• রোববার, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ৯ মাঘ ১৪২৮  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সীমান্তে চীনের নয়া ব্রিজের খবর মেনে নিল অসহায় ভারত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ জানুয়ারি ২০২২, ১১:৫১
pangong bridge

দিনকয়েক আগে থেকেই সংবাদমাধ্যমে খবর লাদাখ সীমান্তে দ্রুত সেনা পাঠানোর লক্ষ্যে প্যাংগং লেকের উপরে সেতু তৈরি করছে চীন। যা নিয়ে এতদিন পর্যন্ত ভারত সরকার চুপ থাকলেও বৃহস্পতিবার তা স্বীকার করে নিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী বলেন, “প্যাংগং লেকে চীনের পক্ষ থেকে একটি সেতু তৈরির খবর সামনে এসেছে। এ বিষয়ে তীক্ষ্ণ নজর রয়েছে কেন্দ্রের। প্রায় ৬০ বছর ধরে অবৈধভাবে দখল করে রাখা এলাকায় চীন এই সেতুটি বেআইনিভাবে নির্মাণ করছে। সকলেই জানে, চীন দখল করে থাকলেও এই এলাকাটি তাদের বলে ভারত কখনও মেনে নেয়নি। যাতে দেশের নিরাপত্তার স্বার্থ কোনওভাবেই ক্ষুণ্ণ না হয়, তা নিশ্চিত করতে সরকার সমস্ত রকম ব্যবস্থা নিচ্ছে।”

বাগচী আরও বলেছেন, সেই প্রচেষ্টার অংশ হিসাবে কেন্দ্র বিগত সাত বছরে সীমান্ত পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য উল্লেখযোগ্যভাবে বরাদ্দ বৃদ্ধি করেছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি সেতু ও রাস্তা তৈরি করেছে। যা স্থানীয় জনগণের যোগাযোগ রক্ষার ক্ষেত্রে কাজে লাগার পাশাপাশিই সশস্ত্র বাহিনীকে লজিস্টিক সাপোর্ট দেওয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক হয়েছে। সরকার এ বিষয়ে নিজেদের লক্ষ্যে অবিচল রয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, চীনের সেতু তৈরির কথা স্বীকার করে নিলেও প্যাংগং লেকের উপরে ভারতের যে নিয়ন্ত্রণ রয়েছে, সেই সাফাই দেওয়ার চেষ্টা করেছেন অরিন্দম বাগচী।

১৯৬২ সালে ভারত-চীন যুদ্ধের সময় প্যাংগং হ্রদের বড় অংশ-সহ লাদাখের আকসাই চীনের বিস্তীর্ণ এলাকার দখল নিয়েছিল ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি। সেখানে প্যাংগং হ্রদের উত্তর এবং দক্ষিণ অংশের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষার জন্য সেতুর পাশাপাশিই একটি সংযোগরক্ষাকারী রাস্তাও তৈরি করছে চীন। এর ফলে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিস্তীর্ণ অংশে দ্রুত সেনা, অস্ত্র এবং রসদ পাঠাতে পারবে তারা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড