• শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাশিয়ানরা একবার ঘরে ঢুকলে তাড়ানো কঠিন : যুক্তরাষ্ট্র

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:৫১
কাজাখস্তানে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি
কাজাখস্তানে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি। (ছবি: সংগৃহীত)

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি, বিক্ষোভ-সহিংসতা, সরকারের পতন সবকিছু মিলিয়ে কাজাখস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক। এমন পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাশিয়ার সহায়তা চেয়েছে কাজাখস্তান। কিন্তু এ নিয়ে উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে কেন রাশিয়ার সামরিক সহায়তা চাওয়া হয়েছে সে বিষয়ে প্রশ্ন করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। খবর বিবিসির।

দেশটিতে গত কয়েকদিন ধরেই বিক্ষোভ-প্রতিবাদ চলছে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় সরকারের পতন চেয়ে বিক্ষোভ ডাকা হয়। এরপরই দেশটির প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রীসহ পুরো মন্ত্রিসভাকে বরখাস্ত করেন। সরকারের পতনের পরও পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। এর মধ্যেই দেশব্যাপী দুই সপ্তাহের জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

বিক্ষোভ-সহিংসতায় এখন পর্যন্ত অনেক মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলছেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে যে, কাজাখস্তান সরকার নিজেই পরিস্থিতি শান্ত করতে সক্ষম। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, কেন বিদেশি সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে সে বিষয়টি পরিষ্কার নয়।

রাশিয়া নেতৃত্বাধীন প্রায় আড়াই হাজার সেনা প্রথম ধাপে কাজাখস্তানে পৌঁছেছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ট টোকায়েভ গত বৃহস্পতিবার সকালে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে, ‘বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সন্ত্রাসীদের’ নেতৃত্বে চলা বিক্ষোভ থামাতে সিএসটিও-ভুক্ত (কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশন) দেশগুলোর কাছে সহায়তা চান। এরপরই প্রতিবেশী দেশে সৈন্য পাঠানোর পদক্ষেপ নেয় রাশিয়া। সাবেক সোভিয়েতভুক্ত দেশ রাশিয়া, আর্মেনিয়া, বেলারুশ, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান এবং তাজিকিস্তানের মধ্যকার একটি সামরিক চুক্তি হচ্ছে সিএসটিও।

গত বুধবার রাতেই সিএসটিও-র চেয়ারম্যান আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশেনিয়ান ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে কাজাখস্তানে ‘সীমিত সময়ের জন্য’ শান্তিরক্ষী বাহিনী পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এদিকে মস্কোর কর্মকর্তারা জোর দিয়ে বলেছেন যে, কাজাখস্তানে তাদের সামরিক বাহিনী মোতায়েন সাময়িক সময়ের জন্য।

এদিকে এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যান্টনি ব্লিনকেন সতর্ক করে বলেন, যদি রাশিয়ানদের আপনি আপনার ঘরে প্রবেশ করার অনুমতি দেন তবে তাদের তাড়ানো কঠিন বিষয়।

তিনি বলেন, আমার কাছে মনে হয় কাজাখ কর্তৃপক্ষ এবং সরকার বিক্ষোভ মোকাবিলায় সক্ষম। তারপরেও তাদের কেন বাইরের সহায়তা প্রয়োজন সেটা পরিষ্কার নয়। সে কারণে আমরা এ বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি।

ওডি/জেআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড