• রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ার ডাক ইরানের

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৫ মার্চ ২০২১, ১২:৪৯
যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ার ডাক ইরানের
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ (ছবি : তেহরান টাইমস)

যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইন্ডি শেরম্যান ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আবারও আলোচনায় বসার যে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এবার তার জবাব দিয়েছে তেহরান।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা আরেকবার আলোচনার কোনো বিষয়বস্তু নয়।

শেরম্যান বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) এক বক্তব্যে দাবি করেছিলেন, ২০২১ সালে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি বদলে গেছে। কাজেই পরমাণু সমঝোতাকেও নতুন পরিস্থিতিতে ঢেলে সাজাতে হবে।

তার এ বক্তব্যের জবাবে জারিফ টুইট বার্তায় লিখেছেন, যদি ২০২১ সালের সঙ্গে ২০১৫ সালের (পরমাণু সমঝোতা স্বাক্ষরের বছর) মিল না থাকে তাহলে বর্তমান সময়ের সঙ্গে ১৯৪৫ সালেরও (জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ভেটো ক্ষমতাধর পাঁচ দেশের অনুমোদন) মিল নেই।

এরপর ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ১৯৪৫ সালের সঙ্গে ২০২১ সালের তুলনা করে লিখেছেন, সুতরাং আসুন আমরা জাতিসংঘ ঘোষণাকে পরিবর্তন করি এবং আমেরিকা এ পর্যন্ত ভেটো ক্ষমতার সর্বাধিক অপপ্রয়োগ করেছে বলে তার কাছ থেকে এই ক্ষমতা কেড়ে নিই।

আরও পড়ুন : আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নারী চিকিৎসকসহ নিহত ৮

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ইরান বিশ্বের ছয়টি পরাশক্তির সাথে তার পরমাণু কর্মসূচি সংক্রান্ত একটি দীর্ঘমেয়াদি চুক্তিতে আসতে সম্মত হয়। যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন এবং রাশিয়া, অর্থাৎ পি ফাইভ প্লাস ওয়ান নামে পরিচিত পরাশক্তিগুলি ছিল এই চুক্তির অংশীদার।

গুরুত্বপূর্ণ সেই চুক্তির পর ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ প্রক্রিয়া থেকে সরে আসে ইরান। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী ইরান সংবেদনশীল পরমাণু কর্মকাণ্ড সীমিত করতে রাজি হয় এবং দেশটির বিরুদ্ধে আনা অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেওয়ার শর্তে আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের পরমাণু কর্মকাণ্ড পরিদর্শনে অনুমতি দেয়।

মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা একবার সই হয়েছে এবং এটিকে আবার কার্যকর করতে হলে আমেরিকাকে নিঃশর্তভাবে এতে ফিরে আসতে হবে। আর সে জন্য ওয়াশিংটনকে তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে হবে।

ভেটো হচ্ছে একপক্ষীয়ভাবে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান, সংস্থা, দেশের মনোনীত প্রতিনিধি কর্তৃক যে কোনো সিদ্ধান্ত বা আইনের উপর স্থগিতাদেশ প্রদান করা।

আরও পড়ুন : মালয়েশিয়ায় মানব পাচারচক্রের বিরুদ্ধে চলছে শুদ্ধি অভিযান

বিশ্বের ৫টি দেশ তথা যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া এবং ফ্রান্স জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো দিতে পারে। জাতিসংঘ এর কোনো বিলে অথবা ভোটে এই পাঁচটি দেশের কোনো একটি দেশ ভেটো দিলে সে বিল অথবা প্রস্তাব বাতিল হয়ে যায়।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড