• সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাখাইনে গণহত্যার অভিযোগকে বিভ্রান্তিকর বলছেন সু চি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:০৯
অং সান সু চি
শান্তিতে নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সু চি (ছবিসূত্র : সিএনএন)

জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে দ্বিতীয় দিনের শুনানি শুরু হয়েছে। যেখানে গাম্বিয়ার করা গণহত্যার অভিযোগকে বিভ্রান্তিকর বলে মন্তব্য করেছেন মিয়ানমারের প্রতিনিধি ও নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সু চি। তিনি বলেন, ‘রাখাইনে সেনা অভিযানে যা ঘটেছে, তা গণহত্যার সংজ্ঞার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। যে কারণে জাতিসংঘের আদালতে গাম্বিয়ার করা মামলা কেবলই ভুল দিককে নির্দেশ করছে।’

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) নিজ দেশের পক্ষে বক্তব্য দিতে গিয়ে সু চি এ কথা বলেন।

শুনানিতে রোহিঙ্গা শব্দটি উচ্চারণ না করেই তিনি বলেন, ‘রাখাইনে সেনা অভিযানে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের অভিযোগ হয়তো উড়িয়ে দেওয়া যায় না, তবে এর পেছনে গণহত্যার উদ্দেশ্য ছিল- এমনটা ধরে নেওয়াটাও মিয়ানমারের জটিল বাস্তবতার সঙ্গে ঠিক হবে না।’

এর আগে মঙ্গলবার প্রথম দিনের শুনানিতে মিয়ানমারকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর গণহত্যা বন্ধের আহ্বান জানানো হয়। এ সময় স্তব্ধ হয়ে বসে ছিলেন মিয়ানমারের প্রতিনিধি অং সান সু চি।

ফরাসি সংবাদমাধ্যম এএফপি জানায়, আন্তর্জাতিক আদালতের শুনানি থেকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর গণহত্যা চালানো বন্ধ করতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানানো হয়। শুনানির প্রথম দিন এই আহ্বানের সম্মুখীন হন মিয়ানমারের প্রতিনিধি অং সান সু চি।

হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে গাম্বিয়ার করা মামলায় এ দিন রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতার বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরা হয়। এ সময় স্তব্ধ হয়ে বসে ছিলেন সু চি।

প্রথম দিনের শুনানিতে গাম্বিয়ার বিচারমন্ত্রী আবুবাকার তাম্বাদৌ আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারকদের উদ্দেশে বলেন, মিয়ানমারকে এ রকম নির্দয় হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করতে বলুন। তাদের বর্বরতা বন্ধ করতে বলুন, যা আমাদের সবার বিবেককে নাড়া দিচ্ছে। মিয়ানমারকে তাদের নিজেদের লোকদের ওপর গণহত্যা চালানো বন্ধ করতে বলুন।

আরও পড়ুন :- আদালতের প্রশ্নে স্তব্ধ সু চি

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বিশাল সামরিক অভিযান চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। এতে প্রায় ৭ লাখ ৫০ হাজার রোহিঙ্গা ওই রাজ্য থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। মূলত এই অভিযান নিয়েই ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক আদালতের শুনানিতে অংশ নেবেন সু চি।

ওডি/কেএইচআর

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড