• বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু সাড়ে ৫২ লাখ ছুঁইছুঁই

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ নভেম্বর ২০২১, ১০:২৯
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু সাড়ে ৫২ লাখ ছুঁইছুঁই
করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানো ব্যক্তির জানাজার নামাজ আদায় করা হচ্ছে (ফাইল ছবি)

চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। যদিও আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে প্রাণঘাতী ভাইরাসে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা। গেল ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে কোভিড শনাক্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন সাড়ে সাত হাজারের বেশি মানুষ। নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে রোগটিতে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা প্রায় ছয় লাখে পৌঁছেছে।

সবশেষ এক দিনে বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। এ দিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় এখনো শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। মৃত্যু তালিকায় এরপরই রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র, ইউক্রেন, পোল্যান্ড, তুরস্ক, জার্মানি এবং ফিলিপাইনের নাম। এতে বিশ্বব্যাপী রোগটিতে আক্রান্ত লোকজনের সংখ্যা ২৫ কোটি ৬৩ লাখের ঘর ছাড়িয়েছে। অপর দিকে প্রাণ হারানোদের সংখ্যাও এরই মধ্যে ৫১ লাখ ৪৬ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মৃত্যু, আক্রান্ত ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডো মিটারস থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে কোভিড সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন সাত হাজার ৫৭০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা দুই শতাধিক কমেছে। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৫১ লাখ ৪৬ হাজার ১৬৬ জনে পৌঁছেছে।

নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন পাঁচ লাখ ৯৬ হাজার ৭১৫ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ২০ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত রোগটিতে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে ২৫ কোটি ৬৩ লাখ চার হাজার ৬৮৯ জনে দাঁড়িয়েছে।

আরও পড়ুন : ইসরায়েলে ব্যাপক সাইবার আক্রমণ চালিয়েছে ‘মুসার লাঠি’

এ দিকে শেষ এক দিনে বিশ্বে করোনার থাবায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ দেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। একই সময়ে দেশটিতে নতুন করে কোভিড শনাক্ত হয়েছেন ৯৮ হাজার ১০৪ জন। আর মৃত্যুবরণ করেছেন এক হাজার ১২১ জন। করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে এ পর্যন্ত চার কোটি ৮৩ লাখ ৯৭ হাজার ৪১৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে সাত লাখ ৮৯ হাজার ১২৯ জনের।

অন্য দিকে দৈনিক মৃত্যুর তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশ রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন এক হাজার ২৫১ জন। আর নতুন করে রোগটিতে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৭ হাজার ৩৭৪ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৯২ লাখ ১৯ হাজার ৯১২ জনে দাঁড়িয়েছে। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৬০ হাজার ৩৩৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইউরোপের দেশ জার্মানিতে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ হাজার ১৬৪ জন। আর মারা গেছেন ২৬১ জন। এছাড়া একই সময়ের মধ্যে ব্রিটেনে নতুন করে কোভিড সংক্রমিত হয়েছেন ৪৬ হাজার ৮০৭ জন। এই সময়ের মধ্যে মারা গেছেন ১৯৯ জন।

আরও পড়ুন : ইসরায়েলের সঙ্গে প্রথমবারের মতো নৌ মহড়ায় বাহরাইন-আমিরাত

করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৭৯ জন। আর নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১২ হাজার ৩০১ জন। অপর দিকে মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দুই কোটি ১৯ লাখ ৮৯ হাজার ৯৬২ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ১২ হাজার ১৭৭ জনের।

এ দিকে মহামারি করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারত। যদিও প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানোদের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান এখন তৃতীয়। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে তিন কোটি ৪৪ লাখ ৮৫ হাজার ৫১৭ জনে দাঁড়িয়েছে। এই সময়ের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ৬৪ হাজার ৭১৫ জন।

এছাড়া কোভিড সংক্রমিত হয়ে শেষ এক দিনে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানে ১০৩ জন, ইউরোপের মুসলিম রাষ্ট্র তুরস্কে ২২৬ জন, ইউক্রেনে ৭৫২ জন, পোল্যান্ডে ৩৭০ জন এবং ফিলিপাইনে ৩০৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্য দিকে নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোতে করোনার থাবায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩৩২ জন। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৯১ হাজার ৫৭৩ জনের।

আরও পড়ুন : গাজায় সহায়তা দেবে মিশর-কাতার

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে এশিয়ার পরাশক্তি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ প্রাণঘাতী ভাইরাসটিকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি সংস্থাটি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড