• বুধবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অতিরিক্ত ওষুধ সেবনে যুক্তরাষ্ট্রে লক্ষাধিক মৃত্যু

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ নভেম্বর ২০২১, ১৫:৪৮
অতিরিক্ত ওষুধ সেবনে যুক্তরাষ্ট্রে লক্ষাধিক মৃত্যু
অতিরিক্ত ওষুধ সেবনের প্রস্তুতি চলছে (ফাইল ছবি)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মাত্র এক বছরে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে (ওভারডোজ) এক লাখের বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে। ২০২০ সালের এপ্রিল মাস থেকে চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত সেখানে এতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে, যা এর আগের বছরের তুলনায় অন্তত ২৮ দশমিক ৫ শতাংশ বেশি। এসব প্রাণহানির পেছনে ওপিঅয়েড বা আফিমজাতীয় ওষুধ সবচেয়ে বেশি দায়ী বলে জানানো হচ্ছে।

গত বুধবার (১৭ নভেম্বর) প্রকাশিত তথ্যে জানানো হয়, বছরটিতে ওভারডোজের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত এক লাখ ৩০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৭৫ হাজার ৬৭৩টি মৃত্যুর পেছনেই অতিরিক্ত ওষুধ সেবনের প্রভাব রয়েছে।

পরিসংখ্যান বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘আওয়ার ওয়ার্ল্ড ইন ডেটার’ হিসাবে, ওই একই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে মহামারি করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে পাঁচ লাখ আট হাজারের কাছাকাছি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

এভাবে ওভারডোজে মৃত্যুকে মহামারির সঙ্গে তুলনা করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দাবি করেন, আমরা যখন কোভিড-১৯ মহামারিকে হারাতে এগিয়ে যাচ্ছি। তখন এই প্রাণঘাতী ভাইরাসটির সংকটময় পরিস্থিতিকে উপেক্ষা করতে পারি না। এটি সারা দেশে পরিবার ও সম্প্রদায়গুলোকে স্পর্শ করেছে।

আরও পড়ুন : সাবমেরিন নিয়ে দক্ষিণ চীন সাগরে জাপান-যুক্তরাষ্ট্রের মহড়া

পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, মেথামফেটামিনের মতো সাইকোস্টিমুল্যান্টসের পাশাপাশি প্রাকৃতিক ও আধা-সিনথেটিক ওপিঅয়েডগুলোর (যেমন- ব্যথার ওষুধ এবং কোকেন) মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারে মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পেয়েছে।

মার্কিন মাদক নিয়ন্ত্রণ প্রশাসন সতর্ক করে বলছে, অনলাইনে সহজলভ্য কিছু ওষুধ দেখতে আসল অক্সিকন্টিন, ভিকোডিন, জ্যান্যাক্স বা অ্যাডেরালের মতো হলেও সেগুলোতে বিপজ্জনক মাত্রায় ফেন্টানাইল ও মেথামফেটামিন রয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রাণঘাতী ভাইরাসটির তাণ্ডবে দৈনন্দিন জীবনে ব্যাঘাত ঘটার বড় প্রভাব পড়েছে এ ধরনের ওষুধ গ্রহণকারীদের ওপর।

বিবৃতিতে বাইডেন বলেছেন, আমার প্রশাসন মাদকাসক্তি মোকাবিলা এবং মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনের মহামারি শেষ করতে সাধ্যের মধ্যে সব কিছু করবে।

আরও পড়ুন : অভিবাসন প্রত্যাশীদের নৌকায় দমবন্ধ হয়ে ১০ জনের মৃত্যু

জানা যায়, সবশেষ ২০১৯ সালে পাওয়া হিসাব অনুসারে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানির সবচেয়ে বড় কারণ ছিল হৃদরোগ। সেই বছর দেশটিতে হৃদযন্ত্রের অসুখে ছয় লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। দ্বিতীয় কারণ ক্যানসারে মারা যান প্রায় ছয় লাখ লোক। আর অনিচ্ছাকৃত আঘাতে মৃত্যু হয় এক লাখ ৭০ হাজার মানুষের।

সূত্র : এনডিটিভি, এএফপি

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড