• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তাইওয়ানের চুক্তি মেনে চলবে চীন, বাইডেনের নিশ্চয়তা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৬ অক্টোবর ২০২১, ১৫:২৭
তাইওয়ানের চুক্তি মেনে চলবে চীন, বাইডেনের নিশ্চয়তা
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন (ছবি : রয়টার্স)

তাইওয়ান প্রসঙ্গে এশিয়ার পরাশক্তি চীন ‘তাইওয়ান রিলেশন অ্যাক্ট’ চুক্তি মেনে চলবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে তার।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে উপস্থিত সাংবাদিকদের মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি তাইওয়ান প্রসঙ্গে শি জিনপিংয়ের সঙ্গে কথা বলেছি… এবং উভয়ই এ বিষয়ে সম্মত হয়েছি যে, আমরা তাইওয়ান চুক্তি মেনে চলব।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আলোচনা বন্ধুত্বপূর্ণ ছিল এবং আমার মনে হয় না শি এমন কিছু করবে যা তাইওয়ান চুক্তির পরিপন্থি।

চীন ও তাইওয়ানের বিষয়ে ওয়াশিংটন দীর্ঘদিন যাবত ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলছে। এই নীতির আওতায় বরাবর বেইজিংকে তাইপের (তাইওয়ানের রাজধানী) চেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

এ দিকে তাইওয়ান চুক্তি বা ‘তাইওয়ান রিলেশন অ্যাক্ট’ অনুযায়ী, কূটনৈতিক সম্পর্কগত দিক থেকে তাইপের পরিবর্তে বেইজিংকে প্রাধান্য দেবে ওয়াশিংটন। তার পরিবর্তে তাইওয়ানে অস্থিরতা সৃষ্টি থেকে বিরত থাকবে চীন এবং তাইওয়ানের ভবিষ্যৎ শান্তিপূর্ণভাবে নির্ধারিত হবে।

আরও পড়ুন : ভারতে আন্দোলনরত কৃষকদের গাড়ি চাপা দেওয়ার ভিডিয়ো ভাইরাল

বেইজিং ও তাইপের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই শি জিনপিংয়ের সঙ্গে তাইওয়ান নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা জানালেন বাইডেন বাইডেন। মিশিগান সফর থেকে ফিরেই হোয়াইট হাউসে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বললেন তিনি।

চীন বরাবরই তাইওয়ানকে তার নিজস্ব ভূখণ্ড মনে করে, এবং প্রয়োজনে বলপ্রয়োগের মাধ্যমে হলেও তাইওয়ানকে নিজেদের সীমানাভূক্ত করতে বদ্ধপরিকর দেশটির সরকার।

অপর দিকে তাইওয়ান নিজেকে দাবি করে একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে এবং নিজেদের স্বাধীনতা-গণতন্ত্র রক্ষায় অত্যন্ত সচেতন এই ভূখণ্ডের জনগণ বরাবরই চীনের বিরুদ্ধে দখলদারিত্ব ও অশান্তি সৃষ্টির অভিযোগ করে আসছে।

ইদানীং ফের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে বেইজিং ও তাইপের মধ্যে। তাইওয়ানের সরকারের অভিযোগ- সম্প্রতি তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনের বিমান বাহিনীর অন্তত ১৪৮ টি যুদ্ধবিমান অবৈধভাবে প্রবেশ করেছে।

আরও পড়ুন : থাইল্যান্ডের পর করোনা পিল কিনছে অস্ট্রেলিয়া

সবশেষ পাঠানো বিমানবহরে ৩৪টি জে-১৬ যুদ্ধবিমান ও পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম ১২টি এইচ-৬ বোমারু বিমান ছিল বলে অভিযোগে জানিয়েছে তাইওয়ান।

বিতর্কিত এই অভিযোগের জেরে গেল রবিবার যুক্তরাষ্ট্র চীনকে তাইওয়ানের কাছাকাছি বেইজিংয়ের সামরিক তৎপরতা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেন, তাইওয়ানের কাছে চীনের উসকানিমূলক সামরিক তৎপরতার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন। এতে পরিস্থিতি অস্থিতিশীল হচ্ছে। ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

গত ৯ সেপ্টেম্বর জো বাইডেন ও শি জিনপিং প্রায় দেড় ঘণ্টা ফোনালাপ করেন। সেই ফোনালাপের পর একটি বিবৃতি প্রকাশ করে হোয়াইট হাউস।

আরও পড়ুন : জলসীমায় ‘অনুপ্রবেশ’ : চীনা রাষ্ট্রদূতকে তলব করল মালয়েশিয়া

সেখানে বলা হয়, ফোনালাপে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে কৌশলগত বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। যেসব ক্ষেত্রে দুই দেশের অভিন্ন স্বার্থ রয়েছে, তার পাশাপাশি যেসব ক্ষেত্রে দুই দেশের স্বার্থ, মূল্যবোধ ও দৃষ্টিভঙ্গিতে ভিন্নতা রয়েছে, সেগুলো নিয়ে তাদের কথা হয়েছে।

সূত্র : রয়টার্স

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড