• মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭  |   ৩৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রকাশ্যে এলো জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার নতুন ভিডিয়ো

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০২ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৫৩
প্রকাশ্যে এলো জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার নতুন ভিডিয়ো
জর্জ ফ্লয়েডকে নির্মমভাবে হত্যা করছে পুলিশ (ছবি : সিএনএন)

গত বছরের মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের হাতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন নাগরিক জর্জ ফ্লয়েডকে অ্যাম্বুলেন্সে তোলার পর এক প্রত্যক্ষদর্শীর চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন অভিযুক্ত কর্মকর্তা ডেরেক চওভিন। ওই প্রত্যক্ষদর্শী তার কাছে ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু দিয়ে চেপে ধরার কারণ জানতে চান।

জবাবে নিজ টহল দলের গাড়িতে উঠতে উঠতে চওভিন জবাব দেন, আমাদের এই ব্যক্তিকে নিয়ন্ত্রণ করার দরকার ছিল, কারণ সে একজন আটক যোগ্য লোক। মনে হচ্ছিল সে কিছু একটা করছে।

বুধবার (৩১ মার্চ) আদালতে এই ঘটনার নতুন একটি ভিডিয়ো ক্লিপ দেখানো হয়েছে। এতে প্রথমবারের মতো এই ঘটনা নিয়ে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ পেয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) মার্কিন সম্প্রচার মাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত বছরের ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপলিসে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ পুলিশ হেফাজতে মারা যান। বিশ্বজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভের জন্ম দেওয়া এই ঘটনায় এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসারের বিচার সম্প্রতি শুরু হয়েছে। ডেরেক চাওভিন নামের ওই কর্মকর্তা হাঁটু দিয়ে জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড় চেপে ৯ মিনিট ধরে বসে আছেন, গত বছর এমন একটি ভিডিও যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বে তীব্র ক্ষোভের সূত্রপাত ঘটায়।

বুধবার আদালতে চওভিনের শরীরে থাকা ক্যামেরায় ধরা পড়া ফুটেজ আদালতে দেখানো হয়। এই ফুটেজের মাধ্যমে ঘটনা সম্পর্কে চওভিনের দৃষ্টিভঙ্গি উঠে আসে। এছাড়া একই দিন আদালতে সাক্ষ্য দেন ৬১ বছর বয়সী চার্লস ম্যাকমিলান নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী।

তিনি জানান, জর্জ ফ্লয়েডকে আটক করার ঘটনা তার সামনেই ঘটে। তিনি ফ্লয়েডকে পুলিশের কথা মেনে নিতে উৎসাহ দিয়ে বারবার বলতে থাকেন, তুমি (ওদের সঙ্গে) পারবে না।

ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু দিয়ে চওভিন চেপে ধরার পর ফ্লয়েড সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে থাকেন। ওই সময়ে ম্যাকমিলানকে পুলিশের উদ্দেশে বলতে শোনা যায়, ঘাড় থেকে পা সরাও।

ফ্লয়েডের অসাড় দেহ অ্যাম্বুলেন্সে তোলার পর ম্যাকমিলানের সঙ্গে চওভিনের সংক্ষিপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। কারণ হিসেবে ম্যাকমিলান বলেন, তিনি যা দেখেছিলেন তা সঠিক আচরণ ছিল না।

বুধবার আদালতে নতুন ভিডিয়ো ফুটেজ দেখানোর পর কান্নায় ভেঙে পড়েন চার্লস ম্যাকমিলান। তিনি বলেছেন, আমার অসহায় লাগছিল। আমার মা আর বেঁচে নেই। তার (ফ্লয়েডের) আকুতি আমি বুঝতে পারছিলাম।

আরও পড়ুন : মিয়ানমারে ‘গৃহযুদ্ধ’ প্রতিরোধে পদক্ষেপের আহ্বান জাতিসংঘের

অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চওভিন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছেন। তবে ওই ঘটনার পর থেকেই তাকে পুলিশ বিভাগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

ওডি/কেএইচআর

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড