• শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

যোগ্য উত্তরসূরি তৈরি করেই পৃথিবী ছেড়েছেন সোলাইমানি : বিশ্লেষক

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:১৬
কাসেম সোলাইমানি
জেনারেল কাসেম সোলাইমানি (ছবি : পার্সটুডে)

মার্কিনিদের ড্রোন হামলায় নিহত হওয়া ইরানের সর্বোচ্চ সামরিক কর্মকর্তা জেনারেল কাসেম সোলাইমানি মৃত্যুর আগে নিজের যোগ্য উত্তরসূরি তৈরি করে গেছেন বলে মন্তব্য করেছেন ড. সোহেল আহমেদ নামে রেডিও তেহরানের একজন সিনিয়র সাংবাদিক। খবর ‘পার্সটুডে’। 

জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে নিয়ে শনিবার (১৮ জানুয়ারি) মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম পার্সটুডেতে একটি কলাম লেখেন সোহেল আহমেদ। ওই কলামেই এ মন্তব্য করেন তিনি।

ওই কলামে ড. সোহেল আহমেদ লেখেন, জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ছিলেন অত্যন্ত বিচক্ষণ একজন সমরবিদ। তার কূটনৈতিক জ্ঞানও ছিল অসাধারণ। যুক্তরাষ্ট্রের মতো বড় সামরিক শক্তির মোকাবিলায় টিকে থাকতে হলে যে কেবল প্রচলিত যুদ্ধের কৌশলে কাজ হবে না তা তিনি বুঝতে পেরেছিলেন। তার বিচক্ষণতায় মধ্যপ্রাচ্যে সাম্রাজ্যবাদ ও ইহুদিবাদ বিরোধী এক বিশাল প্রতিরোধ ফ্রন্ট গড়ে উঠেছে।

এরপর রেডিও তেহরানের এই সিনিয়র সাংবাদিক লেখেন, জেনারেল সোলাইমানির মতো এমন বিচক্ষণ একজন সমরনায়ক নিজের যোগ্য উত্তরসূরি তৈরি না করেই বিদায়ের সুর বাজাবেন তা হতে পারে না। এ কারণে এটা নিশ্চিত করে বলা যায়, তিনি যোগ্য নেতৃত্ব ও সমরবিদ তৈরি করেই পৃথিবী ছেড়েছেন। 

এ দিকে আইআরজিসির সাবেক প্রধান ও জাতীয় নীতি নির্ধারণী কাউন্সিলের বর্তমান সচিব জেনারেল মোহসেন রেজায়ির বক্তব্যেও মিলেছে এমন ইঙ্গিত। জেনারেল রেজায়ি বলেছেন, কাসেম সোলাইমানি তার উত্তরসূরির নাম বলে গেছেন। সেটার ওপর ভিত্তি করেই সোলাইমানির মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ইসমাইল কায়ানিকে তার পদে নিয়োগ দেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি।

আরও পড়ুন : ফিলিস্তিন এখনো আমাদের প্রধান ইস্যু : সিরিয়া

প্রসঙ্গত, ইসমাইল কায়ানি প্রায় ১২ বছর সোলাইমানির প্রধান সহযোগী হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি ছিলেন জেনারেল সোলাইমানির নেতৃত্বাধীন কুদস ফোর্সের সেকেন্ড ইন কমান্ড। ইরানের উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তাদের মতে, সোলাইমানি ও কায়ানি ছিলেন একে অপরের পরিপূরক।

ওডি/এসসা

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড