• বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

কোন শরীরচর্চাটি আপনার জন্য উপযুক্ত?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

০৭ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৫৬
শরীরচর্চা
ছবি : ইন্টারনেট

মনে করুন, আপনি শরীরচর্চা করবেন বলে ঠিক করেছেন। কিন্তু এখনো ঠিক করেননি যে কোন পদ্ধতিটি এক্ষেত্রে অবলম্বন করাটা আপনার জন্য বেশি ভালো হবে। ঠিক এই সময়ে আপনি আপনার চারপাশে অনেক ভিন্ন ভিন্ন উপায় খুঁজে পাবেন। এই পদ্ধতিগুলোর মধ্যে কোনটি আপনার জন্য সঠিক?

প্রাথমিকভাবে শরীরচর্চার জন্য সবাই সব রকমের পদ্ধতিই ব্যবহার করার চেষ্টা করেন। ভাবেন, এই একই কাজের মাধ্যমে যদি অন্য কেউ সহজেই মেদ ঝরিয়ে ফেলতে পারে, তাহলে আমি কেন পারবো না! অবশ্যই, আপনিও আপনার শরীরের মেদ ঝরাতে পারবেন। কিন্তু, ব্যাপারটি এমন নয় যে সব ধরণের শরীরচর্চাই আপনার জন্য সঠিক। 

আপনি যদি কোনো শরীরচর্চা একেবারেই পছন্দ না করেন এবং শরীরচর্চা করার পর যদি আপনি শারীরিকভাবে ভালো বোধ না করেন, সেক্ষেত্রে আপনি নিজের মতো শরীরচর্চার পদ্ধতি অনুসরণ করতেই পারেন। 

ভাবছেন, নিজের মতো করে কীভাবে শরীরচর্চার পদ্ধতি তৈরি করে ফেলা যায়? খুব সহজ। সাধারণত, ওজন কমাতে এবং শরীরচর্চা করতে তিনটি জিনিসের প্রয়োজন পড়ে। সেগুলো হলো- হৃদপিণ্ডের গতি বাড়িয়ে তোলা, পেশী তৈরির জন্য স্ট্রেন্দ ট্রেনিং করা এবং সঠিক পরিমাণ বিশ্রাম নেওয়া। 

এমনভাবে আপনার শরীরচর্চাকে সাজান যেটির মাধ্যমে এই তিনটি কাজই সফলভাবে করা সম্ভব হবে। কীভাবে করবেন শরীরচর্চার এই সঠিক মিশ্রণটি? চলুন, দেখে নেওয়া যাক- 

হার্ট পাম্পিং অ্যাক্টিভিটি- 

প্রতি সপ্তাহে ১৫০ মিনিট শরীরচর্চা করা প্রয়োজন। অর্থাৎ, আপনি যদি সপ্তাহে ৫ দিন ৩০ মিনিট করে শরীরচর্চা করেন, তাহলেই এক্ষেত্রে যথেষ্ট। এর মানে এই নয় যে, আপনাকে কার্ডিওর খুব কঠিন কোন পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। আপনাকে শুধু হৃদপিণ্ডের স্পন্দন বাড়াতে হবে। আর সেটা আপনি বাড়িতে বসে কার্ডিওর মাধ্যমে, সাইকেল চালিয়ে বা দৌড়েও করতে পারেন। প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট কাজের তালিকা ও লক্ষ্য নির্ধারণ করুন। এমন যেন না হয় যে আপনি শরীরচর্চা করতে গিয়ে স্বাস্থ্যগতভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন।

স্ট্রেন্দ ট্রেনিং-এর মাধ্যমে পেশী গঠন-

এটি সপ্তাহে দুইবার করলেই যথেষ্ট। তবে মাথায় রাখবেন যেন এই শরীরচর্চার সময় আপনার শরীরে সব গুরুত্বপূর্ণ অংশ ও পেশীগুলো কাজ করে। এক্ষেত্রে, আপনি ঘরে বসে ওয়েট লিফটিং করতে পারেন। এছাড়াও, চাইলে কোন দলেও যোগ দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে সবার সাথে একসাথে শরীরচর্চার কাজ করলে মানসিকভাবে ক্লান্ত হয়ে পড়বেন না। 

বিশ্রাম গ্রহণ- 

শরীরচর্চা সঠিকভাবে আপনার শরীরে কাজ করছে কিনা সেটা আপনি সঠিকভাবে বিশ্রাম নিচ্ছেন কিনা সেটার উপরে নির্ভর করে। আপনি যদি প্রচুর চাপ দেন নিজের শরীরের উপরে তারপরেও শুধু পরিমাণমতো বিশ্রাম না নেওয়ার কারণে এই শরীরচর্চার কোন ইতিবাচক ফলাফল আপনি নাও পেতে পারেন। 

এক্ষেত্রে সপ্তাহে ১ বা ২ দিন রাখুন বিশ্রামের জন্য। এই দিনে শরীরচর্চা না করে শরীরকে বিশ্রাম দিন। ম্যাসাজ নিন, ইয়োগা করুন, লম্বা একটা আরামদায়ক গোসল সারুন। এতে করে আপনার শরীর যথেষ্ট বিশ্রাম পাবে। 

আপনি কি আপনার পছন্দসই শরীরচর্চা খুঁজে পেয়েছেন? এখনো যদি এ ব্যাপারে কোন দ্বিধা থেকে থাকে সেক্ষেত্রে নিজেকে প্রশ্ন করুন-

আপনার কি এই শরীরচর্চা করতে ভালো লাগছে?

আপনি কি শারীরিকভাবে ভালো বোধ করছেন?

যদি এই দুইটি প্রশ্নের উত্তর ‘হ্যাঁ’ হয়, তাহলে কোন চিন্তা ছাড়াই পরবর্তীতে শরীরচর্চার পদ্ধতিটি চালু রাখুন। এতে করে আপনি নিজের তৈরি করা প্রক্রিয়াতেই সুস্থ থাকবেন সবসময়। বাড়তি ঝামেলা বা চাপ- কোনটাতেই আর ভুগতে হবে না।  

ওডি/এনএম

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড