• বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে কাজাখস্তানে বিক্ষোভ, সরকারের পতন

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৫ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৫০
জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে কাজাখস্তানে বিক্ষোভ, সরকারের পতন
কাজাখস্তানের সড়কে বিক্ষোভরত জনতা (ছবি : আল-জাজিরা)

জ্বালানি পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সাধারণ জনগণের তীব্র বিক্ষোভ ও আন্দোলনের মুখে অবশেষে পদত্যাগ করেছে মধ্য এশিয়ার তেল সমৃদ্ধ দেশ খ্যাত রাষ্ট্র কাজাখস্তানের সরকার। বুধবার (৫ জানুয়ারি) কাজাখ সরকারের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ। কাজাখ প্রেসিডেন্টের দফতরের বরাতে করা প্রতিবেদনে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সংবাদে বলা হয়, আগে জ্বালানি পণ্য এলপিজির দাম বেঁধে দিয়েছিল সরকার। যদিও মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) এলপিজির ওপর থেকে সেই প্রাইস ক্যাপ তুলে নেওয়া হয়। ফলে অনেকটাই বেড়ে যায় এলপিজির দাম। ফলে মঙ্গলবার থেকেই প্রতিবাদ শুরু হয়। এক পর্যায়ে সেই প্রতিবাদ সহিংস আন্দোলনে রূপ নেয়।

এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজাখস্তানের সরকার প্রথমে দেশে জরুরি অবস্থা জারি করে। এমনকি বড় শহরগুলোতে লকডাউনও ছিল। যদিও এতো কিছুর পরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। শেষ পর্যন্ত পুরো সরকার নিয়ে পদত্যাগ করেন কাজাখ প্রধানমন্ত্রী। বুধবার প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন। তিনি স্মাইলভকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নিয়োগ দিয়েছেন।

জার্মান মিডিয়া ডয়েচে ভেলে জানিয়েছে, মঙ্গলবার কাজাখস্তানের অয়েল হাব বলে পরিচিত মেঙ্গিস্টা শহরে প্রতিবাদ শুরু হয়। দ্রুত এই বিক্ষোভ অন্য শহরগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। রাতেও বিক্ষোভকারীরা শহরের রাস্তায় ছিলেন। দেশের অন্যতম বৃহৎ শহর আলমাটিতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও স্টান গ্রেনেড ছুঁড়েও আন্দোলন সামাল দিতে পারেনি।

বিশ্লেষকদের মতে, বিক্ষোভকারীরা সরকার ও সামরিক ভবনগুলোতে আক্রমণের ডাক দেয়। প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট তোকায়েভ বলেছেন, এই ধরনের প্রতিবাদ সম্পূর্ণ অন্যায়। সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসা উচিৎ বিক্ষোভকারীদের। এছাড়া এই সহিংসতার পেছনে অভ্যন্তরীণ এবং বিদেশি প্ররোচকদের হাত রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আরও পড়ুন : ইউক্রেন ইস্যুতে নিষেধাজ্ঞার পথে বাইডেন, পাল্টা হুঁশিয়ারি পুতিনের

উল্লেখ্য, কাজাখস্তানে অনেকেই এলপিজিতে গাড়ি চালান। সরকার এতদিন দাম নিয়ন্ত্রণ করে রাখায় গ্যাসোলিনের চেয়ে এলপিজিতে গাড়ি চালানো সস্তা ছিল। সরকার সেই এলপিজির দাম বাড়ানোয় প্রবল আন্দোলন শুরু হয়। মূলত এসবের জেরে কাজাখ সরকারের পতন হলো।

সূত্র : ডয়েচে ভেলে, রয়টার্স

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড