• রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাঞ্জশিরে তালেবানবিরোধী সংগ্রাম চলবে : এনআরএফ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:১৬
পাঞ্জশিরে তালেবানবিরোধী সংগ্রাম চলবে : এনআরএফ
এনআরএফএ নেতা মাইসাম (ছবি : আল-জাজিরা)

যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র আফগানিস্তানের পাঞ্জশির উপত্যকাকে পুরোপুরি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসার যে দাবি তালেবান যোদ্ধারা করছে, তাকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে ন্যাশনাল রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তান (এনআরএফএ)। বাহিনীটি জানিয়েছে, তাদের প্রতিরোধ সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।

ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি অনলাইনকে বাহিনীটির নেতা মাইসাম বলেছেন, পাঞ্জশির দখল করতে পেরেছে বলে যে সংবাদ তালেবান প্রচার করছে তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন। পাঞ্জশির পরাজিত হয়নি এবং আমি তালেবান বাহিনীর এই দাবিকে বাতিল করছি।

আফগান ভূখণ্ডের ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে ৩৩টির দখল এরই মধ্যে গ্রহণের পর গত ১৫ আগস্ট কাবুলে প্রবেশ করতে সক্ষম হয় তালেবান বাহিনী। একমাত্র যে প্রদেশটি তালেবান দখলের বাইরে ছিল- তার নাম পাঞ্জশির।

আফগানিস্তানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকার ক্ষুদ্র এই পার্বত্য প্রদেশটির দখল নিতে গত প্রায় এক সপ্তাহ আগে পাঞ্জশিরে সামরিক অভিযান শুরু করে তালেবান বাহিনী।

অভিযান শুরুর আগেই তালেবান বাহিনীকে বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়েছিল এনআরএফ, কয়েকবার তার উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত আর কোনো বৈঠক হয়নি।

আরও পড়ুন : চীনা যুদ্ধবিমানের বহরকে তাইওয়ানের ধাওয়া

পাঞ্জশিরে তালেবান-এনআরএফএ সংঘাত শুরুর পর উভয় পক্ষেই বিপুল সংখ্যক প্রাণহানি হয়েছে বলে জানিয়েছে আফগানিস্তানের স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়াগুলো।

শেষ পর্যন্ত অভিযানের প্রায় ৭ দিন অতিক্রান্ত হওয়ার পর সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) তালেবান মুখপাত্র ঘোষণা করেন, পাঞ্জশির এখন তালেবান বাহিনীর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে।

আফগানিস্তানের বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরই মধ্যে এ বিষয়ক বেশকিছু ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। সেই ছবিগুলোতে দেখা গেছে, তালেবান বাহিনী পাঞ্জশিরের প্রাদেশিক গভর্নরের কার্যালয়ের সামনের ফটকে দাঁড়িয়ে আছেন।

যদিও বিবিসি অনলাইনকে মাইসাম জানিয়েছেন, কৌশলগত কারণে এনআরএফ যোদ্ধারা বর্তমানে আত্মগোপনে রয়েছেন। তারা যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে এখনো দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

আরও পড়ুন : বিশ্ব জয়ের পথে তুরস্কের ‘অ্যাটাক ড্রোন’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে নিজেদের অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করা এক সংক্ষিপ্ত বিজ্ঞপ্তিতে এনআরএফের পক্ষ থেকে বলা হয়, যতদিন আফগানিস্তানে ন্যায়বিচার ও স্বাধীনতা ফিরে না আসবে, ততদিন আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।

বিশ্লেষকদের মতে, পাঞ্জশির বরাবরই তার স্বাধীনচেতা মনোভাবের জন্য বিখ্যাত। আশির দশকে আফগানিস্তানে যখন সোভিয়েত আগ্রাসন শুরু হয়, সে সময় যেমন পাঞ্জশিরকে দখলে আনা যায়নি। তেমনি ১৯৯৬ সালে যখন তালেবান প্রথম দফায় আফগানিস্তানে সরকার গঠন করল- তখনও অপরাজিত ছিল এই পাঞ্জশির উপত্যকা।

এর প্রধান কারণ হিসেবে ধরা হয়- প্রদেশটির সাবেক নেতা আহমদ শাহ মাসুদের কুশলী ও সাহসী নেতৃত্বকে। নিজ নেতৃত্বগুণের জন্য ‍যিনি ‘পাঞ্জশিরের সিংহ’ নামে পরিচিতি পেয়েছিলেন।

আরও পড়ুন : ভ্যাকসিন পাসপোর্ট বাধ্যতামূলক করছে যুক্তরাজ্য

উল্লেখ্য, ২০০১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর গুপ্তহত্যার শিকার হন আহমদ শাহ মাসুদ। এরপর তার ছেলে আহমাদ মাসুদ এনআরএফের নেতৃত্ব প্রদান করেন।

সূত্র : বিবিসি অনলাইন

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড