• শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আগ্রাসী যুক্তরাষ্ট্র, ইরানের প্রস্তুতি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১০ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:১৭
ট্রাম্প, রুহানি
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি (ছবিসূত্র : এবিসি নিউজ)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অতি আগ্রাসী মনোভাবের কারণেই নিজেদের প্রস্তুতি হিসেবে পরমাণু কর্মসূচির দিকে হাঁটছে মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান। এমনটাই দাবি করেছেন এশিয়ার পরাশক্তি চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক মুখপাত্র ফু কং।

তিনি বলেছেন, ‘ওয়াশিংটন একতরফাভাবে তেহরানের পরমাণু চুক্তি প্রত্যাহারের মাধ্যমে দেশটির ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে ইরান বাধ্য হয়েই এমন উদ্ভট পরিস্থিতির দিকে এগুচ্ছে। মূলত এর পর থেকেই দেশটির ওপর যুক্ত হয় ট্রাম্প প্রশাসনের কথিত ‘সর্বোচ্চ চাপ’ প্রয়োগের নীতি।’

এ দিকে শনিবার (৯ নভেম্বর) পরমাণু অস্ত্রের বিস্তার রোধ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিতে রাশিয়া সফরে যান চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র। যেখানে ইরান-মার্কিন ইস্যুতে নিজেদের সর্বশেষ এই অবস্থানের কথা তুলে ধরেন।

ইরানের পরমাণু সমঝোতায় দেওয়া চতুর্থ দফা প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন স্থগিত প্রসঙ্গে চীনের এই মুখপাত্র বলেন, ‘ইরান প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন স্থগিত রাখার যে পদক্ষেপ এরই মধ্যে হাতে নিয়েছে তা পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ প্রচেষ্টায় কোনো প্রতিবন্ধকতা তৈরি করবে না। কেননা তেহরান এখনো পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ চুক্তি বা এনপিটি-তে অটল রয়েছে।’

অপর দিকে যুক্তরাষ্ট্রকে চাপে রাখতে সম্প্রতি আকস্মিক যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে ইরান। যার অংশ হিসেবে গত ৯ অক্টোবর পশ্চিম আজারবাইজানে একটি সামরিক মহড়ার আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে উন্নত ট্যাংক, কামান ও হেলিকপ্টারসহ বিভিন্ন ধরনের উন্নত অস্ত্র প্রদর্শন করা হয়। শত্রুর মোকাবিলায় সেনাবাহিনীর পদাতিক ইউনিটের তাৎক্ষণিক জবাবের বিষয়টি মহড়ায় গুরুত্ব পায়।

এর আগে ২০১৫ সালে ইরানের পরমাণু কর্মসূচি কমানোর জন্য তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার নেতৃত্বে বিশ্বের ক্ষমতাধর ছয় দেশের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছিল। যেখানে শর্ত ছিল ইরান তার পরমাণু কর্মসূচি কমিয়ে আনবে, যার বিনিময়ে তাদের ওপর আরোপিত সকল অবরোধ ক্রমশ তুলে নেওয়া হবে। এতে চুক্তি স্বাক্ষরকারী দেশগুলো হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন ও জার্মানি।

আরও পড়ুন :- ইরাকে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে নিহত ৫

যদিও পরবর্তীকালে গত বছরের ৮ মে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়ে একে একটি অকার্যকর চুক্তি বলে মন্তব্য করেন। একই সঙ্গে তিনি তেহরানের তেল বিক্রিতে অতিরিক্ত নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করেন; যা এখনো অব্যাহত আছে।

সূত্র : ‘পার্স টুডে’

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড