• বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আর্মেনিয়ার পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে আজারি নাগরিক নিহত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৬ নভেম্বর ২০২১, ১১:৪১
আর্মেনিয়ার পুঁতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে আজারি নাগরিক নিহত
আর্মেনিয়ার পুঁতে রাখা মাইন নিষ্ক্রিয় করছেন আজারবাইজানের সেনা সদস্যরা (ছবি : ইউরো নিউজ)

বিতর্কিত নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে আগধাম এলাকার তাগিবেইলি গ্রামে আর্মেনিয়ার পুঁতে রাখা একটি মাইন বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে আজারবাইজানের এক নাগরিক নিহত হয়েছেন। সম্প্রতি অঞ্চলটিকে তুরস্কের সহায়তায় আর্মেনিয়ার জবরদখল থেকে উদ্ধার করে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) তুর্কি মিডিয়া দ্য ডেইলি সাবাহর প্রতিবেদনে বলা হয়, আজারবাইজানের প্রসিকিউটর জেনারেলের কার্যালয় থেকে সোমবার (১৫ নভেম্বর) বিবৃতির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। সেখানে দাবি করা হয়েছে, অবৈধভাবে আর্মেনিয়া যখন আগধাম এলাকাকে নিজেদের দখলে রেখেছিল, তখন সেখানে তারা মাইনগুলোকে পুঁতে রাখে। জমিতে কৃষিকাজ করার সময় ওই ব্যক্তির পা মাইনে পড়লে তা বিস্ফোরিত হয়।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের নভেম্বর মাসের পর থেকে অন্তত ৩৩ জন আজারি নাগরিক আর্মেনিয়ার পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে প্রাণ হারান। এর মধ্যে ২৬ জন বেসামরিক নাগরিক এবং বাকি সাতজন সেনাবাহিনীর সদস্য রয়েছেন। এছাড়া ভয়াবহ এ ঘটনায় ১৩৯ জন আহত হয়েছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, কমিউনিস্ট সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর নতুন দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়া সোভিয়েত বাহিনীর ফেলে যাওয়া অস্ত্র ব্যবহার করে যুদ্ধে জড়িয়ে যায়। যদিও এই যুদ্ধে বেশি সফল হয় আর্মেনিয়ানরা। ফলে ১৯৯৪ সালের শেষ নাগাদ নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলটিকে জোরপূর্বক নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় আর্মেনিয়া।

আরও পড়ুন : ইসরায়েলি কারাগারে ১২৪ দিন অনশনের পর মৃত্যুর মুখে ফিলিস্তিনি

উল্লেখ্য, এ দিকে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ফের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে লিপ্ত হয় আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। ভয়াবহ এ সংঘাতে আজারবাইজান আর্মেনিয়ার কাছ থেকে নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলটিকে উদ্ধার করে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড