• শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইসরায়েলের সরকারে যোগ দিচ্ছে ফিলিস্তিনি দল!

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৬ জুন ২০২১, ১০:৪৬
ইসরায়েলের সরকারে যোগ দিচ্ছে ফিলিস্তিনি দল!
ইউনাইটেড আরব লিস্টের (রাম) প্রধান মনসুর আব্বাস (ছবি : খালিজ টাইমস)

মধ্যপ্রাচ্যের ইহুদিবাদী দখলদার রাষ্ট্র ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু সরকারের বিরুদ্ধে জোট হওয়া আট দলে যুক্ত হয়েছে ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড আরব লিস্ট। এই নিয়ে বিশ্বজুড়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। কারণ এর আগে এমন কোনো জোট করার ঘটনা দেখেনি বিশ্ব।

এ দিকে জোটবদ্ধ হওয়ার পর থেকে ফিলিস্তিনি জনগণের জন্য নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছেন ইসলামি আন্দোলনের দক্ষিণ শাখার রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড আরব লিস্ট (রাম) প্রধান মনসুর আব্বাস।

তিনি বলেছেন, এই জোট নতুন সরকার গঠন করলে ফিলিস্তিনে সাধারণ মানুষের ঘর-বাড়িতে আর কোনো হামলা হবে না। দখল করা হবে না কোনো ভূমি।

এছাড়াও আব্বাসের দাবি, ইসরায়েলের বেদুইন শহরে তার দলের শক্ত অবস্থান রয়েছে। জনসমর্থনই তাকে এ পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। ইসরায়েলের রাজনীতিতে ভারসাম্য বজায় রাখার উদ্দেশ্যে তারা জোটে যোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মনসুর আব্বাস।

তবে ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও আইনজীবী ডায়না বাট আল জাজিরাকে বলেন, আব্বাসের এমন সিদ্ধান্ত ফিলিস্তিনিদের কোনো উপকারেই আসবে না। বরং ইসরায়েলের স্বার্থ হাসিলেই জন্য কাজ করে যাবেন আব্বাস। এছাড়াও জোটের অংশ হিসেবে আব্বাস এবং তার জোট ইসরায়েলের স্বার্থেই কাজ করবে।

আরও পড়ুন : আল-জাজিরার নারী সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করল ইসরায়েল (ভিডিয়ো)

ডায়না বাট আরও বলেন, আব্বাস ওই জোটের ক্ষুদ্র একটি অংশ মাত্র। তাই জোটের বাইরে গিয়ে আব্বাসের দ্বারা কিছুই করা সম্ভব হবে না। তাছাড়া জোটে অংশগ্রহণ একজন আরবের আদর্শের সম্পূর্ণ বিপরীত।

ইসরায়েলে আরবদের নিয়ে কাজ করা মোসাওয়া সেন্টারের পরিচালক জাফর ফারাহ মনে করেন, ইউনাইটেড আরব লিস্টের এমন জোটবদ্ধ হওয়ার বিষয়টি হাস্যকর এবং নির্বোধের মতো বিষয়। ওই জোটে আরবদের যোগ হওয়া ইহুদিবাদকে প্রোমোট করে।

প্রথমবারের মতো এবারই ইসরায়েল সরকারের অংশ হতে যাচ্ছে একটি ইসলামি দল। ইসরায়েলের মোট জনসংখ্যার ২১ শতাংশ আরব। এর আগে তাদের ভোটেই সংসদে গেছে ইউনাইটেড আরব লিস্ট নামের এই দলটি।

আরও পড়ুন : নতুন সরকার ইসরায়েলের জন্য বিপজ্জনক : নেতানিয়াহু

দলটির নেতা মনসুর আব্বাস বলেন, বিরোধীদের মধ্যে সরকার গঠনের যে চুক্তি হয়েছে তার আওতায় ইসরায়েলের আরব অধ্যুষিত শহরগুলোর অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং সেখানকার সহিংসতা কমানোর জন্য এক হাজার ৬০০ কোটি ডলার ব্যয় করা হবে।

যদিও পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকায় মনসুর আব্বাস ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন। তিনি শত্রুর পক্ষ নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ফিলিস্তিনিরা। অনেকে তাকে বিশ্বাসঘাতকও বলছেন।

জোটের চুক্তি অনুযায়ী ডানপন্থি দল ইয়ামিনা পার্টির প্রধান নাফতালি বেনেট শুরুতে প্রধানমন্ত্রী হবেন। তিনি ক্ষমতায় থাকবেন আগামী ২০২৩ সালের ২৭ আগস্ট পর্যন্ত। এরপর তিনি ইয়াইর লাপিদের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন।

আরও পড়ুন : দরিদ্র দেশগুলোকে করোনার ভ্যাকসিন দেবেন বাইডেন

পরে এক টুইট বিবৃতিতে লাপিদ বলেন, নতুন এই সরকার পক্ষে-বিপক্ষে সবার জন্য সমানভাবে কাজ করবে।

সূত্র : আল-জাজিরা

ওডি/কেএইচআর

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড