• রোববার, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ৯ মাঘ ১৪২৮  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে রুশ সহায়তা চায় কাজাখস্তান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৬ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৫০
বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে রুশ সহায়তা চায় কাজাখস্তান
কাজাখস্তানের সড়কে বিক্ষোভরত জনতা (ছবি : সিজিটিএন)

জ্বালানি পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জনগণের তীব্র বিক্ষোভ ও আন্দোলনের মুখে বিপর্যস্ত মধ্য এশিয়ার দেশ কাজাখস্তানকে স্থিতিশীল করতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করবে রাশিয়া। তেল সমৃদ্ধ দেশটিতে বিক্ষোভ বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ এরই মধ্যে কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশনের (সিএসটিও) কাছে সহায়তা চেয়েছেন।

ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি নিউজের খবরে বলা হয়, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু হলেও অন্য রাজনৈতিক উদ্বেগ থেকে তা আরও ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ অবশ্য দাবি করেছেন, এই বিক্ষোভ মূলত বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ‘সন্ত্রাসী চক্রের’ একটি কাজ।

জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুরু হওয়া বিক্ষোভ সহিংস হয়ে ওঠার পর দেশজুড়ে দুই সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট। এরই মধ্যে দেশটির বেশ কয়েকটি এলাকায় বড় বিক্ষোভ হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) ভোরে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ বলেছেন, আমি সিএসটিওয়ের কাছে সহায়তা চেয়েছি। রাশিয়া এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত পাঁচটি দেশ নিয়ে সামরিক জোটটি গঠিত।

আরও পড়ুন : ভবিষ্যতের সমরাস্ত্র-যুদ্ধের কৌশল কেমন হবে?

পরবর্তীকালে সিএসটিওয়ের চেয়ারম্যান আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান ফেসবুক পোস্টে নিশ্চিত করেছেন, তারা কাজাখস্তানে শান্তিরক্ষী বাহিনী পাঠাবে। যদিও তা হবে নির্ধারিত একটি সময়ের জন্য।

এ দিকে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতির মাধ্যমে বলেছে, তারা কাজাখস্তানের পরিস্থিতির ওপর নিবিড় নজর রাখছে। মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বিক্ষোভকারী এবং কর্তৃপক্ষ উভয় পক্ষকেই ধৈর্য্য ধারণের আহ্বান জানিয়েছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, বিক্ষোভকারীরা সরকার ও সামরিক ভবনগুলোতে আক্রমণের ডাক দেয়। প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ বলেছেন, এই ধরনের প্রতিবাদ সম্পূর্ণ অন্যায়। সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসা উচিৎ বিক্ষোভকারীদের। এছাড়া এই সহিংসতার পেছনে অভ্যন্তরীণ এবং বিদেশি প্ররোচকদের হাত রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আরও পড়ুন : ব্রিটেন ভ্রমণে বিধিনিষেধ শিথিলের ঘোষণা ফ্রান্সের

উল্লেখ্য, কাজাখস্তানে অনেকেই এলপিজিতে গাড়ি চালান। সরকার এতদিন দাম নিয়ন্ত্রণ করে রাখায় গ্যাসোলিনের চেয়ে এলপিজিতে গাড়ি চালানো সস্তা ছিল। সরকার সেই এলপিজির দাম বাড়ানোয় প্রবল আন্দোলন শুরু হয়। মূলত এসবের জেরে কাজাখ সরকারের পতন হলো।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড