• রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মালিকদের চাপ, তবুও আগের ভাড়াতেই বাস নামাবেন মমতা 

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৩ জুন ২০২০, ২১:০৪
করোনা
ছবি : সংগৃহীত

নানা টালবাহানার পর অবশেষে রাস্তায় গাড়ি নামাতে বাধ্য হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের বেসরকারি পরিবহন মালিক সমিতি। আগামী বৃহস্পতিবার (৪ জুন) থেকে অধিকাংশ বাসই রাস্তায় চলাচল করবে বলে জানিয়েছে তারা। তবে বাস-মিনিবাসসহ সব ধরনের গণপরিবহন চলবে পুরনো ভাড়াতেই।

বুধবার (৩ জুন) কলকাতার সংবাদমাধ্যম জানায়, করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে বেসরকারি গণপরিবহনের মালিকেরা রাস্তায় গাড়ি নামানোর ক্ষেত্রে ভাড়া বাড়ানোর দাবি তুলেছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে। কিন্তু মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকার এই আবদার-চাপ কোনো কিছুতেই টলেনি। বরং সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, এই অবস্থায় ভাড়া বাড়লে দীর্ঘদিন আয়-রোজগার ছাড়া কাটানো মানুষ ভোগান্তিতে পড়বে। উপায় না দেখে শেষতক পুরনো ভাড়াতেই রাস্তায় গাড়ি নামানোর সিদ্ধান্ত নেন মালিকেরা। এক্ষেত্রে অবশ্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে যত আসন তত যাত্রী বসানোর দাবি আদায় করে নেন তারা।

বাস-মিনিবাস রাস্তায় নামানোর আগে তাদের ভাড়া বাড়ানোর দাবির বিষয়ে বুধবার (৩ জুন) আলোচনায় বসে সরকার। এতে মালিকপক্ষের লোকজনও অংশ নেন। ওই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, মানুষের অসুবিধার কথা চিন্তা করে ধীরে ধীরে সব রুটে বাস নামাতে হবে। মালিকরা এই মুহূর্তে ভাড়া বাড়ানোর দাবি তুললেও সরকার তা নাকচ করে দেয়। পরে মালিকরা সরকারের কাছে একটা সময়ে গিয়ে ভাড়া বাড়ানোর আবদার তোলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে সরকার সিদ্ধান্তের ভার এ সংক্রান্ত রেগুলেটরি কমিটির ওপর ছেড়ে দেয়। তারা পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত জানাবে যে, কখন কতো শতাংশ হারে ভাড়া বৃদ্ধি কার্যকর হতে পারে।

বাস-মিনিবাস পথে নামার পর পশ্চিমবঙ্গের গণপরিবহন ব্যবস্থা ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে অটো-ট্যাক্সি-ক্যাবে যত আসন, তত যাত্রী নিয়ে যাওয়ার অনুমতিও মিলেছে। চালু হয়েছে নৌপরিবহনও। সম্প্রতি চালু হয়েছে সরকারি গণপরিবহনও।

ওডি/ 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড