• মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশের গুলিতে শীর্ষ জঙ্গি নেতা নিহত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০৪
ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশের গুলিতে শীর্ষ জঙ্গি নেতা নিহত
শীর্ষ জঙ্গি নেতাদের পোস্টার হাতে ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ সদস্যরা (ছবি : রয়টার্স)

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ প্রাণ হারিয়েছে ইন্দোনেশিয়াভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইস্ট ইন্দোনেশিয়া মুজাহিদিনের (এমআইটি) শীর্ষ নেতা আলী কালোরা ও বাহিনীর অপর নেতা জাকা রমজান ওরফে ইকরিমা।

ইন্দোনেশীয় পুলিশের পক্ষ থেকে পাঠানো বিবৃতির বরাতে করা প্রতিবেদনে এরই মধ্যে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পুলিশ বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে দেশটির সুলাওয়েসি দ্বীপের একটি গ্রামে এমআইটির নেতা আলী কালোরা ও জাকা রমজানসহ ছয় জঙ্গির সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়। এতে আলী ও রমজান প্রাণ হারালেও বাকি চারজন পালিয়ে যায়।

বিবৃতিতে দাবি করা হয়, ওই গ্রামে এমআইটির আস্তানায় অভিযানটি পরিচালনা করেছে পুলিশ। অভিযানে সেই আস্তানা থেকে একটি এম ১৬ বন্দুক, দুটি চাপাতি, বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও আগ্নেয়াস্ত্র, জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়েছে। এরপর পলাতকদের গ্রেফতারে অভিযানও শুরু হয়।

প্রশাসনের দাবি, গত বছরের নভেম্বরে সুলাওয়েসির দ্বীপের চার গ্রামে যে নিষ্ঠুর গণহত্যা হয়েছিল, তার জন্য এমআইটিকে দায়ী করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা। যদিও সেই গণহত্যার দায় জঙ্গি গোষ্ঠীটি কখনো স্বীকার করেনি।

আরও পড়ুন : নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়েও আফগান নারীদের প্রবেশ বন্ধ

ইস্ট ইন্দোনেশিয়া মুজাহিদিনের (এমআইটি) সাবেক নেতা সানতোসো এক সময় বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম অধ্যুষিত দেশটিতে মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল। প্রথম ইন্দোনেশীয় জঙ্গি হিসেবে আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সদস্য হয়েছিল সে।

দেশটির সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিশেষজ্ঞদের মতে, আলী কালোরার মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় জঙ্গি তৎপরতা বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইউনিভার্সিটি অব ইন্দোনেশিয়ার সন্ত্রাসবাদ বিশেষজ্ঞ রিদওয়ান হাবিব এ সম্পর্কে রয়টার্সকে বলেন, আলী কালোরার মৃত্যুর পরপরই এমআইটি নতুন কোনো নেতা বেছে নেবে কি-না; সে সম্পর্কে আমি নিশ্চিত নই।

তারা জানিয়েছেন, কারণ, তারা বিশ্বাস করে জিহাদরত অবস্থায় মারা গেলে বেহেশতে যাওয়া যায়। সুতরাং তাদের বিশ্বাস অনুযায়ী, আলী কালোরা এবং জাকা রমজান বেহেশতে গিয়েছেন এবং তাদেরও এখন লক্ষ্য নেতাকে অনুসরণ করে জান্নাতে যাওয়া।

আরও পড়ুন : পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দরের পদত্যাগ

উল্লেখ্য, গত আগস্টে এমআইটির ৫৩ জন জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছিল ইন্দোনেশিয়া পুলিশ। বিবৃতির মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল- গ্রেফতার হওয়া এসব জঙ্গি ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতা দিবসে নাশকতার ছক তৈরি করেছিল।

সূত্র : রয়টার্স

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড