• বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নর্দমা পরিষ্কারে নেমে মিলল চোখ ছানাবড়া দৈত্যাকার ইঁদুর! (ভিডিও)

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৩৮
নর্দমা পরিষ্কারে নেমে মিলল চোখ ছানাবড়া দৈত্যাকার ইঁদুর! (ভিডিও)
চোখ ছানাবড়া দৈত্যাকার ইঁদুর (ছবি : নিউ ইয়র্ক পোস্ট)

এত বড় ইঁদুর! সম্ভব নাকি! দূর থেকে দেখে প্রথমে দুহাত দিয়ে প্রথমে চোখ মুছে ফেলেছিলেন সাফাইকর্মীরা। তার পরও তারা যা দেখলেন তাতে হা হয়ে যেতে হয়। একটি দৈত্যাকার ইঁদুর বসে রয়েছে নর্দমার জলের উপর। বিরাট আকারের ইঁদুর। ভয়ে হাঁটু কাঁপতে শুরু করেছিল সাফাইকর্মীদের। তবে শেষ মেশ সেই ইঁদুরটিকে নর্দমা থেকে টেনে বাইরে আনা হয়। তার পরই পুরো ব্যাপারটা পরিষ্কার হয়।

দেখতে অবিকল আসল ইঁদুরের মতো হলেও সেটি আদতে আসল নয়। নকল ইঁদুর। তবে দেখে সেটা বোঝার বিন্দুমাত্র উপায় নেই। এত অসাধারণ হাতের কাজ।

মেক্সিকোর রাজধানী মেক্সিকো সিটির ঘটনা। সেখানেই একটি নিকাশি নালা পরিষ্কার করতে গিয়ে বিশালাকার ইঁদুরটিকে দেখতে পান সাফাইকর্মীরা। এত বড় ইঁদুর দেকে প্রথমে চোখ ছানাবড়া হয়ে যায় সবার। নিকাশি নালা থেকে শেষ পর্যন্ত ইঁদুরটিকে বের করেন তারা।

আরও পড়ুন : ট্রাম্পের বাড়ি গেলেই ময়লা কাপড় সঙ্গে নেন নেতানিয়াহু!

জানা যায়, কাপড় ও তুলো দিয়ে কেউ বা কারা তৈরি করেছিল সেই ইঁদুর। হ্যালোয়েনের জন্য সেই দৈত্যাকার ইঁদুর বানানো হয়েছিল। এর পর সেটিকে ফেলে দেওয়া হয়। কোনোভাবে সেই বিরাট ইঁদুর এসে আটকে যায় নর্দমার ওই অংশে। যার জেরে ওই নর্দমার নিকাশি ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। এদিন ২২ টন লিটার বর্জ্য সাফাই করেন সাফাইকর্মীরা।

ইঁদুরটিকে রাস্তার উপর রেখে জল দিয়ে পরিষ্কার করেছেন কর্মীরা। সেই বিরাট ইঁদুর দেখতে ভিড় জমেছে। অনেকেই সেই ইঁদুরের ছবি শেয়ার করেছেন স্যোশাল মিডিয়ায়। অনেকেই বলছেন, দেখে বোঝার উপায় নেই যে এটা নকল ইঁদুর।

আরও পড়ুন : রাফালে যুদ্ধবিমান প্রসঙ্গে এবার মোদীকে নিয়ে তামাশা কংগ্রেসের

এরই মধ্যে জানা যায়, একজন মহিলা সেই ইঁদুরটি নিজের বলে দাবি করেছেন। ইঁদুরটি তিনি বানিয়েছেন বলে দাবি করেছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, ইঁদুরটি তিনি ফেলেননি। হারিয়ে গিয়েছিল। লোপেজ নামের সেই মহিলার দাবি, বছরখানেক আগে বানানো সেই ইঁদুর একদিন নর্দমায় পড়ে যায়। তার পর বৃষ্টির জলে সেটি ভেসে যায়। এরপর তিনি একাধিকবার কর্তৃপক্ষকে নালা পরিষ্কারের আবেদন করলেও কেউ আসেনি। এমনই দাবি করেছেন তিনি।

ভিডিওটি দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড