• শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এক নজরে চীন-ভারতের সামরিক শক্তির পরিসংখ্যান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৯ জুন ২০২০, ১১:০৩
এক নজরে চীন-ভারতের সামরিক শক্তির পরিসংখ্যান
সীমান্তে মহড়া পরিচালনার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। (ছবিসূত্র : দ্য ডেইলি হান্ট)

গত ৪৫ বছরে প্রথমবারের মতো সীমান্তে ভারত ও চীনের সামরিক সংঘর্ষে প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে দেশ দুটির সম্পর্ক। লাদাখ সীমান্তে গলওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর সতর্ক অবস্থানে আছে দুই দেশের সেনারা। পিছু হটে যাওয়ার কথা বলেও যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ক্রমশ সেনা সরঞ্জাম মজুত করছে দুই দেশ। ইতোমধ্যে লাদাখ সীমান্তে অত্যাধুনিক মিসাইল সিস্টেম, ট্যাংক, কামান মজুত করেছে ভারত। 

এবার সত্যিই যদি যুদ্ধ লেগে গেলে চীন-ভারতের মধ্যে কে জিতবে তা সময়ই বলে দেবে। তবে সামরিক শক্তিতে কে বেশি এগিয়ে? এক নজরে দুই দেশের সামরিক অবস্থান তুলে ধরা হলো।

পিডব্লিউআর র‍্যাঙ্কিং-

সামরিক শক্তির এই র‍্যাঙ্কিংয়ে ভারতের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে চীন। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার পরে, অর্থাৎ এ তালিকায় তিন নম্বরে রয়েছে দেশটি। তবে ভারতও খুব একটা পিছিয়ে নেই। চীনের পরেই, অর্থাৎ চার নম্বরে রয়েছে তারা।

সক্রিয় সেনাসদস্য-

চীনের সেনাসদস্য রয়েছে মোট ২১ লাখ ২৩ হাজার, ভারতের ১৪ লাখ ৪৪ হাজার। তবে রিজার্ভ সৈন্যের সংখ্যায় ভারত এগিয়ে৷ চীনের ৫ লাখ ১০ হাজারের বিপরীতে তাদের রয়েছে ২১ লাখ রিজার্ভ সৈন্য।

প্রতিরক্ষা বাজেট-

প্রতিরক্ষা খাতের বাজেটে ভারতের চেয়ে কয়েকগুণ এগিয়ে চীন। চীনের ২ হাজার ৩৭০ কোটি ডলারের বিপরীতে ভারতের প্রতিরক্ষা বাজেট মাত্র ৬১০ কোটি ডলার।

এয়ারক্রাফট-

এখানেও অনেকটাই এগিয়ে চীন। তাদের এয়ারক্রাফট রয়েছে ৩ হাজার ২১০টি। ভারতের রয়েছে ২ হাজার ১২৩টি।

যুদ্ধজাহাজ-

চীনের যুদ্ধজাহাজ রয়েছে ৭৭৭টি, ভারতের ২৮৫টি।

যুদ্ধবিমান-

যুদ্ধবিমানের সংখ্যায় দ্বিগুণেরও বেশি এগিয়ে চীন। তাদের ১ হাজার ২৩২টি যুদ্ধবিমানের বিপরীতে ভারতের রয়েছে ৫৩৮টি।

হেলিকপ্টার-

চীনের হেলিকপ্টার ৯১১টি, ভারতের ৭২২টি।

ট্যাংক-

ট্যাংকের সংখ্যায় বেশ এগিয়ে ভারত। চীনের ট্যাংক রয়েছে ৩ হাজার ৫০০টি আর ভারতের ৪ হাজার ২৯২টি।

সাঁজোয়া যান-

চীনের সাঁজোয়া যানবাহনের সংখ্যা ৩৩ হাজার, ভারতের ৮ হাজার ৬৮৬টি।

স্বয়ংক্রিয় আর্টিলারি-

এখানে দুই দেশের মধ্যে তুলনাই চলে না৷ চীনের স্বয়ংক্রিয় আর্টিলারি রয়েছে ৩ হাজার ৮০০টি, ভারতের মাত্র ২৩৫টি।

ফিল্ড আর্টিলারি-

এখানে চীনের চেয়ে সামান্য এগিয়ে ভারত৷ চীনের ৩ হাজার ৮০০টির বিপরীতে ভারতের ফিল্ড আর্টিলারি রয়েছে ৪ হাজার ৬০টি।

রকেট প্রজেক্টর-

এখানেও যোজন যোজন এগিয়ে চীন। তাদের রকেট প্রজেক্টর ২ হাজার ৬৫০টি, ভারতের মোটে ২৬৬টি।

সাবমেরিন-

ভারতের চেয়ে চীনের সাবমেরিন প্রায় পাঁচগুণ বেশি। চীনের সাবমেরিন ৭৪টি, সেখানে ভারতের রয়েছে মাত্র ১৬টি।

বিমানবাহী জাহাজ-

চীনের বিমানবাহী জাহাজ রয়েছে দু’টি, ভারতের একটি।

ডেস্ট্রয়ার-

চীনের ৩৬টি ডেস্ট্রয়ারের বিপরীতে ভারতের রয়েছে ১০টি।

ফ্রিগেট-

চীনের ৫২টি। তার ঠিক চার ভাগের এক ভাগ, অর্থাৎ ১৩টি ফ্রিগেট ভারতের।

রণতরী-

চীনের রণতরী ৫০টি, ভারতের ১৯টি।

উপকূলীয় টহল-

চীনের ২২০, ভারতের ১৩৯।

বিমানবন্দর-

চীনের মোট ৫০৭টি বিমানবন্দর রয়েছে, ভারতের ৩৪৭টি।

নৌবন্দর ও টার্মিনাল-

 

আরও পড়ুন : প্রতিপক্ষের দুর্গে আঘাত হানতে যা আছে চীন-ভারতের অস্ত্রাগারে!

 

এখানেও এগিয়ে চীন। তাদের নৌবন্দর ও টার্মিনাল ২২টি। ভারতের রয়েছে মোট ১৩টি।

সূত্র : ডয়চে ভেলে

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড