• শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মেঘালয় ভ্রমণে বহিরাগতদের জন্য দুঃসংবাদ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০২ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৩২
মেঘালয়
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি মেঘালয় (ছবি : সংগৃহীত)

মেঘ, পাহাড়, ঝরনা, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি, ঠান্ডা হওয়া, দিগন্ত ছোঁয়া সবুজের সমারোহ, এ যেন অপার সৌন্দর্যের প্রাকৃতিক এক লীলাভূমি মেঘালয়। এখানে বছরের ছয় থেকে সাত মাস মেঘে ঢাকা থাকে। আপনার মনে হবে মেঘের দেশে এসেছেন। মেঘেদের খেলাঘর খ্যাত ভারতের এই রাজ্যটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে প্রতিবছর লাখ লাখ মানুষ ঘুরতে আসেন। কিন্তু এখন থেকে মেঘালয়ে ভ্রমণ করতে চাইলে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে রাজ্য সরকারের অনুমতি লাগবে বহিরাগতদের।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি আইনের সংশোধনী অনুমোদন করেছে রাজ্যসভা।

শনিবার (২ নভেম্বর) ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী প্রেস্টন টিনসং জানিয়েছেন রাজ্যসভায় মেঘালয় অধিবাসী, নিরাপত্তা ও সুরক্ষা আইন ২০১৬-এর সংশোধনী অনুমোদন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই সংশোধনী অনুমোদন পেয়েছে। এটি তাৎক্ষণিক কার্যকর হবে। এই পদক্ষেপ নেওয়ার আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও এনজিওর সঙ্গে আলাপ-আলোচনার পরেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

যারা মেঘালয়ের বাসিন্দা নন, ওই সব বহিরাগতরা যদি এখন থেকে রাজ্যটিতে ২৪ ঘণ্টার বেশি থাকতে চায় তাহলে সরকারের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করতে হবে।

তবে এই নতুন নিয়মের আওতার বাইরে থাকবেন কেন্দ্রীয় সরকার, রাজ্য ও জেলা কাউন্সিলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

এরই মধ্যে মেঘালয়ের সব বাড়িওয়ালাদের কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঠিক রাখতে এবং কাউকে আশ্রয় দেওয়ার ক্ষেত্রে এ বিষয়টি সম্প্রদায় প্রধানকে (ট্র্যাডিশনাল কমিউনিটি হেড) অবশ্যই জানাতে।

মুখ্যমন্ত্রী প্রেস্টন টিনসং বলেছেন, রাজ্যের জনসাধারণের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সতর্ক করে বলা হয়েছে, যদি কেউ প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে ব্যর্থ হয় বা ভুল তথ্য দেয়, তবে তাকে ভারতীয় দণ্ডবিধির উপযুক্ত ধারায় শাস্তি পেতে হবে।

আসাম রাজ্যে এনআরসি করার পর মেঘালয়েও অবৈধ অভিবাসী খোঁজার দাবি উঠেছিল। এরই পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তা ও সুরক্ষা আইন সংশোধনের ঘোষণা দিল মেঘালয় সরকার।

ওডি/টিএএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড