• শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গোয়েন্দা হত্যাকাণ্ডের প্রতিবেদন পড়েছে কারা জানতে চায় এফবিআই

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৫ জুন ২০২১, ১৩:৩৩
এফবিআই প্রধান ক্রিস্টোফার রে
এফবিআই প্রধান ক্রিস্টোফার রে। (ছবি: সংগৃহীত)

দুই গোয়েন্দার হত্যাকাণ্ড নিয়ে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন কারা কারা পড়েছে সেই তথ্য জানতে চেয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই।

‘মামলার তদন্তের অংশ’ হিসেবে সংবাদ প্রকাশকারী ইউএসএ টুডের তথ্য চেয়ে সংস্থাটি সমন জারি করেছে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়।

ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন- এফবিআইয়ের এমন দাবিকে ‘সংবাদপত্রের স্বাধীনতার স্পষ্ট লঙ্ঘন’ হিসেবে তুলে ধরে তা খারিজের জন্য আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে সংবাদপত্রটির মালিক গ্যানেট।

এফবিআইয়ের জারি করা সমনে ফেব্রুয়ারিতে ফ্লোরিডায় দুই এজেন্টকে গুলি করে হত্যার খবর প্রকাশের ৩৫ মিনিটের মধ্যে যারা যারা তাতে ক্লিক করেছিল তাদের আইপি অ্যাড্রেস ও ফোন নম্বার জানাতে বলা হয়েছে।

কম্পিউটারের অবস্থান ও মালিককে খুঁজে বের করতে আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করা হয়।

সমনটি বাতিলের আর্জিতে গ্যানেট বলেছে, এফবিআইয়ের এমন নির্দেশে সংবিধানের নিশ্চিত সংবাদপত্রের স্বাধীনতা লঙ্ঘন করা হয়েছে।

ইউএসএ টুডের প্রকাশক পেরেজ ওয়াডসওয়ার্থ বলেস, ‘এফবিআইয়ের সমনে পাঠকের ব্যক্তিগত তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে। আমাদের ওয়েবসাইটে কারা কি পড়ে তা সরকারকে জানাতে বাধ্য করা সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর লঙ্ঘন। যে ক্ষেত্রে সরকার সাংবাদিককে তলব করতে পারে বলে সেই ‘সীমিত ক্ষেত্র’ বিষয়ে বিচার বিভাগের যে নীতিমালা রয়েছে, এফবিআই তাও ভঙ্গ করেছে।’

গ্যানেটের আইনজীবীরা চেষ্টা করেও সমন জারির বিষয়ে এফবিআইয়ের কাছ থেকে কোন ব্যাখ্যা পায়নি বলে তিনি জানান।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের কর্মকর্তারা গোপনে ওয়াশিংটন পোস্ট সংবাদপত্রের সাংবাদিকদের ফোনকলের রেকর্ড সংগ্রহ করেছে- এমন খবর জানাজানি হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ এমনিতেই সমালোচনার মুখে রয়েছে।

গণমাধ্যম ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা রক্ষার কর্মীরা বলছেন, এটা সরকারের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে সাংবাদিকদের সুযোগ সীমিত করার একটি কৌশল। ২০১৩ সালে এফবিআই এপির সাংবাদিকদের দুই মাসের ফোন রেকর্ড সংগ্রহ করেছিল, যার জন্য ট্রাম্পের পূর্বসূরী বারাক ওবামাকে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে।

এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে এফবিআইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করছে বিবিসি।

ওডি/জেআই

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড