• বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ৭ মাঘ ১৪২৭  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৯৫ শতাংশ কার্যকর রাশিয়ার টিকা ‘স্পুৎনিক ভি’

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৫ নভেম্বর ২০২০, ১৪:৫৭
করোনা
ছবি : সংগৃহীত

চলমান মহামারি ঠেকাতে করোনার কার্যকর টিকা আনার লড়াই জোরেশোরেই চলছে। ফাইজার, মডার্না ও অক্সফোর্ডের টিকার পর রাশিয়ার টিকা স্পুৎনিক ভি-এর কার্যকারিতা জানা গেল। একজন ব্যক্তির ক্ষেত্রে এই টিকার দুটি ডোজ প্রয়োগ করতে হয়। দ্বিতীয় ডোজের প্রয়োগ হয় প্রথম ডোজের ২১ দিন পর। টিকাটির দ্বিতীয় পর্বের বিশ্লেষণে দেখা গেছে, প্রথম ডোজের ২৮ দিন পর টিকাটি করোনা সংক্রমণ রুখতে ৯১.৪ শতাংশ কার্যকর হয়েছে। আর প্রথম ডোজের ৪২তম দিনে কার্যকারিতা বেড়ে হয়েছে ৯৫ শতাংশ। এর আগে প্রথম পর্বের বিশ্লেষণে টিকাটির সাফল্যের হার ৯২ শতাংশ বলে জানানো হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি ডোজ স্পুৎনিক ভি-এর দাম পড়বে ৮.৪০ ইউরো, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮৪৫ টাকা। এই টিকার বড় সুবিধা হলো, এটি অন্য সাধারণ টিকার মতোই ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সংরক্ষণ করা যায়।

গত আগস্টের শুরুতে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসের টিকার (স্পুৎনিক ভি) অনুমোদন দেয় রাশিয়া। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে টিকাটি তৈরি করেছে গামালিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট। বর্তমানে টিকাটির চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা চলছে। এরই মধ্যে ৪০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক তাতে শামিল হয়েছেন। এর মধ্যে ২২ হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রথম ডোজ নিয়েছেন। আর ১৮ হাজার ৭৯৪ জন দুই ডোজই গ্রহণ করেছেন। এই ১৯ হাজার জনের ওপর দ্বিতীয় পর্বের ফল গতকাল মঙ্গলবার প্রকাশিত হয়েছে।

গামালিয়া ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক আলেকজান্ডার গিন্টসবার্গ বলেছেন, দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার এক সপ্তাহ পর দ্বিতীয় পর্বের ফল বিশ্লেষণ করা হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, দুই ডোজের সমন্বয়ে কার্যকারিতা বেড়েছে। দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগের তিন সপ্তাহ পর সার্বিক কার্যকারিতার হার ৯৫ শতাংশের চেয়েও বেশি হতে পারে।

রাশিয়া ছাড়াও সংযুক্ত আরব আমিরাত, ভেনিজুয়েলা, বেলারুশসহ বেশ কয়েকটি দেশে স্পুৎনিক ভি-এর ট্রায়াল চলছে। চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা শেষ হলে পূর্ণাঙ্গ ফল প্রকাশ করা হবে বলে উদ্ভাবকরা জানিয়েছেন। রাশিয়ার ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের অনেকেই টিকা গ্রহণ করেছেন। তবে চূড়ান্ত ফল প্রকাশের আগে সবার মাঝে টিকা প্রদান কর্মসূচি শুরু হবে না। রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী তাতিয়ানা গোলিকোভা গতকাল বলেছেন, চলতি বছর নাগাদ স্পুৎনিক ভি-এর ২০ লাখ ডোজ উৎপাদন করা হবে। আগামী বছরের শুরুতেই গণহারে টিকা দেওয়া শুরু হবে।

রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড জানিয়েছে, আগামী বছরের মধ্যে ৫০ কোটিরও বেশি রুশ নাগরিক টিকা পাবে।

এর আগে গত সোমবার যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনার টিকার ট্রায়ালের ফল প্রকাশিত হয়। এতে দেখা যায়, টিকাটি শতকরা ৭০ ভাগ মানুষের মধ্যে কভিড বাসা বাঁধতে দেয় না। এরও আগে মার্কিন ওষুধ কম্পানি ফাইজার ও জার্মান জৈব প্রযুক্তি কম্পানি বায়োএনটেক উদ্ভাবিত টিকা করোনা মোকাবেলায় ৯৫ শতাংশ কার্যকর বলে তৃতীয় ধাপের চূড়ান্ত ফলে উঠে আসে। তবে এই টিকার বড় অসুবিধা হলো, এটি মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় পরিবহন ও সংরক্ষণ করতে হয়। আরেক মার্কিন কম্পানি মডার্না উদ্ভাবিত করোনার টিকা ৯৪.৫ শতাংশ কার্যকর বলে প্রতিষ্ঠানটি দাবি করেছে। ওই টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার পর প্রাথমিক ফলের ভিত্তিতে মডার্না এই দাবি করেছে। সূত্র : দ্য মস্কো টাইমস, এএফপি।

ওডি/

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড