• বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ৬ মাঘ ১৪২৭  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নেতানিয়াহুর সঙ্গে সৌদি যুবরাজের গোপন বৈঠকের কথা অস্বীকার

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:৪৮
নেতানিয়াহুর সঙ্গে সৌদি যুবরাজের গোপন বৈঠকের কথা অস্বীকার
ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ও সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান (ছবি : খালিজ টাইমস)

মধ্যপ্রাচ্যের ইহুদিবাদী দখলদার রাষ্ট্র ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সৌদি সফর এবং যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে তার বৈঠকের কথা অস্বীকার করেছে মুসলমানদের তীর্থস্থান হিসেবে পরিচিত দেশটি। সোমবার (২৩ নভেম্বর) সৌদির পক্ষ থেকে বলা হয়, ইসরায়েলি মিডিয়াতে এ বিষয়ে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা মোটেও ঠিক নয়।

সম্প্রতি ইসরায়েলসহ বিভিন্ন দেশের সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে দেখা করতে রবিবার (২২ নভেম্বর) গোপনে সৌদি আরব গেছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। এবার মূলত আগে থেকেই সেখানে অবস্থান করছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। পরবর্তীকালে পম্পেও এবং ক্রাউন প্রিন্সের সঙ্গে নেতানিয়াহুর বৈঠক হয়।

কিন্তু বিষয়টি অস্বীকার করে সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান টুইট বার্তায় বলেন, আমি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে দেখেছি, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সফরের সময় ক্রাউন প্রিন্স এবং ইসরায়েলের কর্মকর্তারা উদ্দেশ্যমূলক বৈঠকে অংশ নিয়েছেন। কিন্তু এ ধরনের কোনো বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়নি। গুরুত্বপূর্ণ সেই বৈঠকে শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্র এবং সৌদির কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইসরায়েলের সর্বজনীন প্রচারমাধ্যম কান এবং অন্যান্য সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, গত রবিবার বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। কয়েক সপ্তাহ আগেই সৌদির ঘনিষ্ঠ দুই মিত্র দেশ আরব আমিরাত এবং বাহরাইন ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তিতে পৌঁছেছে। এর মধ্যেই সৌদি ও ইসরায়েলের দুই শীর্ষ নেতার বৈঠকের কথা সামনে এলো।

আরও পড়ুন : ক্ষেপণাস্ত্রের শক্তি দেখতেই হুথিরা সৌদির তেলক্ষেত্রে হামলা চালায়

ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্বাভাবিকের চুক্তিতে মধ্যস্ততা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও এবারের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি হেরে গেছেন। আগামী জানুয়ারিতেই নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে তাকে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

তেল আবিবভিত্তিক কান রেডিওর খবরে বলা হয়েছে, সৌদি সফরের আগে ইসরায়েলে সফর করেছে পম্পেও। পরবর্তী সময়ে লোহিত সাগরের নিওম শহরে তিনি বৈঠক করেছেন। যদিও ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর কার্যালয় কিংবা দেশটিতে মার্কিন দূতাবাস তাৎক্ষণিকভাবে সফরটিকে নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

আরও পড়ুন : লিবিয়াগামী তুর্কি জাহাজে জার্মানির অভিযান, উত্তেজনা তুঙ্গে

ইসরায়েলের দৈনিক হারেৎজ এবং বিমান চলাচল তথ্যে দেখা গেছে, তেল আবিব থেকে সংক্ষিপ্ত সফরে সৌদি আরবের নিওমে যায় একটি ব্যক্তিগত বিমান; যেখানে রবিবার বৈঠক করেন যুবরাজ সালমান এবং পম্পেও।

ফ্লাইট ট্র্যাকিং ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, নিওমে অবতরণের পর সেখানে আনুমানিক দুই ঘণ্টা অবস্থানের পর নেতানিয়াহুকে বহনকারী বিমানটি ঠিক মধ্যরাতে আবার তেল আবিবে ফিরে যায়। এই বিমান নিয়েই বেশ কয়েকবার পুতিনের সঙ্গে দেখা করতে গেছেন নেতানিয়াহু।

আরও পড়ুন : মহানবীর জন্মভূমিতে নেতানিয়াহু কেন? প্রশ্ন হামাসের

এমন খবরে সোমবার (২৩ নভেম্বর) থেকেই ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্কে বড় ধরনের পদক্ষেপ হিসেবে দেখা হচ্ছে এটি। জো বাইডেন শপথ নেওয়ার আগেই আরব দেশগুলোকে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকের প্রক্রিয়ায় যেতে ওয়াশিংটন ক্রমাগত চাপ দিয়ে যাচ্ছে বলেও জল্পনা তৈরি হয়েছে।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড