• শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

আপনার স্বাস্থ্যগত সমস্যা অনাগত শিশুর স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়াচ্ছে না তো?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি ১৩ মার্চ ২০১৯, ১৪:২২

মা
ছবি : সম্পাদিত

অনাগত সন্তানকে নিয়ে প্রতিটি মা আনন্দিত থাকেন। আর তাই নিজের শিশুটির সুরক্ষা নিয়ে চিন্তাটাও থাকে অনেক বেশি। সাধারণত, মায়ের স্বাস্থ্যসুরক্ষার উপরে অনাগত শিশুর স্বাস্থ্য অনেকটাই নির্ভরশীল। 

গর্ভকালীন সময়ে নির্দিষ্ট কিছু সমস্যা আপনার ও আপনার শিশুর স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিতে পারে। চলুন, এই সময়ে ঝুঁকিপূর্ণ ও আপনার কাছ থেকে আপনার শিশুর শরীরে প্রবাহিত হতে সক্ষম এমন কিছু স্বাস্থ্যসমস্যা ও এর সমাধানের কথা জেনে নেওয়া যাক। 

জিকা ভাইরাস- 

সাধারণত, এডিস মশার কামরে জিকা ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। যৌন সংস্পর্শের মাধ্যমে এবং মায়ের মাধ্যমে সন্তানের কাছে এই ভাইরাস প্রবাহিত হতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এর কোনো লক্ষণ দেখা যায় না। তবে, জ্বর, র‍্যাশ, ঠাণ্ডা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। গর্ভকালীন সময়ে মা জিকা ভাইরাসের দ্বারা আক্রান্ত হলে-

● মাইক্রোকেফালি (বেড়ে ওঠা থেমে যাওয়া)
● গর্ভপাত
● মস্তিষ্কে সমস্যা হওয়ার মতো ব্যাপারগুলো দেখা দিতে পারে।

গ্রুপ বি স্ট্রেপকোকক্কাস- 

জিবিএস নামক এই ব্যাকটেরিয়া মানুষের শরীরে এমনিতেই বাস করে এবং কোনোরকম ক্ষতিসাধন করে না। তবে, যদি কোনো নারীর জরায়ুতে এই ব্যাকটেরিয়া থাকে এবং গর্ভকালীন সময়ে সেটি শিশুর শরীরে প্রবাহিত হয়, তাহলে শিশুটি মৃত্যুর মতো বড় সমস্যার মুখোমুখিও হতে পারে। এক্ষেত্রে-

● জ্বর, অবসাদ, নিঃশ্বাসে সমস্যা
● নিউমোনিয়া
● মেনিনগিটিস
● সেপসিস বা রক্তের সংক্রমণ ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।

সাইটোমেগালোভাইরাস- 

হার্পিস ভাইরাসের অন্য একটি রূপ হচ্ছে সাইটোমেগালোভাইরাস। কমবয়সী শিশুদের মধ্যে এই সমস্যা অনেক বেশি দেখা যায়। একবার কারও শরীরে প্রবেশ করলে এই ভাইরাসটি সবসময় শরীরে অবস্থান করে। তরলের মাধ্যমে শিশুদের মধ্যে মায়ের কাছ থেকে এই ভাইরাস প্রবাহিত হয়। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে শিশুকে-

● মানসিক প্রতিবন্ধকতা
● মানসিক উন্নয়নে ধীরগতি
● চোখ ও কানের সমস্যা ইত্যাদি সমস্যায় ভুগতে হতে পারে।

লিস্টেরিওসিস- 

লিস্টেরিওসিস লিস্টেরিয়া ভাইরাসের মাধ্যমে হয়ে থাকে। মাটি, পানি, বিভিন্ন প্রাণীর মাধ্যমে এই ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করতে পারে। এই ভাইরাস খাবারের মাধ্যমে মানুষের শরীরে প্রবেশ করলে লিস্টেরিওসিস নামক সমস্যাটি দেখা যায়। বয়স্ক মানুষ ও শিশুদের ক্ষেত্রে এটি সবচাইতে এবশি ক্ষতিকর ভূমিকা রাখে। গর্ভকালীন সময়ে মা শিশুর শরীরে এই ভাইরাস প্রবাহিত করে থাকেন। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে-

● গর্ভপাত
● ঝুঁকিপূর্ণ অসুখ ও
● সময়ের আগেই জন্ম নেওয়ার মত সমস্যাগুলো দেখা দিতে পারে।

এসচেরিশিয়া কোলি- 

ই কোলি নামে বেশি পরিচিত এই ব্যাকটেরিয়াটি আমাদের জরায়ু ও অন্ত্রে খুঁজে পাওয়া যায়। মায়ের শরীর থেকে অনাগত সন্তানের শরীরে এটি খুব সহজেই প্রবাহিত হতে পারে। এই সমস্যায় আক্রান্ত হলে শিশুর মৃত্যু হওয়ার সম্ভাবনা পর্যন্ত থাকে। এছাড়াও এতে আক্রান্ত হলে -

● ডায়রিয়া
●কম ওজনের শিশু
● মায়ের রক্তপাত এবং গর্ভপাত ইত্যাদি নানাবিধ সমস্যার মোকাবেলা করতে হতে পারে।

এই নির্দিষ্ট কিছু সংক্রমণ ছাড়াও মায়ের কাছ থেকে শিশু ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন ও এসআইটি’র মত আরো অনেক শারীরিক সমস্যাও পেয়ে থাকতে পারে। কীভাবে এই সমস্যার সমাধান করবেন? চলুন জেনে নেওয়া যাক।

সংক্রামণ প্রতিরোধের উপায়গুলো কী?

উপর বর্ণিত সমস্যাগুলো যেন আপনার শিশুকে না ভোগায় সেজন্য নিচের সমাধানগুলো আপনি মেনে চলতেই পারেন-

১। জিকা ভাইরাস যেহেতু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মশার কামড়ের মাধ্যমে প্রবাহিত হয়, তাই মশার কামড় থেকে দূরে থাকুন। যৌন সংস্পর্শের সময়েও ব্যাপারটি সম্পর্কে সচেতন থাকুন।

২। জিবিএসের কোনো নির্দিষ্ট প্রতিষেধক নেই। তবে আপনার এই সমস্যাটি থাকলে গর্ভকালীন সময়ে অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহন করতে পারেন।

৩। ই কোলি, লিস্টেরিওসিস, এবং সিএমভি থেকে বাঁচতে খাবার খাওয়া এবং মাংস ধরার আগে সতর্কতা অবলম্বন করুন। 

সর্বোপরি, গর্ভকালীন সময়ে নিয়মিত চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। আপনার যেকোনো শারীরিক সমস্যা আপনার অনাগত শিশুকে প্রভাবিত করবে। তাই, নিজেকে সুস্থ রাখুন। তাহলেই সুস্থ থাকবে আপনার সন্তান। 

সূত্র- মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটাল। 

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড