• রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ইয়েমেনে নিহত ১৭

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৬ জুন ২০২১, ১৫:৫১
হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ইয়েমেনে নিহত ১৭
ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হচ্ছে (ছবি : খালিজ টাইমস)

মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধবিধ্বস্ত রাষ্ট্র ইয়েমেনের মারিব শহরে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ১৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। হামলায় নিহতদের মধ্যে পাঁচ বছর বয়সী একটি শিশুও রয়েছে। হামলার জন্য হুথি বিদ্রোহীদের দায়ী করেছে ইয়েমেনি সরকার। খবর আল-জাজিরার।

প্রাদেশিক গভর্নরের প্রেস সেক্রেটারি আলি আল-গুলিসি জানিয়েছেন, রাওধা এলাকায় একটি পেট্রোল স্টেশনে মিসাইলটি আঘাত হানে।

তথ্যমন্ত্রী মোয়াম্মার আল-এরিয়ানি বলেছেন, হামলায় আরও অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন। আহতদের সবাই বেসামরিক ব্যক্তি।

ভয়াবহ এ ঘটনায় জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নিন্দা দাবি করেছেন এরিয়ানি। এটিকে যুদ্ধাপরাধ বলে দাবি করেন তিনি। যদিও হুথি বিদ্রোহীদের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

আরও পড়ুন : রকেট হামলায় বিধ্বস্ত বাগদাদের মার্কিন কূটনৈতিক কেন্দ্র

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সাবা সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কিছুক্ষণ পরেই হুথিরা বিস্ফোরকবাহী ড্রোন দিয়ে আরেকটি হামলা চালায়। ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় হতাহতদের উদ্ধারে যাওয়ার সময় দুটি অ্যাম্বুলেন্স ওই ড্রোন হামলায় ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে।

ইয়েমেনে ২০১৪ সাল থেকে গৃহযুদ্ধ চলছে। সে সময় ইরান সমর্থিত হুথিরা ইয়েমেনের উত্তরাঞ্চলের অধিকাংশ অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে এবং রাজধানী সানা দখলে নিয়ে নেয়। ফলে দেশটির আন্তর্জাতিক স্বীকৃত প্রাপ্ত সরকার ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত হয়।

আরও পড়ুন : আফগানিস্তানে স্থলমাইন বিস্ফোরণে নিহত ১১

এর পরের বছর ইয়েমেন সরকারের সমর্থনে সৌদি আরবের নেতৃত্বে সামরিক জোট হুথিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে। এই যুদ্ধে ইয়েমেনে এক লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে তৈরি হয়েছে বিশ্বের অন্যতম গুরুতর মানবিক সংকট।

ওডি/কেএইচআর

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড