• বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জার্মান চ্যান্সেলর হওয়ার লড়াইয়ে এগিয়ে শলৎস

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ অক্টোবর ২০২১, ১৫:০৫
জার্মান চ্যান্সেলর হওয়ার লড়াইয়ে এগিয়ে শলৎস
জার্মানির হবু চ্যান্সেলর শলৎস (ছবি : বিবিসি নিউজ)

জার্মানির সাধারণ নির্বাচনের দুই সপ্তাহের মধ্যেই জোট সরকার গঠনের লক্ষ্যে প্রথম আলোচনার সুযোগ পাচ্ছে এসপিডি দল। ফলে বিদায়ী চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের রাজনৈতিক শিবিরের ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা আরও হ্রাস পেল। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে তথ্যটি জানিয়েছে জার্মান মিডিয়া ডয়েচে ভেলে।

পূর্ব ইউরোপের দেশটির আগামী জোট সরকারের সম্ভাব্য তিন শরিক দলের মধ্যে বৃহস্পতিবারই প্রথম আলোচনা হতে যাচ্ছে। নির্বাচনে বিজয়ী এসপিডি দলের সঙ্গে প্রাথমিক সংলাপ চালাচ্ছে দুই ‘কিংমেকার' সবুজ দল ও উদারপন্থি এফডিপি।

পারস্পরিক মত পার্থক্য সত্ত্বেও অগ্রগতি হলে সেই আলোচনা প্রক্রিয়া আরও এগিয়ে নেওয়া হবে এবং আনুষ্ঠানিকভাবে জোট গঠনের লক্ষ্যে আলোচনা শুরু হবে। এফডিপি দলের নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার বলেছেন, দেশের অগ্রগতির লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে আলোচনা চালালে আপস সম্ভব হবে বলে আশা করছেন তিনি।

বুধবার (৬ অক্টোবর) এফডিপি ও সবুজ দল এসপিডির সঙ্গে সম্মিলিত আলোচনার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে। এসপিডি দলের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী ওলাফ শলৎস এই দুই দলের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক প্রাথমিক আলোচনাকে ‘গঠনমূলক’ হিসেবে বর্ণনা দিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তার মতে, ভোটাররা এই তিন দলকেই সরকার গঠনের দায়িত্ব দিয়েছে। যা এবার পালন করার সময় এসেছে।

এফডিপি ও সবুজ দল সবার আগে এসপিডি দলের সঙ্গে সম্মিলিত আলোচনার সিদ্ধান্ত নিলেও এখনো বিকল্প পথ খোলা রেখেছে। অর্থাৎ সিডিইউ ও সিএসইউ দলের ইউনিয়ন শিবিরের সঙ্গে জোট বাঁধার সম্ভাবনা এখনো পুরোপুরি উড়িয়ে দেয়নি তারা।

আরও পড়ুন : চীনা ঋণ নিয়ে যেভাবে বিপাকে পড়ছে বহু দেশ

অপর দিকে ইউনিয়ন শিবিরের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী আরমিন লাশেটও সেই পথ পুরোপুরি খোলা রেখেছেন। সবার আগে এসপিডি দলের সঙ্গে দুই ‘কিংমেকার’ দলের আলোচনার সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশ করে তিনি মন্তব্যটি করেছেন।

নির্বাচনে ইউনিয়ন শিবিরের ভরাডুবির পর ব্যাপক অরাজকতা ও বিভাজনের প্রেক্ষাপটে অবশ্য সরকারের নেতৃত্ব প্রদানের ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। বুধবার ‘কিংমেকার’ দলের সিদ্ধান্তের পর বাভেরিয়ার মুখ্যমন্ত্রী ও সিএসইউ দলের নেতা মার্কুস স্যোডার নিজের শিবিরের সম্ভাবনা কার্যত খারিজ করে দিয়েছেন।

তার মতে, ইউনিয়ন শিবির সম্ভবত এ যাত্রায় কোনো সরকারের অংশ হচ্ছে না। এমন বাস্তবতা মেনে নেওয়ার সময় এসে গেছে বলে স্যোডার মনে করেন।

জার্মানিতে ২০১৭ সালের সাধারণ নির্বাচনের পর সরকার গঠনের দীর্ঘ প্রক্রিয়া থেকে শিক্ষা নিয়ে কোনো দলই এবার আর বিলম্ব চাইছে না। এফডিপি দল গতবার জোট গঠনের লক্ষ্যে আলোচনা ত্যাগ করায় শেষ পর্যন্ত দুই প্রধান রাজনৈতিক শক্তির মহাজোট সরকার গঠিত হয়। এবার উদারপন্থিরা নিজেদের রাজনৈতিক ভবিষ্যতের স্বার্থে সরকারের অংশ হতে বদ্ধপরিকর।

আরও পড়ুন : অবশেষে কাবুলে ফিরলেন মোল্লা বারাদার

এছাড়া তৃতীয় শক্তিশালী রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে সবুজ দলও সরকারের শরিক হিসেবে নিজস্ব নীতি কার্যকর করে দেখাতে চায়। ফলে এসপিডি দলের সঙ্গে দুই ‘কিংমেকার’ দলের বিশাল কোনো মতপার্থক্য না দেখা দিলে ওলাফ শলৎসের নেতৃত্বে জার্মানির আগামী জোট সরকার গঠনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল।

সূত্র : ডয়েচে ভেলে

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড