• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইথিওপিয়ায় চূড়ান্ত সামরিক অভিযান চালানোর ঘোষণা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ নভেম্বর ২০২০, ১১:১০
ইথিওপিয়ায় চূড়ান্ত সামরিক অভিযান চালানোর ঘোষণা
সামরিক অভিযান চলছে (ছবি : বিবিসি নিউজ)

স্বাধীনতাকামী উত্তরাঞ্চলীয় টাইগ্রে এলাকায় শিগগিরই চূড়ান্ত এবং গুরুত্বপূর্ণ সামরিক অভিযান শুরু হবে বলে সতর্ক করেছেন ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ। মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) তিনি জানান আঞ্চলিক নেতাদের এবং সেখানকার বিশেষ বাহিনীকে আত্মসমর্পণের জন্য বেধে দেওয়া সময়সীমা আজ শেষ হয়ে যাচ্ছে। ফলে টাইগ্রের রাজধানী মেকেল্লে অভিমুখে চূড়ান্ত অভিযানের পথ সুগম হয়েছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আবি আহমেদ ক্ষমতা আসার পর আফ্রিকার দেশ ইথিওপিয়ার রাজনৈতিক অবস্থার আমূল পরিবর্তন হতে শুরু করে। প্রতিবেশী ইরিত্রিয়ার সঙ্গে দুই দশক ধরে চলা রক্তক্ষয়ী সংঘাতের অবসান ঘটে তারই হাত ধরে। এই কারণে ক্ষমতায় আসার মাত্র এক বছরের মাথায় নোবেল শান্তি পুরস্কার পান তিনি।

বিশ্লেষকদের মতে, প্রতিবেশীর সঙ্গে সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় প্রশংসিত হলেও নিজ দেশের স্বাধীনতাকামী অঞ্চল টাইগ্রেতে শান্তি ফেরাতে তেমন পদক্ষেপ নেননি তিনি। উল্টো ব্যাপক রাজনৈতিক সংস্কারের নামে টাইগ্রেয়ানদের কোণঠাসা করে ফেলার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এর প্রভাবেই টাইগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্ট পার্টির (টিপিএলএফ) সঙ্গে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের বিরোধ চরম আকার ধারণ করে শুরু হয়েছে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে চলা এই সংঘর্ষে উভয় পক্ষের শত শত মানুষ নিহত হয়েছে। গত সপ্তাহে টাইগ্রেয়ান বাহিনী প্রতিবেশী ইরিত্রিয়ায় রকেট হামলা চালালে উত্তেজনা আরও বাড়তে শুরু করে। এই সংঘর্ষের কারণে ইথিওপিয়ার অন্যান্য অঞ্চল ও হর্ন অব আফ্রিকায় অস্থিতিশীলতা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা বাড়ছে। ইতোমধ্যে সংঘাত কবলিত এলাকা থেকে প্রায় ২৫ হাজার শরণার্থী সুদানে পালিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন : বাগদাদে দফায় দফায় ভয়ঙ্কর ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত

ইথিওপিয়ার সরকারের জরুরি টাস্ক ফোর্স জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ চূড়ান্ত অভিযানের বিষয়ে সতর্ক করার আগে মেকেল্লের বাইরে সরকারি বাহিনী সুনির্দিষ্ট স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে। একই সঙ্গে স্থল বাহিনীও অগ্রসর হওয়া অব্যাহত রেখেছে।

টাইগ্রের আঞ্চলিক সরকার বলছে, ইথিওপিয়ার সরকারি বাহিনীর ওই অভিযানে বেসামরিক মানুষ হতাহত হয়েছে। তবে ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ইথিওপিয়ার জরুরি টাস্ক ফোর্স।

এমন প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার এক ফেসবুক পোস্টে ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ লেখেন, টাইগ্রে বিশেষ বাহিনী এবং মিলিশিয়াদের জাতীয় প্রতিরক্ষার কাছে আত্মসমর্পণের জন্য দেওয়া তিন দিনের আল্টিমেটাম... আজ শেষ হয়েছে। সময়সীমা শেষ হয়ে যাওয়ায় আগামী দিনে আইন প্রয়োগের চূড়ান্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ চালানো হবে।

আরও পড়ুন : সোমালিয়ায় রেস্টুরেন্টে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ৬

টাইগ্রে টেলিভিশনে প্রচারিত ফুটেজে দেখা গেছে একটি আবাসিক এলাকায় বোমা বর্ষণ করা হয়েছে। রোমহর্ষক সেই বোমাবর্ষণে মেকেল্লের ভূমিতে গর্ত হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া বাড়ির ছাদও দেখানো হয়েছে।

সেখানকার পরিস্থিতি বর্ণনা করে এক বাসিন্দা টেলিভিশনটিকে বলেন, কয়েকটি বিস্ফোরণের আওয়াজ শুনতে পাই। বুম, বুম, বুম শুনতে পেয়ে আমি ঘরে ঢুকে যাই। পরে যখন বাইরে আসি তখন এইসব ধ্বংসযজ্ঞ দেখতে পাই।

আরও পড়ুন : পম্পেওকে পাত্তাই দিলেন না এরদোগান

যদিও যোগাযোগ বন্ধ এবং সংবাদমাধ্যমের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকায় টাইগ্রে অঞ্চলের পরিস্থিতি স্বাধীনভাবে যাচাই করা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের জন্য কঠিন করে তুলেছে।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড