• শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মালয়েশিয়ায় ভিসা নবায়নে বিলম্ব : বিপাকে বিদেশি কর্মীরা

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া:

০৬ জুন ২০২১, ১১:৩৩
মালয়েশিয়ায় ভিসা নবায়নে বিলম্ব : বিপাকে বিদেশি কর্মীরা
বিদেশি শ্রমিক (ছবি : সংগৃহীত)

মালয়েশিয়ায় বৈধভাবে বসবাসরত অভিবাসী কর্মীদের বার্ষিক ভিসা নবায়ন বা লেভী প্রদান কার্যক্রম আগামী ২০২২ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত করেছে সেখানকার সরকার। এতে দেশটিতে বিভিন্ন সেক্টরে কর্মরত কয়েক লাখ বিদেশি কর্মী অবৈধ হয়ে পড়বে বলে বলছেন অভিবাসন খাতের বিশ্লেষকরা।

শনিবার (৫ জুন) মানব সম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান বিবৃতির মাধ্যমে বলেছেন, বিদেশি কর্মীদের ভিসার নবায়নে, লেভী বা নতুন শুল্ক পরিশোধ ব্যবস্থাটি আগামী বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন বিদেশি কর্মীদের কর্মসংস্থান শিল্পের বিভিন্ন খাতে সঠিক চাহিদার ভিত্তিতে পরবর্তীকালে তাদের নিয়োগ করা হবে।

মানবসম্পদ মন্ত্রী বলেছেন গত বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত লেভি (শুল্ক) সিস্টেমটি স্থগিত করা হয়েছিল। দীর্ঘ সময় ধরে চলা করোনা মহামারির কারণে দেশটিতে স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক খাতে নেতিবাচক প্রভাবের ফলে এটাকে প্রতিরোধ করার জন্য এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এছাড়া এই মাল্টি- টায়ার সিস্টেমের মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মীদের উপর নির্ভরতা কমিয়ে দেশীয় জনশক্তি ব্যবহারের পথ সুগম করতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও মন্ত্রী জানান। কারণ করোনার ছোবলে অর্থনৈতিক মন্দায় পড়ে দেশটির অসংখ্য নাগরিক তাদের কর্ম হারিয়ে বেকার হয়ে গেছেন। তাদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন : করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জন্য ডেল্টাই দায়ী

এরপর চাহিদার ভিত্তিতে বিদেশিদের পুনরায় নিয়োগ দেওয়া হবে। পাশাপাশি নিয়োগকর্তাদের বিদেশি কর্মী নিয়োগের কোঠা পদ্ধতি স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে। বিভিন্ন শ্রমশক্তির উৎস দেশ থেকে নতুন কর্মী নিয়োগের ব্যাপারে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে যে সমস্ত কর্মীরা রি-হায়ারিং এর মাধ্যমে বৈধ হয়েছেন তারা অভিযোগ করছেন ৫ বছরে পঞ্চমবার লেভী (শুল্ক) পরিশোধ করে ভিসা নবায়ন করা হলেও এখন দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ ৬ষ্ঠ বারের মতো লেভী জমা নিয়ে ভিসা নবায়ন না করে তাদের পাসপোর্ট ফিরিয়ে দিচ্ছে। অথচ এই প্রক্রিয়ায় একজন সুস্থ ও ফিট কর্মী ১০ বার অথবা ১০ বছর পর্যন্ত প্রতি বছর লেভী পরিশোধ করে কাজ করার নিয়ম ছিল।

আরও পড়ুন : স্পেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশের চিত্র প্রদর্শনী

২০১৬ সালে প্রায় ৬ লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী এই রি- হায়ারিং প্রক্রিয়ায় বৈধ হয়েছিলেন। তবে এই স্থগিতাদেশ কি রি- হায়ারিং প্রকল্প বা কোনো কোনো ক্যাটাগরির ভিসা হোল্ডারদের জন্য প্রযোজ্য হবে সে ব্যাপারে কিছুই বলা হয়নি। এছাড়া ভিসা নবায়ন বন্ধ হওয়ার পর লাখ লাখ শ্রমিক অবৈধ হয়ে পড়বে এবং তারা কি করবে সে বিষয়ে ও কিছুই বলা হয়নি।

ওডি/কেএইচআর

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড