• শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আর্মেনিয়ার রকেট লঞ্চার ধ্বংস করল আজারবাইজান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৫ অক্টোবর ২০২০, ১৪:১৬
আর্মেনিয়ার রকেট লঞ্চার ধ্বংস করল আজারবাইজান
ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হচ্ছে (ছবি : প্রতীকী)

আর্মেনিয়ার দুইটি রকেট লঞ্চপ্যাড ধ্বংস করেছে প্রতিবেশী আজারবাইজানের সেনারা। বুধবার (১৪ অক্টোবর) আজেরি প্রশাসন দাবিটি করেছে। যদিও পরবর্তীকালে আর্মেনীয় সেনারাও আজারবাইজানের এই দাবি মেনে নিয়েছে।

বিবৃতির মাধ্যমে আজারবাইজানের প্রশাসন জানায়, আর্মেনিয়ার একটি রকেট লঞ্চপ্যাড এবং একটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম ধ্বংস করা হয়েছে। তাদের দাবি, ওই দুইটি লঞ্চপ্যাড থেকে গত কয়েক দিন ধরে আজারবাইজানের সাধারণ মানুষের ওপর গোলাবর্ষণ করা হচ্ছিল। আর্মেনিয়া আজারবাইজানের এই দাবি মেনে নিয়েছে। তবে একই সঙ্গে আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তার দেশের সেনা কখনোই আজারবাইজানের সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করেনি। শুধুমাত্র সেনা কাঠামোগুলোকেই সবসময় লক্ষ্যবস্তু করেছে তারা।

বিশ্লেষকদের মতে, বাস্তব চিত্র অবশ্য ঠিক তেমন নয়। আজারবাইজানের একাধিক শহর আর্মেনিয়ার গোলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আজারবাইজানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর গানজাসহ একাধিক শহর থেকে সাধারণ মানুষ পালিয়ে গেছেন। অনেক সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

এ দিকে আজারবাইজানও একই কাজ করেছে। তাদের গোলায় কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চল।

আরও পড়ুন : ফিলিস্তিনিদের অকৃতজ্ঞ জাতি বলছে ইসরায়েলের বন্ধু আমিরাত

আর্মেনিয়ার হিসেব অনুযায়ী, ভয়াবহ এই সংঘাতে সব মিলিয়ে কয়েক হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে অধিকাংশই সাধারণ মানুষ। এছাড়া ঘর ছেড়েও পালিয়েছেন অসংখ্যা মানুষ।

রাশিয়া দুই দেশের কাছেই আরও একবার যুদ্ধবিরতির অনুরোধ করেছে। গত শনিবার দুইটি দেশ মস্কোর মধ্যস্থতায় যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে সম্মত হয়েছিল। প্রায় ১০ ঘণ্টা বৈঠকের পর দুইটি দেশই সাময়িক সময়ের জন্য যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে রাজি হয়। কিন্তু ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ফের দুই দেশই একে অপরকে আক্রমণ করতে শুরু করে। বুধবারেও গোলাবর্ষণ হয়েছে দেশ দুইটির মধ্যে।

আরও পড়ুন : এবার ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে লেবানন

এমন পরিস্থিতিতে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট তুরস্কের একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, আর্মেনিয়া এবার আজারবাইজানের গ্যাস এবং তেলের লাইনগুলোকে টার্গেট করছে। সেখানে বিস্ফোরণ হলে আজারবাইজান এর যোগ্য জবাব দেবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

অন্য দিকে আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তুরস্ক ও আজারবাইজান যুদ্ধ বন্ধ করলে তারাও সেই পথেই হাঁটবেন।

আরও পড়ুন : অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা অবসানের প্রহর গুনছে ইরান

বুধবার আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী প্রথমবার স্বীকার করেছেন যে, দুই দেশের মধ্যকার এই যুদ্ধে তার দেশের অনেক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে সাধারণ মানুষও আছেন এবং সেনারাও আছেন। তবে এতদিন পর্যন্ত আর্মেনিয়া দাবি করছিল, তাদের দিকে পাঁচশর অধিক মানুষের মৃত্যু হয়নি।

সূত্র : ডয়চে ভেলে

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড