• রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে আফগানিস্তান, আশঙ্কা পাকিস্তানের

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ নভেম্বর ২০২১, ১৭:০১
বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে আফগানিস্তান, আশঙ্কা পাকিস্তানের
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি (ছবি : দ্য ডন)

অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র আফগানিস্তান। আচমকা এমনই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র পাকিস্তান। আর তাই আসন্ন বিপর্যয় এড়াতে জরুরিভিত্তিতে আফগান ভূখণ্ডে তহবিল ও মানবিক সহায়তা প্রদানের আহ্বান জানিয়েছে ইসলামাবাদ। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি বিশ্ব নেতাদের প্রতি এই আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে করা প্রতিবেদনে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, আফগান ইস্যুতে এদিন পাকিস্তানের উদ্যোগে রাজধানী ইসলামাবাদে আয়োজিত এক বৈঠকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, এশিয়ার পরাশক্তি চীন, ক্ষমতাধর রাষ্ট্র রাশিয়া এবং কট্টর ইসলামিক সংগঠন তালেবান কূটনীতিকরা মিলিত হলে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোরেশি সতর্কবার্তাটি উচ্চারণ করেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, পাকিস্তানের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার ইসলামাবাদে ‘ট্রোইকা প্লাস’ নামে এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়। আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি বর্তমানে ইসলামাবাদে অবস্থান করলেও শেষ পর্যন্ত তিনি সেই বৈঠকে অংশগ্রহণ করেননি।

অবশ্য মার্কিন প্রশাসনের নিযুক্ত আফগানিস্তান বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের নতুন বিশেষ দূত টমাস ওয়েস্ট সেখানে উপস্থিত ছিলেন। প্রতিনিধিরা এরপর তালেবান নেতৃত্বাধীন আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।

ট্রোইকা প্লাস সভার উদ্বোধনী বক্তব্যে শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেছেন, আফগানিস্তান আজ অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে। তাই দেশটির জন্য জরুরিভিত্তিতে মানবিক সহায়তার ব্যবস্থা জোরদার করা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য অপরিহার্য।

আরও পড়ুন : ভৌতিক সৈন্যদের কারণেই আফগান সরকারের পতন

তিনি আরও বলেন, তহবিলের প্রবাহ পুনরায় শুরু করার মাধ্যমে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পুনরুজ্জীবিত করণের পাশাপাশি আফগান অর্থনীতিকে স্থিতিশীলতার দিকে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে।

পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মতে, যদি মনে করেন, আপনি ইউরোপের মতো দূর দেশে নিরাপদে থাকবেন এবং ওই অঞ্চলগুলো সন্ত্রাসবাদ দ্বারা প্রভাবিত হবে না। ইতিহাস ভুলে যাবেন না, আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়েছি এবং অতীতে করা ভুলগুলোর পুনরাবৃত্তি আমরা করতে চাই না।

বিশ্লেষকদের মতে, দীর্ঘ ২০ বছর পর গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়ে নেয় সশস্ত্র সংগঠন তালেবান। এরপর সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকে তালেবান নেতারা দেশে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভার ঘোষণা দেন। আফগান সব সম্প্রদায় ও গোত্রের প্রতিনিধিত্বমূলক প্রশাসনের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও প্রধান প্রধান মন্ত্রণালয়গুলোতে তালেবানের কট্টরপন্থি এবং অনুগতদেরই নিয়োগ দেওয়া হয়।

যদিও তালেবান নেতারা এককভাবে সরকার গঠন করলেও এখনো কোনো দেশই তাদের প্রকাশ্যে সমর্থন জানায়নি। এর জেরে বিশ্বের অধিকাংশ রাষ্ট্র ও এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দাতা সংস্থা আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তাসহ অর্থ সাহায্য পাঠানো স্থগিত করে দেয়। ফলে দেশটিতে অর্থনৈতিক সংকট প্রতিদিনই অবনতির দিকে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন : আফগান ইস্যুতে পাকিস্তানের ওপর ক্ষিপ্ত ভারত

জাতিসংঘ বারংবার সতর্ক করে বলেছে, বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ মানবিক সংকটের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে আফগানিস্তান। দেশটির অর্ধেকেরও বেশি মানুষ তীব্র খাদ্য ঘাটতির সম্মুখীন হয়েছে এবং প্রচণ্ড শীতের মধ্যে লাখ লাখ আফগান অনাহারের মধ্যে থাকতে বাধ্য হচ্ছে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড