• রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অযোধ্যায় রামমন্দির ইস্যুতে পাক-ভারতের শব্দযুদ্ধ শুরু

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৭ আগস্ট ২০২০, ১৫:৫৩
অযোধ্যায় রামমন্দির ইস্যুতে পাক-ভারতের শব্দযুদ্ধ শুরু
অযোধ্যায় রামমন্দির ও বাবরি মসজিদ (ছবি : দ্য হিন্দু)

অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির নির্মাণ ইস্যুতে এবার ভারতকে সরাসরি আক্রমণ করল প্রতিবেশী রাষ্ট্র পাকিস্তান। যদিও এতে পাল্টা জবাব দিয়েছে ভারতও। অভিযোগ রয়েছে, পাকিস্তানের বক্তব্য সম্পূর্ণ সাম্প্রদায়িক। ইসলামাবাদের দাবি, অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ অনুচিত। এমনকি ভারতের সুপ্রিমকোর্টের রায়কেও তারা 'ত্রুটিপূর্ণ' বলে বিবৃতি দিয়েছিল।

বুধবার (৫ আগস্ট) অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান হয়। রুপোর ইট বসিয়ে তার সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ওই দিনই পাকিস্তান অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরি নিয়ে বিবৃতি প্রকাশ করে। সেখানে বলা হয়, যে প্রক্রিয়ায় ভারত রামমন্দির তৈরি করছে তা অন্যায়।

বস্তুত, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায়কেও কার্যত চ্যালেঞ্জ জানানো হয় ওই বিবৃতিতে। বলা হয়, অযোধ্যা মামলায় ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায় 'ত্রুটিপূর্ণ'।

করোনাকালে এই অনুষ্ঠান করা নিয়ে প্রচুর সমালোচনা হচ্ছে। মন্দিরের পুরোহিত করোনায় আক্রান্ত। অমিত শাহেরও করোনা হয়েছে। কিছু নিরাপত্তা রক্ষীরও। তাই নিমন্ত্রিতের সংখ্যা কাটছাঁট করে ১৭৫-এ নামিয়ে আনা হয়েছে। মূল মঞ্চে থাকার কথা পাঁচজনের। প্রধানমন্ত্রী, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যপাল, আরএসএস প্রধান এবং ট্রাস্টের প্রধান নিত্য গোপাল দাসের। বাকিরা সামনে দূরত্ব বজায় রেখে বসবেন।

আরও পড়ুন : চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস, কানাডাতেও ঘাতক বাহিনী পাঠিয়েছেন সালমান

পাকিস্তানের এই মন্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে ভারত। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেছেন, ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানোর কোনো অধিকার নেই পাকিস্তানের। পাক বিবৃতিকে সাম্প্রদায়িক এবং উস্কানিমূলক বলে বর্ণনা করা হয়েছে। একই সঙ্গে অনুরাগ বলেছেন, পাকিস্তানের কাছ থেকে অবশ্য এমন মন্তব্যই প্রত্যাশিত। ওরা অন্য দেশে জঙ্গি কার্যকলাপে মদত দেয়। নিজের দেশে সংখ্যালঘুদের অধিকার ছিনিয়ে নেয়। তবে যে মন্তব্য করা হয়েছে, তা নিন্দাজনক।

আরও পড়ুন : যে কারণে ইরানকে দেখা মাত্রই দুর্বল হয়ে পরে যুক্তরাষ্ট্র!

১৯৯২ সাল থেকে অযোধ্যা খবরের শিরোনামে। বাবরি মসজিদের বিতর্কিত কাঠামো নিয়ে বহু জলঘোলা হয়েছে। বাবরি মসজিদ ভাঙার চেষ্টা হয়েছে। তারপর দীর্ঘদিন তা আদালতে বিচারাধীন ছিল। প্রথমে এলাহাবাদ হাইকোর্ট এ বিষয়ে রায় দান করে। পরে মামলা গড়ায় সুপ্রিমকোর্টে। ২০১৯ সালে সুপ্রিমকোর্ট বিতর্কিত অঞ্চলে রামমন্দির বানানোর অনুমতি দেয়।

আরও পড়ুন : বৈরুত বিস্ফোরণের পেছনে রাসায়নিক বোঝাই রুশ জাহাজ!

গত এক মাসে একাধিক বার ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে শব্দযুদ্ধ হয়েছে। পাক প্রধানমন্ত্রী দেশের মানচিত্রে কাশ্মীর এবং গুজরাটের কিছু অংশ সংযোজন করায় ভারত তার কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছিল। পাকিস্তানে একটি গুরুদ্বারকে মসজিদ বানানোর বিরোধিতা করে বিবৃতি প্রকাশ করেছিল ভারত। পরে কাশ্মীরে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের এক বছর পূর্তি উপলক্ষেও দুই দেশের মধ্যে কড়া মন্তব্য চালাচালি হয়।

আরও পড়ুন : চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস, কানাডাতেও ঘাতক বাহিনী পাঠিয়েছেন সালমান

বস্তুত, প্রথম থেকেই পাকিস্তান এর বিরোধিতা করছে। জাতি সংঘেও বার বার বিষয়টি উত্থাপন করার চেষ্টা চালিয়েছে। যেখানে চীনকে পাশে পেয়েছে তারা। তবে রামমন্দির নির্মাণ প্রসঙ্গে এই প্রথম পাকিস্তান সরকারি ভাবে কোনো মন্তব্য করল।

সূত্র : পিটিআই

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড