• বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নিহত চীনা সেনাদের অমর্যাদা করায় আটক ৬

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬:৩৩
নিহত চীনা সেনাদের অমর্যাদা করায় আটক ৬
ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত চীনের সেনা সদস্যরা (ছবি : দ্য হিন্দু)

২০২০ সালের জুন মাসে ভারতীয় বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত চীনা সেনাদের অমর্যাদার অভিযোগে অন্তত ছয়জনকে আটক করেছে বেইজিং কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে দেশটির রাষ্ট্রীয় মিডিয়ায় ওই পাঁচ সেনাকে শহীদ হিসেবে প্রচার করা হচ্ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় দেশজুড়ে ছয়জনকে ১৫ দিনের জন্য আটক করা হয়েছে। এছাড়া বর্তমানে বিদেশে বসবাসরত এক ব্যক্তির বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ আনা হয়েছে। দেশে ফিরলে তাকেও আটক করা হবে।

চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের শাসনামলে দেশটিতে জাতীয় বীরদের সমালোচনা কিংবা তাদের ব্যাপারে সরকারি ভাষ্যের ব্যাপারে কোনো প্রশ্ন তুললে ধরপাকড়ের শিকার হতে হয়। প্রশ্ন তোলা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ।

২০২০ সালের জুনে চীন ও ভারতের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৪৫ বছরের ইতিহাসে ভারত-চীন সীমান্তে প্রথমবারের মতো প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

চীনে ২০১৮ সালে পাস হওয়া একটি আইনে ‘দেশের বীর ও শহীদদের নামে কলঙ্ক রটানো’ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে চায়না ডেইলি পত্রিকার একটি কলামে বলা হয়েছে, এ ধরনের 'অপরাধের' জন্য চীনের ফৌজদারি আইনের আওতায় এখনই কোনো ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করা যাবে না।

কেননা এই আইনটির সংশোধনী এখনো কার্যকর করা হয়নি। আগামী মাস থেকে সংশোধিত আইনটি কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে। তার পরই এই আইনের আওতায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হতে পারে।

আটককৃত একজন ব্লগারের কথা উল্লেখ করে চায়না ডেইলির একজন কলামিস্ট বলেছেন, আটক ব্লগার যদি এই কাজটি আর মাত্র ১০ দিন পরে করতেন, তাহলে তিনিই হতেন এই আওতায় সাজাপ্রাপ্ত প্রথম ব্যক্তি। এটা খুবই দুঃখজনক।

বীরদের নামে কলঙ্ক রটানো

নানজিং জননিরাপত্তা ব্যুরো থেকে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, কিউ নামের একজন ব্লগারকে আটক করা হয়েছে ১৯শে ফেব্রুয়ারি। তার বয়স ৩৮। স্থানীয় রিপোর্ট অনুসারে মাল্টিব্লগিং সাইট ওয়েইবোতে তার ২৫ লাখ অনুসারী রয়েছে। তবে বিবিসি নিউজের পক্ষে এই তথ্যের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয়নি। কেননা তার অ্যাকাউন্ট ইতোমধ্যে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : বাড়ির কাজের জন্যও স্ত্রীকে বেতন দিতে হবে!

ওয়েইবোর পক্ষ থেকে গত সপ্তাহে ঘোষণা করা হয় যে কিউ-র অ্যাকাউন্ট এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বলা হচ্ছে ব্লগার কিউ আটক হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন। বলেছেন যে তিনি ইন্টারনেটের লোকজনের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এই অবৈধ আচরণ করেছেন, ওয়েইবোতে তথ্যের বিকৃতি ঘটিয়েছেন এবং যেসব বীর সেনাসদস্য সীমান্ত রক্ষা করেছিল তাদের নামে কলঙ্ক রটিয়েছেন।

মূলত তারপর থেকেই ‘বিবাদ ও সমস্যা তৈরিতে প্ররোচনা দেওয়ার’ অভিযোগে তাকে আটক রাখা হয়। চীনে সমালোচনাকারীদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ আনা একটি সাধারণ ঘটনা।

চীন গত সপ্তাহেই প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করে যে, লাদাখ অঞ্চলের গালওয়ান ভ্যালিতে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে তাদের চার জন সেনা নিহত হয়েছে। এর আগে ভারতের পক্ষ থেকে ওই সংঘর্ষে ২০ জন চীনা সেনা নিহত হওয়ার কথা বলা হয়েছিল। সে সময় বেইজিং তাদের সেনাদের হতাহত হওয়ার কথা স্বীকার করলেও সুনির্দিষ্টভাবে কোনো সংখ্যা উল্লেখ করেনি।

আরও পড়ুন : করোনার টিকা নিলেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী

চীনের সামরিক সংবাদমাধ্যমের পিএলএ ডেইলিতে বলা হয়েছে, যেসব সেনাসদস্য তাদের যৌবন, রক্ত ও জীবন দিয়েছে তাদের বীর হিসেবে সম্মানিত করা হয়েছে। নিহত সব সেনাকে মরণোত্তর পুরষ্কারও দেওয়া হয়েছে।

সূত্র : সিএনএন, বিবিসি নিউজ

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড