• রোববার, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ৯ মাঘ ১৪২৮  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হিজাবের নতুন নির্দেশনা দিয়ে কাবুলে তালেবানি ব্যানার

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১১ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:২২
হিজাবের নতুন নির্দেশনা দিয়ে কাবুলে তালেবানি ব্যানার
আফগান নারীদের হিজাব পরিধানের জন্য তালেবানের নতুন নির্দেশনা সম্বলিত ব্যানার (ছবি : খালিজ টাইমস)

আফগান নারীদের হিজাব ব্যবহারের আহ্বান জানিয়ে রাজধানী কাবুলে ব্যানার টাঙিয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র আফগানিস্তানের কট্টর ইসলামিক সংগঠন তালেবান। রবিবার (৯ জানুয়ারি) দেশটির সৎ কর্মে আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় রাজধানীজুড়ে দেয়াল ও গাছে এই ব্যানার ও প্ল্যাকার্ড টানিয়ে দেয়।

সোমবার (১০ জানুয়ারি) প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে আফগান বার্তা সংস্থা খ্যামা প্রেস জানিয়েছে, নারীদের বোরকা ও হিজাব পরিধানের জন্য রাজধানী শহরজুড়ে ব্যানার টাঙানোর পাশাপাশি সমগ্র আফগানিস্তানের গাড়ি চালকদের প্রতিও নতুন নির্দেশনা জারি করেছে তালেবান। নতুন এই নির্দেশনায় বলা হয়, হিজাব না পরলে কোনো নারীকে গাড়িতে আসন দেওয়া যাবে না।

আফগান বার্তা সংস্থা বলছে, রবিবার রাজধানী কাবুলে নারীদের হিজাব পরার আহ্বান সম্বলিত ব্যানার ও প্ল্যাকার্ডগুলো প্রথম দেখা যায়। নির্দেশনা সম্বলিত এই ব্যানারগুলোয় নারীদের বোরকা পরিহিত দুটি ছবিও দেওয়া হয়েছে। এর একটিতে কালো রংয়ের আবায়া পরিহিত ছবিতে চোখসহ পুরো মুখমণ্ডল ঢেকে রাখার দৃশ্য দেখানো হয়েছে। আর অপরটিতে পুরো শরীর বোরকায় ঢেকে রাখার দৃশ্য উঠে এসেছে।

ব্যানারে দেওয়া নোটিশে লেখা রয়েছে, শরীয়াহ আইন অনুযায়ী, একজন মুসলিম নারীকে অবশ্যই হিজাব পরতে হবে। কারণ এটিই শরীয়াহ আইনের নির্দেশ।

আফগানিস্তানের সৎ কর্মে আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা মনে করেন, ব্যানার ও পোস্টার টাঙানোর উদ্দেশ্য হচ্ছে হিজাব পরতে নারীদের উদ্বুদ্ধ করা। অবশ্য ব্যানারে হিজাবের বিষয়ে সুপারিশ করা হলেও সেটি পরতে নারীদের কেউ বাধ্য করতে পারবে না।

আরও পড়ুন : থুতনিতে বন্দুক ঠেকিয়ে সেলফি, খুলি উড়ে গেল নারীর

গত বছরের আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে রাষ্ট্রের ক্ষমতায় আসার পর থেকে নারীদের ওপর একের পর এক বিধিনিষেধ আরোপ করে যাচ্ছেন তালেবান নেতারা। গোষ্ঠীটির এসব নিষেধাজ্ঞায় নারীদের অধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে দাবি করা হয়ে থাকে।

কাবুলের নিয়ন্ত্রণ দখলের পরপরই তালেবানের মুখপাত্র সুহাইল শাহিন বলেছিলেন, তালেবান আমলে আফগানিস্তানে নারীদের জন্য বোরকা পরা বাধ্যতামূলক নয়। কিন্তু বাইরে বের হওয়ার সময় নারীদের হিজাব পরলেই চলবে।

যদিও এরপরে গত সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকে নারীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন এক তালেবান নেতা। সে সময় ভাইরাল হওয়া এক ভিডিয়োতে তিনি বলেছিলেন, হিজাব না পরা নারীদের ‘কাটা তরমুজের’ মতো দেখা যায়।

তার ভাষায়, আপনারা কি কেউ কাটা তরমুজ ক্রয় করেন? নাকি পুরো একটি তরমুজ কেনেন? অবশ্যই পুরোটাই কেনেন। হিজাব না পরা মেয়েরা হলো ‘কাটা তরমুজ’।

বিশ্লেষকদের মতে, ক্ষমতা দখলের পর তালেবান অবশ্য আফগান নারীদের পূর্ণ সম্মান দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিল। এমনকি নারীদের পড়াশোনা এবং কাজের সুযোগও দেওয়া হবে বলে জানিয়েছিল গোষ্ঠীটি। যদিও দিন যত এগোচ্ছে তালেবানকে ততই পুরনো রূপে ফিরতে দেখা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন : ৩ বছর পর সৌদি রাজকন্যার মুক্তি

উল্লেখ্য, আফগানিস্তানে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে তালেবানের প্রথম দফার শাসনামলে আফগান নারীদের জন্য বোরকা পরা বাধ্যতামূলক ছিল। ওই সময় দেশটির নারীদের চাকরি করা নিষিদ্ধ ছিল। এমনকি পুরুষ অভিভাবক ছাড়া নারীরা ভ্রমণে যেতে পারতেন না। ১২ বছরের বেশি বয়সী মেয়েদের পড়াশোনা করার অনুমতি ছিল না।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড