• বুধবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চীনের তৈরি হাইড্রোজেল আসলে কী?

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৩৬
স্যামন মাছের শুক্রাণু ও হাইড্রোজেল তৈরি চায়ের কাপ
স্যামন মাছের শুক্রাণু ও হাইড্রোজেল তৈরি চায়ের কাপ। (ছবি: সংগৃহীত)

প্লাস্টিক দূষণ বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সমস্যাগুলোর একটি। কিন্তু প্লাস্টিকের তৈরি পণ্য ব্যবহার দিন দিন আরও বাড়ছে। দৈনন্দিন জীবনের অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে এসব পণ্য। একই সঙ্গে প্লাস্টিক পৃথিবীর পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুতর ঝুঁকি তৈরি করেছে। তাই প্লাস্টিকের বিকল্প পদার্থের খোঁজ চলছে দীর্ঘদিন ধরে। চীনের বিজ্ঞানীরা সম্ভবত একটি বিকল্প উপায় বেরও করে ফেলেছেন। তাও আবার স্যামন মাছের শুক্রাণু থেকে।

শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও চীনের তিয়ানজিন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা স্যামন মাছের শুক্রাণু এবং উদ্ভিজ্জ তেল ব্যবহার করেই প্লাস্টিকের বিকল্প একটি পদার্থ তৈরি করেছেন বলে দাবি করেছেন, যার নাম ‘হাইড্রোজেল’।

এ হাইড্রোজেল পুরোপুরি পরিবেশবান্ধব বলেও দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। স্যামন মাছের শুক্রাণুর দুটি ডিএনএ স্ট্র্যান্ডের সঙ্গে উদ্ভিজ্জ তেলের বিভিন্ন রাসায়নিক মিলিয়ে এ শক্তিশালী অথচ পরিবেশবান্ধব ম্যানুফ্যাকচারিং উপাদান তৈরি করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত এ যুগান্তকারী উপাদানটি দিয়ে একটি চায়ের কাপ, একটি খেলনা এবং ডিএনএ কাঠামোর মডেল তৈরি করা হয়েছে। চীনা গবেষকদের দাবি, চিরাচরিত প্লাস্টিকের তুলনায় হাইড্রোজেল তৈরির করতে ৯৭ শতাংশ কম কার্বন নির্গমন হবে।

আরও পড়ুন : গাড়ি নয়, রানওয়েতে বিমান ঠেলছেন যাত্রীরা

তবে এ পরিবেশবান্ধব প্লাস্টিকের বিকল্প উপাদানটির একটি সীমাবদ্ধতা আছে। গত কয়েক দশক ধরেই বিশ্বব্যাপী বিজ্ঞানীরা পুনর্ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক তৈরি করার চেষ্টা করছেন। প্লাস্টিককে ধ্বংস না করতে পারলেও পুনর্ব্যবহারের মাধ্যমে দূষণ কমানোর প্রচেষ্টা করা হয়েছে। কর্নস্টার্চ ও শৈবাল ব্যবহার করে বায়োডিগ্রেডেবল প্লাস্টিক তৈরিও করা হয়েছে।

ওডি/জেআই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড