• শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বাকস্বাধীনতা তুমি কার, ম্যাক্রো না এরদোগানের?

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৪:২৯
বাকস্বাধীনতা তুমি কার, ম্যাক্রো না এরদোগানের?
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান ও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর ব্যঙ্গচিত্র (ছবি : সম্পাদিত)

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন এবং ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্টের বিরূপ মন্তব্যের জেরে মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে ইমানুয়েল ম্যাক্রোকে বিদ্রূপ করে কার্টুন আঁকায় মৌরতানিয়ার বিখ্যাত কার্টুনিস্ট খালিদ ওলেদ মাওলা ইদরিসের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে ফ্রান্সের দূতাবাস।

শিল্পকর্মটিকে আপত্তিকর ও ফরাসি প্রজাতন্ত্রের প্রতীকের প্রতি অবমাননা বিবেচনা করেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রিমটুডে ডট নেটের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ফ্রান্সে মহানবীকে (সা.) নিয়ে পরিহাসমূলক কার্টুন ও ম্যাক্রোর ইসলাম বিদ্বেষ উসকে দেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় তিনি কার্টুনটি এঁকেছিলেন। যদিও ফরাসি দূতাবাসের এই সিদ্ধান্তে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) ফরাসি সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন শার্লি এবদো তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের ব্যঙ্গাত্মক ছবি প্রকাশ করেছে। সেখানে তাকে বর্ণবাদী বলে আখ্যায়িত করা হয়।

আরও পড়ুন : ক্ষোভ বাড়ছেই, বাংলাদেশসহ মুসলিম বিশ্বে ফরাসিদের বিশেষ সতর্কতা

যদিও বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে মুসলিম বিশ্বে নিন্দার ঝড় উঠতে শুরু করেছে। তবে ভিন্ন পথে হাঁটছে ফরাসিরা। তারা এটিকে মিডিয়ার বাকস্বাধীনতা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

এ দিকে ম্যাক্রো এবং এরদোগানের ব্যঙ্গাত্মক ছবি নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনা পর্যালোচনার মাধ্যমে বিশ্লেষকরা বলেছেন, মুসলিম নেতা এরদোগানের ব্যঙ্গাত্মক ছবি প্রকাশ যদি গণমাধ্যমের বাকস্বাধীনতা হয়, তাহলে ফরাসি প্রেসিডেন্টের ব্যঙ্গাত্মক ছবি নিয়ে এতো নিন্দা কেন?

অপর দিকে বিশ্বাসের স্বাধীনতার প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন না করা এবং ফ্রান্সের লাখ লাখ মুসলিমকে অবজ্ঞা করার জন্য ফরাসি প্রেসিডেন্টের তীব্র সমালোচনা করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

আরও পড়ুন : ম্যাক্রোকে মুসলিমদের কাছে ক্ষমা চাইতে বলছে লিবিয়া

ফ্রান্স বিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে সিরিয়াতেও। প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেয় শত শত মানুষ। এদিন বিক্ষোভকারীরা ফরাসি প্রেসিডেন্টের ছবি পদদলিত করেন। ইরাক ও ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরেও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়। সমাবেশে বক্তারা বলেন, ফ্রান্স ও দেশটির প্রেসিডেন্ট ইসলাম ধর্ম এবং মহানবী (স.)কে নিয়ে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে। এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়ার মতো ঘটনা নয়।

ভারতেও ফ্রান্স বিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে। মহানবী (স.)র ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ এবং সন্ত্রাসের সঙ্গে ইসলামকে জড়িয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্টের বিতর্কিত মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরবও। তবে বিশ্বের অনেক দেশ ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক দিলেও সৌদি সরকার পণ্য বয়কটের পক্ষে নয়। এ ছাড়া ইরানে ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে তলব করা হয়।

আরও পড়ুন : এবার ডাচ এমপির বিরুদ্ধে মামলা করলেন এরদোগান

বিশ্বজুড়ে বিক্ষুব্ধ পরিস্থিতিতে গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ফ্রান্স তাদের নাগরিকদের মুসলিম অধ্যুষিত ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, ইরাক ও মৌরিতানিয়ায় বসবাস কিংবা ভ্রমণ করার ব্যাপারে সাবধান করে দিয়ে বাড়তি পূর্বসতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছে।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড