• বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন

কিশোর বয়সে হৃদপিণ্ডের সমস্যা? সুস্থ রাখুন আপনার সন্তানকে!

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

১১ মে ২০১৯, ১৩:০৫
শিশু
ছবি : প্রতীকী

হৃদপিণ্ডের যেকোনো সমস্যার ক্ষেত্রে আমরা বয়স্কদের কথা ভেবে থাকি। কিন্তু আপনি কি জানেন যে, এই সমস্যার হাত থেকে মুক্ত নয় আপনার কিশোর-কিশোরী সন্তানটিও? আপনার কি কিশোরবয়সী সন্তান আছে? ঠিক কী ধরনের সমস্যা তার হতে পারে? আর এই সমস্যাগুলোর কারণটাই বা কী?  চলুন, জেনে নেওয়া যাক- 

কম ঘুমানো- 

কিশোর-কিশোরীদের ক্ষেত্রে রাত জাগা নিয়ে এক রকমের ভুল ধারণা কাজ করে। অনেকেই বড় হওয়ার প্রথম ধাপ হিসেবে নিজের ঘুমকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে। বাস্তবে, এই বয়সেও তাদের অন্তত ৯ ঘন্টা ঘুমানোর দরকার হয়। অন্যথায় তাদের শরীরে উচ্চ-রক্তচাপ ও উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের মতো সমস্যা প্রকাশ পায়। যেগুলো হৃদপিণ্ডের সমস্যারই পূর্বধাপ হিসেবে কাজ করে।

কোমল পানীয় পান করা- 

কিশোর-কিশোরীরা কোমল পানীয় পান করতে পছন্দ করে। স্বাদ এবং শক্তির জন্য নানারকম পানীয়ের প্রাথমিক ভোক্তা হিসেবেই কাজ করে তারা। কিন্তু, এই কোমল পানীয় তাদের হৃদপিণ্ডের অসুস্থতার জন্য দায়ী হয়ে থাকে। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখতে পাওয়া যায় যে, কোমল পানীয় গ্রহণের মাধ্যমেই কিশোর-কিশোরীরা ১৩ শতাংশ ক্যালোরি পায়। সেখান থেকে স্থূলতা এবং হৃদপিণ্ডের সমস্যাগুলো তৈরি হয়। সেই তুলনায়, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার এবং জীবনপদ্ধতি হৃদপিণ্ডের এই সমস্যাগুলোর পরিমাণ অনেকটা কমিয়ে আনে। 

ধূমপান করা- 

শুনতে খারাপ লাগলেও সত্যি যে, চারপাশের মানুষের প্রভাবে বা শুধুই কৌতূহল থেকেই অনেক কিশোর-কিশোরীই ধুমপান শুরু করে। আর সেটা অনেক ক্ষেত্রেই শুধু একবার বা দুইবারের জন্য হলেও, কিছু ক্ষেত্রে এটি অভ্যাসে পরিণত হয়। আর ধূমপান যে শরীরের উপরে বাজে প্রভাব ফেলে এবং হৃদপিণ্ডের নানারকম সমস্যার পেছনে বড় ভূমিকা পালন করে সেটা নতুন করে বলার কিছু নেই।

কর্মক্ষম না থাকা- 

আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম প্রযুক্তির সাথে অনেক বেশি সম্পৃক্ত। বিশেষ করে, বাইরে যাওয়ার চাইতে ঘরে বসেই নানারকম খেলা খেলতে, গান শুনতে বা চলচ্চিত্র দেখে সময় কাটাতে বেশি পছন্দ করে তারা। ফলে তাদের শরীর বেশিভাগ সময়ই কর্মক্ষম থাকে না। এতে করে স্থূলতা বেড়ে যায়। সেখান থেকেই তৈরি হয় হৃদপিণ্ডের নানারকম সমস্যা।

এসব সমস্যা থেকে দূরে থাকতে-

১। আপনার সন্তানকে শরীরচর্চা করতে উৎসাহিত করুন। তাকে বাইরে খেলতে যেতে বলুন। এতে করে সে শারীরিকভাবে কর্মক্ষম থাকবে। শুধু হৃদপিণ্ডের সমস্যা নয়, নানারকম রোগ থেকে দূরে থাকবে সে।

২। আপনার সন্তান বড় হয়ে ওঠার আগেই তাকে বাজে অভ্যাস এবং সেগুলোর ফলাফলগুলো সম্পর্কে জানান। এতে করে পরবর্তীতে ধূমপান এবং অন্যান্য শারীরিক সমস্যা থেকে সে দূরে থাকতে পারবে।

৩। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া যেমন আপনার সন্তানের জন্য প্রয়োজন, তেমনি আপনার জন্যেও প্রয়োজন। পরিবারে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন। আপনার সন্তান যেন এ সম্পর্কে সচেতন থাকে সেটাও নিশ্চিত করুন।

৪। ঘুম আমাদের সবার জন্যই অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি ব্যাপার। আপনার সন্তান ঠিক পরিমাণ ঘুমাচ্ছে কিনা তা জানুন। যদি সে না ঘুমিয়ে থাকে, তাহলে তাকে দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার এবং নির্দিষ্ট সময় পর সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস গড়ে তোলার ব্যাপারে উৎসাহিত করুন।

অসুস্থতা কারোরই কাম্য নয়। আর আপনার সন্তান অসুস্থ হয়ে পড়ুক, সেটাও নিশ্চয় আপনি চান না? তাই, এই বয়সে সন্তানকে সুস্থ রাখতে এবং হৃদপিণ্ডের নানারকম সমস্যা থেকে দূরে রাখতে তাকে উপরোক্ত বাজে অভ্যাসগুলো ত্যাগ করতে বলুন। একইসাথে, অভ্যাসগুলো গড়ে তুলুন আপনিও। 

সূত্র : মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটাল।

ওডি/এনএম
 

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড