• শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন

হৃদস্পন্দন কি শরীরের ফ্যাট পোড়াতে সাহায্য করে?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪২

ফ্যাট বার্নিং জোন
ছবি : সংগৃহীত

সাধারণত, ওজন কমানোর পেছনে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা শরীরচর্চার থাকে বলে মনে করা হয়। আপনার শরীরের জমাট বাধা চর্বি আরও দ্রুত কমাতে হলে আপনাকে আরও বেশি শরীরচর্চা করতে হবে- এটাই তো? কিন্তু এসব ছাড়াও হৃদস্পন্দনের বেশ বড় একটা ভূমিকা আছে এই পুরো প্রক্রিয়াতে। মনে করা হয়, একটা নির্দিষ্ট হৃদস্পন্দনের সময় মানুষের শরীরের চর্বি দ্রুত পোড়ে। আসলেই কি এই ‘ফ্যাট বার্নিং থিওরি’ কোনো সত্যতা রাখে? চলুন, দেখে নেওয়া যাক- 

হৃদস্পন্দন ও ফ্যাট পোড়া- সম্পর্ক কী?

শরীরের পেশীগুলো নিজেদের কাজ করার শক্তি পায় গ্লুকোজ থেকে। আর এই গ্লুকোজ আসে গ্লাইকোজেন এবং ফ্যাটের মাধ্যমে। এগুলো ভেঙ্গে গিয়ে গ্লুকোজ এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড ও পানিতে পরিণত হয়। এই গ্লুকোজ যেন শরীর ঠিকঠাকভাবে গ্রহণ করতে পারে, সেজন্য দরকার হয় অক্সিজেনের। শরীরচর্চার সময় আপনার হৃদপিণ্ড আরও বেশি কাজ করা শুরু করে। তখন শরীরে অনেক বেশি অক্সিজেন সরবরাহ করার দরকার পড়ে গ্লুকোজ তৈরির জন্য। 

যেখানে এক গ্রাম শর্করায় ৪ ক্যালরি থাকে, সেখানে এক গ্রাম ফ্যাটে থাকে ৯ ক্যালোরি। তবে আমাদের হৃদস্পন্দন বেড়ে গেলে শরীর প্রথমে শর্করার গ্লাইকোজেন থেকে গ্লুকোজ নেওয়া শুরু করে। কারণ এটি ভাঙ্গা সহজ হয়ে পড়ে। শরীর আর কার্বোহাইড্রেট না পেলে তখন শরীর ফ্যাট পোড়ানো শুরু করে গ্লুকোজের জন্য।

‘ফ্যাট বার্নিং জোন থিওরি’ কতটুকু সত্য?

ফ্যাট বার্নিং জোন থিওরি মূলত শরীরকে গ্লাইকোজেনের বদলে ফ্যাট পোড়ানোর ব্যাপারে সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞদের মতে, আমাদের শরীর কম পরিমাণ শরীরচর্চায় বা ধীরগতিতে হওয়া শরীরচর্চায় জমাট ফ্যাট থেকে শক্তি নেয়। কারণ, শরীরচর্চা অনেক দ্রুত করলে শরীর দ্রুত ভাঙ্গা যায় এমন গ্লুকোজ পাওয়ার চেষ্টা করে এবং শর্করা ব্যবহার করে। যেসব শরীরচর্চায় হৃদস্পন্দন কম দ্রুত হয়, এই থিওরি সেগুলো করারই পরামর্শ দেয়। 

ফ্যাট

 

কথাটি পুরোপুরি ঠিক নয় অবশ্য। আপনি যদি চান আপনার শরীরের ফ্যাট পুড়ুক সেক্ষেত্রে অবশ্যই ধীরস্থির শরীরচর্চাই বেশি উত্তম। তবে এজন্য আপনাকে অনেকটা সময় ধরে শরীরচর্চা করতে হবে। আর আপনি যদি দ্রুত শরীরচর্চা করেন তুলনামূলকভাবে এই সময় বেশি ক্যালরি পুড়বে। এক্ষেত্রে, আপনি বেশ দ্রুত শরীরচর্চা করলে আপনার শরীর প্রাথমিকভাবে গ্লাইকোজেন পোড়ালেও, সেটা শেষ হয়ে গেলে ফ্যাট পোড়ানোর দিকেই মনোযোগী হবে। একটা সময় গিয়ে তাই আপনার শরীরের ফ্যাট এমনিতেও ঝরে যাবে। 

তবে এটা সত্যি যে, আপনার শরীরের কতটুকু ক্যালরি পুড়বে তা আপনার হৃদস্পন্দনের উপরেও নির্ভর করে। মোট চারটি ভাগে ক্যালরি পোড়ার এই ব্যাপারটিকে ভাগ করা হয়। সেগুলো হচ্ছে-

১। আপনি যখন শরীরচর্চা মাত্র শুরু করছেন এবং ‘ওয়ার্ম আপ’ পর্যায়ে আছেন, তখন আপনি আপনার হৃদস্পন্দনের মাত্র ৬০-৭০ শতাংশ ব্যবহার করছেন। এই সময় আপনি বেশ ভালো বোধ করবেন এবং এভাবে অনেকক্ষণ ধরে শরীরচর্চা করতে পারবেন।

২। ওয়ার্ম আপের চাইতে একটু বেশি এই পর্যায়টিকে ফ্যাট বার্নিং জোন বলা হয়। যখন আপনি আপনার হৃদস্পন্দনের মাত্র ৭০-৮০ শতাংশ ব্যবহার করছেন। এক্ষেত্রে আপনি একটু ঘেমে যাবেন এবং ক্লান্ত হবেন। গ্লাইকোজেনের চাইতে কিছুটা বেশি পরিমাণ ক্যালরি এতে করে পুড়বে। তবে অন্যান্য ধাপের চাইতে এই পর্যায়ে ফ্যাট কম পুড়বে। 

৩। হৃদস্পন্দনের ৮১-৯৩ শতাংশ ব্যবহার করার এই পর্যায়টিকে অ্যারোবিক জোন বলা হয়। এক্ষেত্রে আপনি খুব কম কথা বলতে পারবেন। গ্লাইকোজেন ও ফ্যাট এই পর্যায়ে সমানভাবে পুড়বে।

৪। অ্যানঅ্যারোবিক জোন নামে পরবর্তী পর্যায়টিতে আপনি আপনার হৃদস্পন্দনের ৯৪-১০০ শতাংশ ব্যবহার করতে পারবেন। এটি এক মিনিটের বেশি করা সম্ভব নয়। খুব দ্রুত এই পর্যায়ে আপনার শরীরের গ্লাইকোজেন শেষ হয়ে আসবে। 

আপনি আপনার শরীরের ফ্যাট খুব দ্রুত পোড়াতে চান এবং হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখতে চান? হাই-ইনটেন্সিটি বা দ্রুত শরীরচর্চা করা হয়তো আপনাকে তুলনামূলকভাবে বেশি সাহায্য করবে। তাই, আগে থেকেই এ ব্যাপারে আরও জেনে নিন এবং শুরু করুন আপনার পছন্দসই শরীরচর্চাটি। 

মূল লেখক- ডক্টর অন হ্যাং ই, কার্ডিওলোজিস্ট, মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটাল। 
 
 

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড