• বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ৩ ভাদ্র ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আফগান নারী শিক্ষায় মার্কিন সমর্থন চান মালালা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৫৮
আফগান নারী শিক্ষায় মার্কিন সমর্থন চান মালালা
শান্তিতে নোবেল জয়ী মানবাধিকার কর্মী মালালা ইউসুফজাই (ছবি : এবিসি নিউজ)

যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র আফগানিস্তানে নারী শিক্ষাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে সহযোগিতার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন চাইলেন শান্তিতে নোবেল জয়ী মানবাধিকার কর্মী মালালা ইউসুফজাই। সোমবার (৬ ডিসেম্বর) ওয়াশিংটন সফরকালে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি এই আহ্বান জানান।

ভারতীয় মিডিয়া এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়, আফগানিস্তান হচ্ছে বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্র যেখানে নারীরা বর্তমানে মাধ্যমিক শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে না। কারণ নারী শিক্ষার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দেশটির কট্টর ইসলামিক সংগঠন তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকার। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনঙ্কেনের পাশে দাঁড়িয়ে এমনই মন্তব্য করেছেন আফগান নারীকর্মীদের সঙ্গে কাজ করা মালালা।

১৫ বছর বয়সী সোতোদা নামে এক আফগান কিশোরীর চিঠি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে উদ্দেশ্য করে উপস্থাপন করার সময় মালালা বলেন, আমরা এমন একটি বিশ্ব দেখতে চাই; যেখানে সব নারীরা নিরাপদ ও মানসম্পন্ন শিক্ষায় প্রবেশাধিকার পাবে। এটা আফগান নারীদের বার্তা বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

সোতোদার চিঠিতে লিখেছেন, যত বেশিদিন স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নারীদের জন্য বন্ধ থাকবে। এটি তাদের ভবিষ্যতের জন্য আরও বেশি অন্ধকারময় হবে। শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য নারী শিক্ষা অনেক শক্তিশালী ভূমিকা পালন করে। নরীদের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত করা হলে আফগানিস্তান আরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তার এ চিঠিটি পড়ে শোনান মালালা।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পাকিস্তানের এই মানবাধিকারকর্মী সত্যিকারের পার্থক্য সৃষ্টি করেছেন। বিশেষ করে শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে। ছেলে ও মেয়ে শিক্ষার্থীদের সমান ভাবে শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিতে আমরা তার পরামর্শ চাই।

আরও পড়ুন : সিরিয়ার সমুদ্রবন্দরে বিমান হামলা চালাল ইসরায়েল

অ্যান্টনি ব্লিংকেন নিজের বক্তব্যে ‘আফগানিস্তান’ নামটি একবারের জন্যও ব্যবহার করেননি। কিন্তু সুযোগ পেয়েই আফগানিস্তান নামটি বলতে এক মুহূর্ত দেরি করেননি মালালা ইউসুফজাই। একই সঙ্গে তুলে আনেন সেখানকার নারী শিক্ষায় নিষেধাজ্ঞার বিষয়টিও।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে শান্তিতে নোবেলজয়ী এই নারী অধিকারকর্মী বলেন, আপনি (অ্যান্টনি ব্লিংকেন) বলছেন যে, ছেলে ও মেয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সমান সুযোগ নিশ্চিত করার বিষয়ে আলোচনা করতেই আমরা এখানে এসেছি। কিন্তু বিশ্বের একমাত্র দেশ হিসেবে এখন কেবল আফগানিস্তানেই মাধ্যমিক শিক্ষা লাভের অধিকার নেই আফগান মেয়েদের।

তালেবান নেতারা ক্ষমতা দখলের পর শুধু ছেলেদের স্কুল খুলে দেওয়া হয় এবং পুরুষদের শিক্ষকতা করার অনুমতি দেওয়া হয়।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগেই মালালা বলেছিলেন, আমরা আশা করছি- জাতিসংঘের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রও আফগান নারী শিক্ষায় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। যত দ্রুত সম্ভব নারীদের স্কুলে ফেরাতে হবে বলেও দাবি তার।

আরও পড়ুন : ইরাকে আইএসের হামলায় ৫ কুর্দি যোদ্ধা নিহত

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের প্রত্যন্ত সোয়াত উপত্যকায় জন্ম গ্রহণ করা মালালা ইউসুফজাই তালেবান বাহিনীর একের পর এক বাধার পরও নারীশিক্ষা বিস্তারে কাজ করে যাওয়ায় ২০১২ সালে তার ওপর আক্রমণ চালানো হয়। সে সময় তিনি গুলিবিদ্ধ হন। ২০১৪ সালে সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে তিনি শান্তিতে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন। মালালা সম্প্রতি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন, রাজনীতি ও অর্থনীতির ওপর স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড