• শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আর্মেনিয়ার জন্য রাশিয়াকে ধমক দিল তুরস্ক

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৩ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৫
আর্মেনিয়ার জন্য রাশিয়াকে ধমক দিল তুরস্ক
সীমান্তে গোলাবর্ষণ করছে তুর্কি সেনারা (ছবি : প্রতীকী)

নাগোরনো-কারাবাখ প্রসঙ্গে ফের মুখ খুলল ইউরোপের মুসলিম রাষ্ট্র তুরস্ক। সোমবার (১২ অক্টোবর) তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে কথা হয়েছে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর। সেখানে চলমান যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করায় আর্মেনিয়ার জন্য রাশিয়াকে ধমক দিয়েছে তুরস্ক।

আঙ্কারা জানিয়েছে, নাগোরনো-কারাবাখ আজারবাইজানের ভূখণ্ড। আর্মেনিয়া সেখান থেকে সরে গেলেই দ্রুত শান্তি ফিরবে। যুদ্ধের গোড়া থেকেই তুরস্ক আজারবাইজানকে সমর্থন করছিল।

আর্মেনিয়ার অভিযোগ, তুরস্কের সামরিক বাহিনীও অস্ত্র এবং যুদ্ধবিমান দিয়ে আজারবাইজানকে সাহায্য করেছে।

যুদ্ধবিরতি ঘোষণা হয়েছিল গত শনিবার (১০ অক্টোবর) কিন্তু এখনো পর্যন্ত তাতে লাভ হয়নি। আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের সেনা এখনো লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে নাগোরনো-কারাবাখ। যুদ্ধ থামার কোনো ইঙ্গিত মেলেনি। কারণ দুইটি দেশই নিজেদের দাবিতে অনড়।

আরও পড়ুন : আর্মেনিয়াকে ধ্বংস না করে বাড়ি ফিরবে না তুরস্কের সেনারা

আজারবাইজানের বক্তব্য, আর্মেনিয়া নাগোরনো-কারাবাখ থেকে সরে না গেলে তারা যুদ্ধ বন্ধ করবে না। বস্তুত, শুক্রবার (৯ অক্টোবর) মস্কোয় ১০ ঘণ্টার শান্তি বৈঠকেও একই কথা বলেছিল আজারবাইজান। যুদ্ধবিরতিতে রাজি হলেও তা যে সাময়িক, সে কথাও জানিয়ে দিয়েছিল তারা।

আরও পড়ুন : আজারবাইজানের গোলায় ধ্বংস আর্মেনিয়ার শক্তিশালী পাঁচ ড্রোন (ভিডিয়ো)

মাঠের চেয়ে বেশি লড়াই চলছে মুখে৷ দুই পক্ষই আশ্রয় নিচ্ছে বাগাড়ম্বরের। নিজেদের ছোঁড়া গোলায় সাধারণ মানুষ মারা গেলেও দুই পক্ষই অপর পক্ষকে দুষছে যুদ্ধের নিয়ম না মানার জন্য৷ হামলা নিয়ে দুই পক্ষের পালটা দাবিতে সংকট আরও বাড়ছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে

সংশ্লিষ্ট ঘটনা সমূহ : আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যুদ্ধ

আরও
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড