• বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পশ্চিমবঙ্গে বন্যার কবলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৩

পানির নিচে লাখো হেক্টর জমি 

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৫ আগস্ট ২০২১, ০৯:৩৭
পশ্চিমবঙ্গে বন্যার কবলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৩
নিরাপদ আশ্রয়ের দিকে ছুটছেন বন্যা কবলিতরা (ছবি : দ্য হিন্দু)

দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে চলতি মৌসুমে স্বাভাবিকের চেয়ে অতিরিক্ত মাত্রায় বৃষ্টিপাত হয়েছে। ফলে দেশটির প্রথম যে বহুমুখী নদী উপত্যকা প্রকল্প রয়েছে অর্থাৎ দামোদর ভ্যালি করপোরেশন (ডিভিসি) বিপুল পরিমাণ পানি ছাড়তে শুরু করেছে।

আর এতেই ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়েছে রাজ্যের একাধিক জেলা। অতিরিক্ত প্লাবনের ফলে বহু মানুষকে শুধু প্রাণই হারাতে হয়নি, তলিয়ে গেছে কয়েক লাখ হেক্টর কৃষিজমিও। এমনকি ঘরবাড়ি ছেড়ে ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিতে হয়েছে কয়েক হাজার মানুষকে।

রাজ্য সচিবালয় নবান্নের হিসেব অনুযায়ী, বুধবার (৪ আগস্ট) বিকাল পর্যন্ত অতিমাত্রায় বৃষ্টিপাত ও বন্যা পরিস্থিতির কারণে পশ্চিমবঙ্গে কমপক্ষে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রাণ হারানোদের মধ্যে দেওয়াল ভেঙে তার নীচে চাপা পড়ে মারা গেছেন ছয়জন। আর পানিতে তলিয়ে গিয়েছেন সাতজন। এছাড়া বজ্রপাতেও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। আর বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন দুইজন।

ইতোমধ্যে এক লাখ ১৩ হাজার ১৮১ জন মানুষকে বানভাসি এলাকা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আর ৩৬১টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে যেখানে আশ্রয় দেওয়া হয় ৪৩ হাজার ১৯২ জন মানুষকে।

আরও পড়ুন : মালয়েশিয়া থেকে ফিরলেন সাড়ে ১১ হাজার বাংলাদেশি

কংসাবতী, শিলাবতী ও দামোদরের পানি বেড়ে যাওয়ার ফলে হাওড়া-মেদিনীপুর এবং হুগলীর বিস্তীর্ণ অঞ্চল পানিতে ডুবে গেছে। ওদিকে গত ১ আগস্ট তেনুঘাট জলাধার থেকে এক লাখ কিউসেক পানি ছাড়া হয়। সেই পানি মঙ্গলবার রাতে পশ্চিমবঙ্গে এসে পৌঁছেছে। যার ফলে ১ লক্ষ ১৫ হাজার কিউসেক পানি রাজ্যের পাঞ্চেত, মাইথন ও দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকে ছাড়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, বুধবার মাইথন ও পাঞ্চেত এই দুইটি বাঁধ থেকে মোট ৪০ হাজার কিউসেক অতিরিক্ত পানি ছাড়া হয়েছিল।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড