৃতীয় ঢেউয়ের বিধ্বস্ত দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারত। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে প্রাণঘাতী ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এক লাখ ৬৮ হাজারের বেশি মানুষ। যদিও রোগটিতে নতুন এই আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় অনেকটা কম।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) ভারতীয় মিডিয়া এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, গেল এক দিনে দেশটিতে করোনার থাবায় ২৭৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। একই সঙ্গে রোগটিতে সংক্রমিত হয়েছেন আরও এক লাখ ৬৮ হাজার ৬৩ জন। যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় ৬ দশমিক ৪ শতাংশ কম।

সোমবার (১০ জানুয়ারি) দেশটিতে করোনা আক্রান্তের হার ১৩ দশমিক ২৯ শতাংশ হলেও মঙ্গলবার তা কমে ১০ দশমিক ৬৪ শতাংশে দাঁড়ায়। এছাড়া সাপ্তাহিক করোনা শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৮৫ শতাংশে পৌঁছে গেছে। সোমবার দেশটিতে এক লাখ ৭৯ হাজার মানুষ কোভিড শনাক্ত হয়েছিলেন।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনে জানানো হয়, দেশটিতে বর্তমানে সক্রিয় কোভিড রোগী আছেন আট লাখ ২১ হাজার ৪৪৬ জন। যা মোট রোগীর প্রায় ২ দশমিক ২৯ শতাংশ। কিন্তু ঘনবসতিপূর্ণ দেশটিতে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ৫৮ লাখ ৭৫ হাজার ৭৯০ জন। আর মৃত্যুবরণ করেছেন চার লাখ ৮৪ হাজার ২১৩ জন।

দেশটিতে গত এক দিনে কমপক্ষে ৬৯ হাজার ৯৫৯ জন রোগী করোনা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। এর ফলে প্রাণঘাতী এই রোগ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা বর্তমানে তিন কোটি ৪৫ লাখ ৭০ হাজার ১৩১ জনে দাঁড়িয়েছে। ভারতে এখন ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে ওঠার হার ৯৬ দশমিক ৩৬ শতাংশে রয়েছে।

আরও পড়ুন : যুক্তরাষ্ট্রের ৫১ সামরিক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ইরানের নিষেধাজ্ঞা

দেশটির স্বাস্থ্য কর্মীদের মতে, করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত দেশ ভারতে এখন পর্যন্ত ১৫২ কোট ৮৯ লাখ ডোজ টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া সোমবার থেকে দেশটির জ্যেষ্ঠ ও ঝুঁকিপূর্ণ এবং সম্মুখসারির কর্মীদের ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজের প্রয়োগ শুরু হয়েছে।

কোভিড-১৯ মহামারিতে ভারতে অন্যতম ক্ষতির শিকার হয়েছে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্র। করোনায় বিপর্যস্ত এই রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩৩ হাজার ৪৭০ জন ভাইরাসটিতে শনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে করোনার অতি সংক্রামক ধরন ওমিক্রনেই আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ২৪৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন আটজন।

চলতি জানুয়ারি মাসের শেষ দিকে মহারাষ্ট্রে করোনা সংক্রমণ সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছাতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে।

আরও পড়ুন : সাইপ্রাসে শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাত

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের লাগাম টানার লড়াইয়ে এরই মধ্যে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশ ও কেন্দ্র নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে নতুন করে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। হোটেল, শপিং মলে মানুষের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপের পাশাপাশি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড