• শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কোভিশিল্ডের উৎপাদন অর্ধেকে নামাচ্ছে সেরাম

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:৩৮
কোভিশিল্ডের উৎপাদন অর্ধেকে নামাচ্ছে সেরাম
সেরাম ইন্সটিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়ালা (ছবি : দ্য হিন্দু)

বিশ্বের বৃহত্তম ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট নিজেদের কোভিশিল্ডের টিকার উৎপাদন অর্ধেকে নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আদর পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, কোভিশিল্ড টিকার নতুন কোনো অর্ডার পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে উৎপাদন অন্তত ৫০ শতাংশ কমিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি নিউজের প্রতিবেদনে জানানো হয়, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার স্থানীয় সংস্করণ কোভিশিল্ড নামে এতদিন উৎপাদন করছে সেরাম। কোম্পানিটির সিইও আদর পুনাওয়ালা সিএনবিসি এবং টিভি-১৮কে জানান, আমাদের কাছে এখনো ৫০ কোটি ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন মজুদ রয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারতে প্রয়োগ করা ১৩০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিনের মধ্যে ৯০ শতাংশই কোভিশিল্ড। গত জানুয়ারি মাস থেকে উপযুক্ত প্রাপ্ত বয়স্কদের অর্ধেককে পূর্ণাঙ্গ টিকা দিয়েছে ক্ষমতাসীন মোদী সরকার।

পুনাওয়ালা দাবি করেন, আমি এমন একটি উভয়সংকটের মধ্যে রয়েছি যা কখনো কল্পনাও করিনি। এক মাসে আমি ২৫ কোটি ডোজ কোভিশিল্ড উৎপাদন করছি। সুসংবাদ হলো ভারতের জনসংখ্যার বিশাল অংশ এরই মধ্যে টিকার আওতায় চলে এসেছে। এমনকি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সব অর্ডার আমরা সফলতার সঙ্গে সরবরাহ করতে পেরেছি।

সেরামের সিইও বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের কাছে নতুন আর কোনো অর্ডার নেই। তাই আমি প্রতি মাসের উৎপাদন অন্তত ৫০ শতাংশ কমিয়ে দিচ্ছি। ভারত এবং বিশ্ব থেকে নতুন অর্ডার আসার আগ পর্যন্ত এমনভাবেই চলবে।

আরও পড়ুন : ওমিক্রন মোকাবিলায় করোনা টিকা কার্যকর

ভারতে এখন পর্যন্ত ৮৫ শতাংশ লোককে করোনার প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এখনো কয়েক লাখ মানুষ ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় নেওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন।

বিশ্বব্যাপী টিকা বিতরণের আন্তর্জাতিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের সবচেয়ে বড় সরবরাহকারী এখন সেরাম। চলতি বছরের এপ্রিল মাসে ভারত টিকা রফতানি বন্ধ ঘোষণা করে। এরপর অক্টোবর মাস থেকে পুনরায় তা রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়।

পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, কোভ্যাক্স থেকে এখন অর্ডার আসতে শুরু করেছে। যদিও তাদের প্রক্রিয়া খুবই মন্থর। যেসব দেশের আরও টিকা প্রয়োজন তাদের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। অনেকেই বলছেন- লজিস্টিকস ও মজুদের স্থাপনার উন্নতি ছাড়া তারা ভারত থেকে ভ্যাকসিন নিতে পারছে না।

আরও পড়ুন : জাপানে শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাত

পুনাওয়ালা মনে করেন, ভারত যেমনটি পেরেছে বিশ্বের অন্য দেশগুলো দিনে ৭০ বা ৮০ লাখ মানুষকে টিকা দিতে পারবে না। কেননা তাদের এমন অবকাঠামো নেই। আশা করি- আগামী বছর এসব দেশগুলো ৬০-৭০ শতাংশ দুই ডোজ টিকা প্রয়োগের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করবে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড